যে কারনে আপনার ডায়েট লিস্টে হলুদ অন্তর্ভুক্ত করবেন

termeric

হলুদ একটি অতি উপকারী খাদ্য উপাদানের নাম। হলুদের গুনের শেষ নেই, খাবার থেকে শুরু করে রূপচর্চা আর স্বাস্থ্য সুরক্ষায় হলুদ অতিপ্রয়োজনীয় একটি উপাদান। প্রতিদিনের ডায়েট লিস্টে হলুদ অন্তর্ভুক্ত করলে আমাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় একটি অতি মূল্যবান পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

যে কারনে আপনার ডায়েট লিস্টে হলুদ অন্তর্ভুক্ত করবেনঃ

  • হলুদ প্রাকৃতিক লিভার পরিষ্কারক।
  • হলুদ বাত ও বাতজনিত ব্যথার শক্তিশালী প্রাকৃতিক প্রতিষেধক।
  • হলুদ চর্বি কমিয়ে সুষ্ঠু ওজন ব্যবস্থাপনা করতে সাহায্য করে।
  • হলুদ ক্যান্সার, স্তন ক্যান্সার এবং শৈশবের বয়সের লিউকোমিয়া প্রতিরোধ করে।
  • হলুদ প্রাকৃতিক এন্টিসেপ্টিক ও এন্টিবাক্টেরিয়াল হিসেবে কাজ করে।
  • হলুদ শরীরের ক্ষত ও ক্ষতিগ্রস্থ চামড়া সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে।
  • হলুদ শরীরের কলেস্টোরোল এর মাত্রা সঠিক রাখে এবং ডায়াবেটিস প্রতিরোধে সাহায্য করে।
  • হলুদ প্রাকৃতিক রক্ত পরিষ্কারক, প্রতিদিন এক টেবিল চামচ হলুদের গুঁড়া গরম পানির সাথে খেলে রক্ত পরিষ্কার থাকে।
  • হলুদ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে।
  • ডায়েট লিস্টে হলুদ রাখলে নারীদের অনিয়মিত পিরিয়ডের সমস্যা কমে যায়।
  • চায়নায় হলুদকে ডিপ্রেশন এর প্রতিকারক হিসেবে ব্যবহার করা হয়।
  • হলুদ শরীরথেকেধাতুনিষ্কাশনসাহায্যকরে।

এতো সব প্রাকৃতিক ঔষুধি ক্ষমতা যার সেটি আমরা যদি আমাদের ডায়েট লিস্টে রাখি তাহলে এমনিতেই আমরা সুস্থ আর স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারবো। প্রতিদিন ২ টেবিল চামচ হলুদ আপনাকে সুস্থ থাকার নিশ্চয়তা দেবে।

সোর্সঃ http://healthandbeautyhq.wordpress.com/2013/08/20/health-benefits-of-turmeric/