যখন আপনার সঙ্গী ডিভোর্স এর জন্য আপনাকে চাপ সৃষ্টি করে

force-divorce

একটি সম্পর্ক ভেঙ্গে দেওয়া খুব সহজ কোন কাজ নয়। আর এই কাজটি আরও কঠিন হয়ে ওঠে যেখানে আপনি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে বদ্ধপরিকর আর আপনার সঙ্গী সম্পর্ক ভাঙতে তৎপর।

কি করবেন যখন আপার সঙ্গী ডিভোর্সের জন্য আপনাকে চাপ সৃষ্টি করবে?

সবটা মেনে নেবেন নাকি আপনার সম্পূর্ণ শক্তি দিয়ে চেষ্টা করবেন সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে?

জীবনের সংকটময় মুহূর্তে আপনার দরকার সঠিক দিক নির্দেশনা আর একটু মানসিক স্থিরতার।

আপনি যদি এমন কোন সমস্যার মধ্য কালাতিপাত করে থাকেন তাহলে এই ফিচারটি আপনার জন্য। হয়তো আপনাকে সামান্য হলেও মোটিভেট করতে সাহায্য করবে এটা।

শান্ত থাকুন

ডিভোর্স আপনার জীবনের জন্য নেওয়া বড় বড় সিদ্ধান্তগুলোর একটি। আর যেখানে আপনি সম্পর্কে থাকতে আগ্রহী সেখানে আপনাকে সবার আগে নিজেকে শান্ত রাখার গুণ অর্জন করতে হবে।

হতেই পারে আপনার সঙ্গী অতিশয় গোয়ার, অবিচল বা অস্থির প্রকৃতির এক্ষেত্রে আপনি যদি চান সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে তাহলে আপনার শান্ত থাকার কোন বিকল্প হবে না।

অস্থির মানসিকতা নিয়ে এসব সমস্যার সমাধান হয়না। আপনি যতো শান্ত আর স্থির থাকবেন সমস্যার হাল বের করতে আপনার জন্য ততবেশি সুবিধা হবে।


আরো পড়ুন– প্রতিকূল পরিস্থিতিতে সহজেই নিজেকে শান্ত রাখার উপায়


নিজ সিদ্ধান্তে অটল থাকুন

আপনি তো জানেন আপনি কি চান। তাই নিজের সিদ্ধান্তের প্রতি অটল থাকুন, কোন কারনেই বার বার সিদ্ধান্ত বদল করবেন না। এতে করে জটিলটা বাড়বে বৈ কমবে না।

আপনার মতের পরিবর্তন আপনার নিজের মনোবল ভাঙতে যথেষ্ট। আপনার নিজ সিদ্ধান্তে আপনি যদি অটল থাকে পারেন তাহলে যেকোন প্রতিকূল পরিস্থিতি আপনি সামলে নিতে পারবেন।

সঙ্গীর সাথে ডিভোর্স নিয়ে খোলাখুলি কথা বলুন

আপনার সঙ্গী আপনাকে ডিভোর্সের জন্য চাপ দিচ্ছে বলে আপনি রাগ করে বা অভিমান দেখিয়ে নিজের মনের সমস্ত কথা চেপে রাখবেন এই মানসিকতা একে বারেই মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলুন।

বরং আপনার সঙ্গীর মুখোমুখি হন, তার কাছে ডিভোর্সের কারণ সম্পর্কে জানতে চান।

তবে মাথায় রাখতে হবে সেটা যেন কৈফিয়ত চাওয়া বা ঝগড়ার পর্যায়ে না যায়। মাথা ঠাণ্ডা রেখে এই বিষয়ে সঙ্গীর সম্পূর্ণ কথা মনোযোগ দিয়ে শুনুন।

