কুরবানির জন্য যে জিনিসগুলো অবশ্যই আগে থেকে প্রস্তুত রাখবেন

ocielky-brusky-zwilling

পবিত্র ঈদ উল আযহা আসন্ন। অনেক প্রস্তুতির ব্যাপার, অনেক আয়োজন। তবে যে জিনিসগুলো না হলেই নয়, সেগুলোর প্রস্তুতির ব্যাপারে থাকছে কিছু পরামর্শ।

  • রেফ্রিজারেটরঃ আপনার সাধারণ কিংবা ডিপ ফ্রিজ দুটোই পর্যবেক্ষণ করে নিন ঠিক আছে কিনা।আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী কুরবানির গোশতের জন্য জায়গা করে রাখুন ফ্রিজে, যাতে গোশত বণ্টনের পরপরই আপনি সেগুলো অনায়াসে ফ্রিজে রাখতে পারেন।ফ্রিজের বৈদ্যুতিক লাইন অফ করে পুরো ফ্রিজটি ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করে নিন।
  • পলিথিনঃ কুরবানির গোশত ফ্রিজে রাখার জন্য ছোট, বড়, মাঝারি পলিব্যাগ বা পলিথিন সংগ্রহ করে রাখুন। এতে আপনার গোশত রাখতে সুবিধা হবে। ধরণ ভেদে কাবাবের গোশত, হাড়, মগজ, কলিজা, চর্বি ইত্যাদি আলাদা আলাদা পলিথিনে রাখতে পারবেন। পলিথিন এখন সর্বত্র সহজলভ্য নয় বলে আগে থেকেই সংগ্রহ করে রাখুন।
  • ধারালো সামগ্রীঃ কুরবানির জন্য দা, বটি, ছুরি, রামদা ইত্যাদি ধারালো জিনিসপত্র ধার দিয়ে প্রস্তুত করে রাখুন। কারণ এগুলো কুরবানির সময় প্রচুর ব্যবহৃত হয়। কামার বা ধার দেয়ার মেশিন পাওয়া না গেলে বিকল্পভাবে ধারালো জায়গায় বালু দিয়ে মেঝে কিংবা লোহার কোন অংশে ঘষে ধার নিয়ে নিন। মশলা পিষার জন্য পাটা প্রস্তুত রাখুন। গোশত ও হাড় টুকরো করার জন্য শিমুল বা শিলকড়ই গাছের গুড়ি সংগ্রহে রাখুন।
  • দড়ি ও চাটাইঃ কুরবানির পশু জবাইয়ের জন্য অতিরিক্ত দড়ির প্রয়োজন হতে পারে, সেজন্য বাজার থেকে আলাদা প্রয়োজনমত আর তাছাড়া গোশত কাঁটার পর রাখার জন্য বাজার থেকে পাটি বা চাটাই কিনে নিন।তার উপর পাতলা পলিথিন শিট বা পুরাতন পত্রিকা বিছিয়ে দিন, এতে গোশতে ময়লা লাগবেনা। গ্রামে অবশ্য অনেকেই কলা পাতা ব্যবহার করেন।কলা পাতা বিছানোর পূর্বে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

অন্যান্য যে বিষয়গুলো

  • অনেকেই কুরবানির পশু ক্রয় থেকে শুরু করে গোশত বণ্টন করা পর্যন্ত নিজেরাই সম্পাদন করে থাকেন। আবার অনেকেই কসাই এবং আলাদা লোক নিয়োগ করে থাকেন। আপনার কুরবানি পশু জবাই এবং অন্যান্য কাজের জন্য কসাই বা অন্য লোক না থাকলে আগেভাগেই ঠিক করে রাখুন। এতে আপনার ঝক্কি ঝামেলা কম পোহাতে হবে।
  • গোশত কাঁটার জন্য আটা বা ময়দা ব্যবহার করতে পারেন।
  • বিভিন্ন ধরনের মশলা সামগ্রি এবং নিত্য প্রয়োজনীয় বাজার দাম বাড়ার আগেই সেরে রাখতে পারেন। কেননা ঈদের সময় বাজারে সবকিছুর দাম বাড়তি থাকে এবং প্রায় ১ সপ্তাহ বাজার তেমন চলে না বললেই হয়।

আপনার প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র আগেভাগে গুছিয়ে রেখে আপনার ঈদকে করুন ঝামেলামুক্ত ও আনন্দপূর্ণ।

এ ধরণের আরও লেখা পড়ুনঃ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।