যে ৫ টি উপায়ে আপনার বাচ্চার দাঁতের যত্ন নিবেন

Mother And Daughter Brushing Teethযদিও আপনার ছোট্ট সোনামণি তার প্রথম পাওয়া দাঁতগুলো ধরে রাখতে পারেনা, দাঁতগুলো একটি নির্দিষ্ট সময়ের পরে যায় তথাপি তার সেই ছোট্টবেলার কচি দাঁতগুলোর (baby teeth) উত্তম উপায়ে পরিষ্কার করা খুব দরকারি। কারণ পরবর্তীতে তার স্থায়ী দাঁতগুলোর যত্নের অভ্যাস সে ছোট বয়স থেকেই নেওয়া শিখবে। এছাড়া আপনার বাচ্চার সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে তার কচি দাঁতগুলো পরিষ্কার রাখা জরুরী। তাই আপনার বাচ্চার দাঁতের যত্নের সঠিক উপায় সম্পর্কে জেনে নেওয়া দরকার।

১) বাচ্চার কচি দাঁতগুলোতে টুথব্রাশ ব্যবহার করবেন না (do not use any toothpaste)

আপনার ছোট্ট বাচ্চার কচি দাঁতগুলোতে এখনই টুথপেস্ট ব্যাবহার করবেন না। বরং আপনার বাচ্চার মুখটা সাবধানে খুলে আপনার হাতের আঙুল দিয়ে হালকাভাবে দাঁত ও মাড়ি মৃদু ঘষে দিন। তবে খেয়াল রাখুন আঙুল যেনো মুখের বেশী ভেতরে চলে না যায় তাহলে বাচ্চা বমি করতে পারে।

২) বাচ্চার দাঁতের যত্নে ফ্লোরাইডমুক্ত টুথপেস্ট আনুন (get a toothpaste without fluoride)

যদিও ফ্লোরাইড (fluoride) দাঁতের জন্য খুব দরকারি একটি উপাদান কিন্তু আপনার ছোট্ট বাচ্চার জন্য পেস্টটি ফ্লোরাইড ছাড়াই কেনার চেষ্টা করুন। যতদিন না আপনার বাচ্চাটা ব্রাশ করার পর ঠিক মতো থুথু ফেলতে না শেখে ততদিন আর সবার জন্য সাধারণ পেস্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

৩) দিনে নিয়ম করে দুইবার বাচ্চার দাঁত ব্রাশ করান (brush your baby’s teeth twice a day)

প্রথমে আপনার বাচ্চার দাঁত সকালের শুরুতে একবার ব্রাশ করান আর আরেকবার সন্ধ্যার পর। সামান্য একটু পেস্ট নিয়ে সাবধানে দাঁতের উপর নীচে আর মুখের কোনাগুলোতে যত্ন নিয়ে পরিষ্কার করে দিন। আর যদি আপনি ফ্লোরাইড ফ্রি টুথপেস্ট ব্যাবহার করে থাকেন তাহলে বাচ্চা একটু আকটু থুথু (spit) গিলে ফেললে ভয় পাবেন না।

৪) বেশী মিষ্টি আর চকলেট খাওয়া থেকে বাচ্চাকে বিরত রাখুন (make sure your baby isn’t getting too many sweets and starches)

আপনার ছোট্ট বাবুটা যেন খুব বেশী চকলেট আর মিষ্টি না খায় সেদিকে নজর রাখুন। অনেক ছোটবেলা থেকে বেশী বেশী এই জাতীয় খাবার খেলে তার দাঁতে ক্যাভিটিস (cavities) শুরু হতে পারে। এমনকি বাজারে কিনতে পাওয়া যায় এমন যেকোন মিষ্টি পানীয় ও ফ্রুট জুসের সুগার দাঁতে ব্যাক্টেরিয়া (bacteria) সৃষ্টি করে।

৫) এক বছর বয়স থেকে তাকে নিয়মিত ডেন্টিস্টের কাছে নিয়ে যান (meet your dentist)

আপনার বাচ্চার প্রথম জন্মদিন থেকেই তাকে ডেন্টিস্টের কাছে নিয়ে যাওয়া শুরু করুন। কেননা এই বয়স থেকেই আপনার বাচ্চা নানা ধরণের দাঁতের সমস্যায় আক্রান্ত হতে থাকে। ডেন্টিস্টের কাছে নিয়ে যাওয়াতে বাচ্চার ওরাল সমস্যাগুলো শুরুতেই নিয়ন্ত্রণ করবে।
বাচ্চা যাতে প্রতিটি খাবার গ্রহণ করার পর পর্যাপ্ত পানি পান করে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। যখন থেকে আপনার বাচ্চা সলিড খাবার (solid food) খাওয়া শুরু করবে তখন থেকে তার জন্য একটি স্বাস্থ্যকর খাবার তালিকা প্রস্তুত করে ফেলুন যাতে করে তার দাঁতের স্বাভাবিক স্বাস্থ্য সুরক্ষিত থাকে।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।