তর্কে জড়াবেন না

যেকোন স্বাভাবিক কোন ঘটনা অস্বাভাবিক করতে আপনার  তর্ক করার প্রবণতাই যথেষ্ট। আর যেখানে ব্যাপার আপনার ডিভোর্স সংক্রান্ত সেখানে আপনাকে তর্ক করার প্রবণতা পরিহার করে যুক্তির আশ্রয় গ্রহণ করুন।

সঙ্গীর দোষ ধরে তাকে হেনস্থা করার মানসিকতা পরিবর্তন করে সহানুভূতি নিয়ে তার সাথে সম্পূর্ণ বিষয় আলোচনা করুন। যদি সমাধান হওয়ার কোন উপায় থাকে তাহলে এভাবেই তা হবে।


আরো পড়ুনসম্পর্কে তর্ক করার বাজে অভ্যাস বা প্রবণতা রোধে আপনার করণীয়


ভুলেও সঙ্গীকে জোর জবরদস্তি করবেন না

আপনি জোর করে ভাঙ্গন ধরা সম্পর্ক রক্ষা করতে পারবেন না। তাই ডিভোর্সের জন্য আপনার সঙ্গী যখন আপনাকে চাপ প্রয়োগ করবে আপনিও আপনার সঙ্গীর সাথে জোর জবরদস্তি করবেন না।

পারলে তার থেকে কিছুটা সময় চেয়ে নিন আর আপনি নিজেও তাকে সময় দিন। অনেক সময় যেসব সমস্যার সমাধান আমরা নিজেরা করতে পারিনা তা সময় করে দেয়।

কাছের লোকের পরামর্শ নিন

আপনার এই সমস্যার সমাধানে আপনি আপনার কাছের বিশ্বস্ত লোকের সাহায্য নিতে পারেন। মধ্যস্থতা করার জন্য আপনি এমন কাউকে নির্বাচন করুন যার প্রভাব বা যার কথা আপনার সঙ্গীর জন্য গুরুত্ব রাখে।

ছোট খাটো দাম্পত্য কলহগুলো নিজেরা মিটিয়ে ফেলা গেলেও এসব ইস্যুতে তৃতীয় পক্ষ ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারে। তবে সেই তৃতীয় পক্ষটাকে অবশ্যই বিশ্বাসযোগ্য হতে হবে।

সন্তানের সাহায্য নিন

আপনার সঙ্গী আপনাকে ডিভোর্সের জন্য চাপ সৃষ্টি করলে যদি আপনারদের কোন সন্তান থেকে থাকে তাহলে তার সাহায্য নিন।

এই অবস্থায় একমাত্র আপনার সন্তান আপনার যোগ্য সহযোগী হিসেবে ভূমিকা রাখতে পারে।

সন্তানের ভবিষ্যৎ কি হবে, আপনাদের দুজনের বিবাহবিচ্ছেদ আপনার সন্তানের উপর কি কি নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে এসব সম্পর্কে আপনার সঙ্গীকে বোঝানোর চেষ্টা করুন।

হয়তো আপনার ভাঙতে বসা সম্পর্ক জোড়া লাগতেও পারে।


আরো পড়ুন– বিবাহিত জীবনে এড়িয়ে চলুন সম্পর্কে ভাঙ্গন সৃষ্টিকারী মারাত্মক কিছু ভুল


আপনার সব রকম চেষ্টার পরও যদি আপনার সঙ্গী ডিভোর্সের সিদ্ধান্তে অটল থাকে তাহলে আপনাকে মানসিকভাবে আরও শক্ত হতে বলা ছাড়া কোন উপায় থাকেনা।

মেনে নিন আপনার জীবনে এই মানুষটার প্রয়োজন থাকলেও তার কাছে আপনার প্রয়োজন ফুরিয়েছে।

একটা কথা সব সময় মনে রাখবেন এই নশ্বর পৃথিবীতে কারও জন্য কিছু থেমে থাকেনা। জীবন ঠিক তার আপন গতিতে চলতে থাকবেই।


সম্পর্কিত পোস্ট: