যেভাবে আপনার কম্পিউটারের হার্ডডিস্কের ডাটাগুলো সংগ্রহ করে রাখতে পারেন

Ways To Backup Data From Hard diskকম্পিউটারের হার্ডডিস্ক যে কোন কারণেই নষ্ট হয়ে যেতে পারে। আর হার্ডডিস্ক নষ্টের সাথে সাথে মুছে যেতে পারে সেখানে রক্ষিত মূল্যবান তথ্য। যারা অতি দরকারী তথ্যগুলো হার্ডডিস্কে (hard disk) রেখে নিশ্চিন্তে আছেন, তাঁদের জন্যেই এই লেখাটি। সময় হয়েছে আপনার মূল্যবান তথ্যগুলো বিকল্প স্থানে সংরক্ষণ করার। জেনে নিন কিভাবে তা করবেন (backup hard disk data)

১. যে তথ্যগুলোর ব্যাকআপ রাখবেন তা আলাদা করে নিন (arrange important data only):

প্রথমে সাজিয়ে নিন কোন কোন তথ্য বা ডাটা আপনি ব্যাকআপ (backup) রাখতে চান। অফিস বা ব্যবসায়িক দলিল, পড়াশোনা সংক্রান্ত ফাইল এবং ই-বুক, পারিবারিক ছবি এসব জিনিস সাধারণত একবার হারিয়ে গেলে পুনরায় খুঁজে বের করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। তাই ব্যাকআপ রাখার ক্ষেত্রে গুরুত্ব দিন এগুলোকে। মুভি, নাটক, গান এসব কিছুদিন পর পরই পরিবর্তন হতে থাকে, পরিবর্তন হয় আপনার রুচিরও। তাই এসব কষ্ট করে ব্যাকআপ নেয়ার আগে ভাবুন ঠিক কতটা প্রয়োজন আছে এর।

২. ব্যাকআপ রাখুন পেন-ড্রাইভে (use pen drive for backup):

যদি আপনার জরুরী ফাইলের সংখ্যা খুব বেশি বা বড় সাইজের না হয় তবে পেন ড্রাইভে (pendrive) ব্যাকআপ রাখুন। তবে লক্ষ্য রাখতে হবে সেই পেন ড্রাইভটি যেন অন্য কোন কাজে ব্যবহার করা না হয়। অনেকে অতিরিক্ত মেমোরি কার্ড ব্যাকআপ রাখার মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করেন। কিন্তু এই জিনিসগুলো খুব ক্ষুদ্র বিধায় সহজেই হারিয়ে যায় এবং নষ্ট হবার আশঙ্কা থাকে।

৩. এক্সটার্নাল হার্ডডিস্ক ব্যবহার করুন (use external hard disk):

যদি আপনার অনেক বেশি ডাটা ব্যাকআপের প্রয়োজন হয় তবে এক্সটার্নাল হার্ডডিস্ক (external hard disk) ব্যবহার করুন। প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার থেকে শুরু করে আপনার কম্পিউটারের যাবতীয় সবকিছুই এক্সটার্নাল হার্ডডিস্কে ব্যাকআপ রাখতে পারেন। প্রতি সপ্তাহে বা দুই সপ্তাহ পর পর এক্সটার্নাল হার্ডডিস্কে ব্যাকআপ নেয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

৪. অনলাইন স্টোরেজ সার্ভিসগুলো ব্যবহার করুন (use online storage services):

online storage

বিভিন্ন ওয়েবসাইট ফ্রি এবং অর্থের বিনিময়ে অনলাইন স্টোরেজ সার্ভিস দিচ্ছে। এর সুবিধা হচ্ছে আপনি যে কোন স্থান থেকে ইউজার নেইম এবং পাসোয়ার্ডের সাহায্যে খুব সহজেই আপনার তথ্যগুলো পেয়ে যাবেন। কষ্ট করে কোন এক্সটার্নাল হার্ডডিস্ক বা পেনড্রাইভ বহন করতে হবে না। ফ্রি অনলাইন স্টোরেজ সার্ভিস (free online storage service) এর মধ্যে ড্রপবক্স এবং গুগল ড্রাইভ খুবই জনপ্রিয়। গুগল আপনাকে বিনামুল্যে ১৫ গিগাবাইট অনলাইন স্টোরেজ সুবিধা দিবে। যার জন্য আপনার শুধু প্রয়োজন হবে একটি জিমেইল আইডির। অতিরিক্ত আরও জায়গা প্রয়োজন হলে কিনে নিতে পারবেন বা নতুন অন্য একটি জিমেইল আইডি খুললেই পেয়ে যাবেন আরও ১৫ গিগাবাইট স্টোরেজ স্পেস।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।