সঠিক পোশাক ও খাবার নির্বাচন করে  গরমে মুক্ত থাকুন পানিশূন্যতা থেকে

sunbath 2

চলছে বৈশাখ মাসের তীব্র গরম। প্রচন্ড তাপে সবারই প্রাণ ওষ্ঠাগত। আর এ তীব্র গরমে মূল সমস্যা হচ্ছে শরীর থেকে ঘামের সাথে পানি ও অন্যান্য খণিজ লবণ বের হয়ে যাওয়া। এর ফলে শরীরে তৈরি হয় পানিশূন্যতা। চলুন জেনে নেয়া যাক, কিভাবে এ গরমে মুক্ত থাকবেন দেহে পানি শূন্যতার সমস্যা থেকে।

পোশাক ও আনুষাঙ্গিক নির্বাচন

যেহেতু এই গরমেও দিনের বেশ বড় একটা সময় জুড়ে আমাদেরকে বাইরে থাকতে হয়, তাই পোশাক নির্বাচন একটা বেশ গুরত্বপূর্ণ বিষয়। এরকম পোশাক পরা উচিত যেগুলো  সূর্যের উত্তাপ থেকে দেহকে রাখবে সুরক্ষিত। ফলে দেহ থেকে অতিরিক্ত পানি বেরিয়ে যেতে পারবে না।

(১) ঢিলেঢালা, পাতলা পোশাক পরুন। চেষ্টা করুন সাদা কিংবা হালকা রঙের পোশাক পরতে। কারণ রঙ্গিন পোশাক অধিক তাপ শোষণ করে, ফলে শরীর স্বাভাবিকভাবে শীতল হতে পারে না। আর এর ফলে শরীরে থাকা পানি বাষ্প আকারে বের হয়ে যেতে শুরু করে।

(২) চোখে ব্যবহার করুন সানগ্লাস। কারণ তীব্র গরমে সূর্যের আলোর ক্ষতিকর বেগুনি রশ্মি চোখের কর্ণিয়া ও জলীয় অংশের জন্য প্রচন্ড ক্ষতিকারক। এক্ষেত্রে সানগ্লাস দিতে পারে কার্যকর সুরক্ষা।

(৩) মাথায় ক্যাপ বা টুপি ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া ছাতা ব্যবহার করাও হতে পারে বেশ চমৎকার সমাধান। এর ফলে তীব্র গরমে হাঁটাহাঁটি করলেও আপনার শরীর খুব একটা ঘামাবে না। এছাড়া তীব্র গরমে মুখে বলিরেখা পড়ার যে ঝুঁকি থাকে সেটাও কমে যাবে।

(৪) গরমে ত্বকের সুরক্ষায় ব্যবহার করতে পারেন সানস্ক্রিণ। এছাড়া ঠোঁটের আর্দ্রতা  রক্ষায় লাগাতে পারেন লিপ-জেল।

খাবার

(১) প্রচুর পরিমাণে বিশুদ্ধ পানি পান করুন। কারণে তীব্র গরমে দেহ থেকে ঘামের সাথে প্রচুর পরিমাণ পানি বেরিয়ে যায়।

(২)  আমাদের দেশে গ্রীষ্মকাল মানেই বিভিন্ন সুস্বাদু ফলের মৌসুম। তাই চেষ্টা করুন ফল থেকে সরাসরি তৈরি করা জুস পান করতে। ফলে দেহে পানিশূন্যতা হবে না, থাকবে বিভিন্ন খণিজ ও পুষ্টি উপাদানের সরবরাহও।

(৩) খাবারের তালিকায় রাখুন ফলমূল ও শাক সবজি।

(৪) কম চর্বিযুক্ত মাংস খান।

(৫) ক্যাফেইন যুক্ত পানীয় যেমন- চা, কফি যথাসম্ভব পরিহার করুন। কারণ এসব পানীয় দেহে পানিশূন্যতা তৈরি করে।