ত্বকের ক্যান্সার প্রতিরোধে কি করণীয়

skin cancer“ক্যান্সার” শব্দটি আমরা কোন না কোন ভাবে শুনে থাকি প্রতিনিয়ত । শরীরের বিভিন্ন অংশ ক্যান্সার (cancer) আক্রান্ত হতে পারে। রক্তে যেমন হয় তেমন ত্বকেও ক্যান্সার হতে পারে। কালো-ফর্সা-শ্যামলা কেউই এর বাইরে নয়। ত্বকের ক্যান্সার এর মাঝে একটি। যখন নানা অস্বাভাবিক পরিবর্তন হতে হতে শেষ স্তরে ত্বকের কোষ গুলো ধ্বংস হয়ে যায় চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় তখনই তাকে ত্বকের ক্যান্সার বলা হয়। প্রধানত এর জন্য সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মিকে দায়ী করা হয়। আবার বংশগত কারণেও হতে পারে।

সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির (Ultraviolet radiation) দুটি উপাদান রয়েছে। একটি হলো UVA যা লম্বা তরঙ্গ দৈর্ঘ্যের হওয়ায় ত্বকের গভীরে প্রবেশের ক্ষমতা রাখে এবং অন্যটি UVB যা ছোট তরঙ্গ দৈর্ঘ্যের হলেও কিন্তু শক্তিশালী। এটি ত্বকের বাইরের আবরণের ক্ষতি করে থাকে। এমনকি ত্বকের DNA নষ্ট করে দিতে পারে। এবার আমরা জেনে নিব ত্বকের ক্যান্সার প্রতিরোধে করণীয় কি কি ?

কিভাবে ত্বকের ক্যান্সারের ঝুঁকি মোকাবেলা করা যায় ( Skin Cancer Prevention Tips)

যেকোনো সমস্যার কারণের মাঝে প্রতিকার নিহিত থাকে। একটু সাবধানতা অবলম্বন করলে সেই সমস্যাটির ঝুঁকি কমানো সম্ভব। ত্বকের প্রতি সকলেরই একটু বেশি সচেতনতা থাকে। একটু যত্নবান হলে ত্বকের সুস্থতা ও সৌন্দর্য উভয় পাওয়া যায়।

১) রোদে খালি গায়ে চলাফেরা (avoid extreme sunlight)

সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি সকাল ১১ টা হতে বিকাল ৪টা মধ্যে অনেক শক্তিশালী থাকে। তাই এ সময় কোনভাবেই খালি গায়ে ঘরের বাইরে বের হওয়া উচিত নয়।

২) কাপড় পরার ক্ষেত্রে সর্তকতা (dress-up)

গরমে এমন কাপড় পরিধান করা উচিত যা ত্বককে সুরক্ষা দেয়। ফেব্রিক জাতীয় কাপড় পরিধান না করাই উত্তম। কেননা এর ভেতর দিয়ে সহজে সূর্যের আলো প্রবেশ করতে পারে।

৩) সান্সক্রিন ব্যবহার করা (use of sunscreen)

বাইরে যাওয়ার সময় অবশ্যই সান্সক্রিন লাগানো খুব জরুরী। এই কাজটি করতে হবে ১৫-৩০ মিনিট পূর্বে। কেনার সময় সান্সক্রিনের গায়ে SPF 15 এবং UVA/UVB লেভেল দেখা উচিত। প্রতি ২ঘন্টায় সান্সক্রিন লাগানো উচিত। বিশেষ করে মুখে,ঘাড়ে,হাতে।

৪) প্রসাধনী ব্যবহারে সাবধানতা (careful use of cosmetics)

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে নানা রকম প্রসাধনীর ব্যবহার হয়ে থাকে। এসবের ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে যেন তেন প্রসাধনী ব্যবহার করা উচিত নয়।বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রব্যের মিশ্রণ ত্বকের নানাভাবে ক্ষতি করে যা ক্যান্সারের সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে তোলে।

৫) শিশুদের ক্ষেত্রে সর্তকতা (precautions for children)

অসতর্কতার কারণে শিশুদের ত্বকের ক্ষতি হয় বেশি। ১ বছরের কম বয়সী শিশুকে সরাসরি সূর্যের আলো থেকে দূরে রাখা উচিত। বিশেষ করে চোখে ব্যাপারে বেশি সর্তক থাকতে হবে। সূর্যের বিকিরণ চোখের কোষের কাঠামোকে ধ্বংস করে দিতে পারে। ফলে চোখে ছানির সমস্যা দেখা যায়।

৫) এছাড়াও মনে রাখুন (extra tips)

ত্বকে কোন রকম চুলকানি, ফোড়া, আঁচিল ইত্যাদি দেখা গেলে সাথে সাথে ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া উচিত। এছাড়া সূর্যের তাপের তীব্রতা থেকে ত্বককে বাঁচাতে প্রয়োজনীয় জিনিস সাথে রাখা উচিত। যেমন- সানগ্লাস, টুপি, ছাতা ইত্যাদি।

তথ্যসূত্রঃ www.healthunit.org

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য/রূপচর্চা বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য বিষয়ক পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য/রূপচর্চা সংক্রান্ত যেকোন তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের/বিউটিশিয়ানের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।