অসাধারণ কিছু মানবিক চলচিত্র যেগুলো আপনাকে কাঁদতে বাধ্য করবে

Some Movies That Will Make You Cry

একটি সার্থক চলচিত্র আপনি কাকে বলবেন ? প্রযোজকের পকেটে কোটি কোটি ডলার এনে দিয়ে বক্স অফিস মাতানো ছবিকে ? নাকি যে ছবিটি আপনার হৃদয় ছুঁয়ে যাবে, আপনাকে নতুন করে ভাবতে শেখাবে, আপনার মনে একটুখানি বিষাদের জন্ম দেবে- তাকে ?
আজ আপনাদের আমি বিশ্বসেরা ৫টি চলচিত্রের কথা বলব যেগুলো বক্স অফিসে হয়ত খুব একটা নাম কামাতে পারেনি, কিন্তু বিশ্বব্যাপী মানুষের ভালবাসা জয় করেছে। এই মুভিগুলো আপনাকে কাঁদাবে, তবে ভেঙ্গে পড়তে দেবে না। প্রতিনিয়ত কঠিন সংগ্রামের পথে আপনাকে নিরলস অনুপ্রেরণা যোগাবে।

Departures (ডিপার্চারস)

মৃত্যুকে কেন্দ্র করে নির্মিত সবচেয়ে হৃদয় স্পর্শী মুভির নাম ডিপার্চারস। হঠাৎ করে চাকরি হারানো প্রতিভাবান যন্ত্র-বাদক দাইগোর টোকিও ছেড়ে পিতৃ ভিটায় আশ্রয় নেয়া, পেশা বদলে মৃত মানুষের শেষকৃত্যের আগে সাজ-সজ্জার নতুন পেশা গ্রহণকে কেন্দ্র করে মুভির ঘটনা এগিয়ে যেতে থাকে। শেষ দিকে এসে দাইগো খুঁজে পায় নিজের জন্মদাতা বাবাকে। বাবাকে নিয়ে তার অনেক অভিমান। ছোটবেলায় পিতাকে হারিয়ে ফেলা দাইগোর মনস্তত্ব এবং পিতা-সন্তানের ভালবাসার গভীরত্ব আপনাকে অশ্রুসিক্ত করে তুলবে। আবহ সংগীতের অভিনবত্ব আপনাকে মোহাবিষ্ট করে রাখবে পুরোটা সময় জুড়ে। নিজের অজান্তেই বুকের ভেতর জমা হবে চাপা কষ্ট। ২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া এই জাপানি ছবিটি একটি অস্কার জিতেছিল। ড্রামা জেনারের এই ছবিটির IMDb রেটিং ৮.১/১০।

Ballad of a Soldier (ব্যালাড অফ অ্যা সোলজার)

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের উপর নির্মিত এই রাশিয়ান মুভিটিকে ঠিক যুদ্ধের ছবি বলা যায় না। যুদ্ধের ছবিগুলোতে সাধারণত যেটা দেখা যায়- প্রচুর অ্যাকশন, এই ছবিটি ঠিক তেমন না। বরং ছবিতে দেখানো হয়েছে যুদ্ধের ভয়াবহতা, পারিবারিক আবেগ আর মায়ের প্রতি সন্তানের গভীর ভালবাসা। বিশেষ করে ১৯ বছরের তরুণ সৈনিক আলিয়োশা যখন টানা পাঁচ দিনের ক্লান্তিকর যাত্রা শেষে মায়ের বুকে কেবল একটি বার মাথা রাখার সুযোগ পায়, তখন অশ্রু ধরে রাখা কার সাধ্য ? IMDb তে ৮/১০ রেটিং পাওয়া ১৯৫৯ সালে নির্মিত এই ছবিটির রাশিয়ান নাম Ballade Du Soldat.

The Colour of Paradise ( দ্য কালার অফ প্যারাডাইস)

একটি বাচ্চা ছেলেকে ঘিরে এই ছবির গল্প। একটি বাচ্চা ছেলে, নাম মুহাম্মদ, যে কিনা চোখে দেখতে পায় না, সামারের ছুটিতে তার বাবার জন্য অপেক্ষা করতে থাকে, তার বাবা তাকে বাড়িতে নিতে আসার কথা, যেখানে তার জন্য তার দাদী আর ছোট বোন অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে আছে। এক সময় সে বুঝতে পারে পরিবারের কাছে সে একটা বোঝা। অভিমানে ঢুঁকরে কেঁদে উঠে সে, এই অভিমান নিয়েই পৃথিবী ছাড়ে। পার্সিয়ান এবং আজার্বাইজানি ভাষায় নির্মিত ২০০০ সালে মুক্তি পাওয়া এই ইরানি ছবিটি IMDb তে ৮.২/১০ রেটিং পেয়েছিল।

Innocent Voices (ইনোসেন্ট ভয়েসেস)

‘ইনোসেন্ট ভয়েসেস’ ড্রামা ঘরানার একটি যুদ্ধভিত্তিক মুভি। মধ্য আমেরিকান প্রজাতন্ত্র এল সালভাদরে গৃহযুদ্ধে শিশুরা যে নির্মমতা আর নৃশংসতার শিকার হয়েছিল, এই ছবিতে তাই দেখানো হয়েছে। ডিরেক্টর লুইস মান্ডকি এই মুভিটির মাধ্যমে যুদ্ধের ভয়াবহতা সম্পর্কে ক্ষমতালোভী শাসক গোষ্ঠীকে একটা বার্তা দিতে চেয়েছিলেন, বলা যায় এই ক্ষেত্রে তিনি শতভাগ সফল। ১১ বছর বয়সী শাভা চরিত্রে কার্লোস পাডিল্লার দূর্দান্ত অভিনয় আপনাকে নির্ঘাত কাঁদাবে। ২০০৪ সালে মুক্তি পাওয়া ১২০ মিনিট দৈর্ঘ্যের এই ম্যাক্সিকান ছবিটির INDb রেটিং ৮/১০।

Bicycle Thieves (বাইসাইকেল থিভস)

নাম দেখে এটিকে কোন সাই-ফাই ধর্মী মুভি মনে করলে আপনি মস্ত বড় একটা ধরা খাবেন। মুভিটিতে একজন চোরের গল্প বলা হয়েছে, যে আসলে ঠিক চোর নয়- একজন অসহায় পিতা। ট্রিপিক্যাল মধ্যবিত্ত পরিবারের চিরন্তন কাহিনী বলা হয়েছে- যেখানে অভাব বোধ, নৈতিকতা আর আত্মসম্মানবোধ সদা সংঘর্ষে লিপ্ত। দারিদ্রের কাছে অসহায় পিতা অ্যান্টোনিওকে চৌর্যবৃত্তির দায়ে অভিযুক্ত হতে দেখে ছোট্ট ছেলে ব্রুনোর নিষ্পাপ অশ্রুসজল মুখচ্ছবি আপনার কাঁদিয়ে ছাড়বে। ১৯৪৮ সালে নির্মিত ৯৩ মিনিটের এই ইটালিয়ান ছবিটি IMDb তে ৮.৪/১০ রেটিং পেয়েছিল।

A Moment To Remember (অ্যা মোমেন্ট টু রিমেম্বার)

রোমান্টিক মুভি নির্মাণে কোরিয়া বরাবরই বিশ্বসেরা। কোরিয়ান মুভির অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে- এই মুভিগুলো আপনাকে হাসাবে, আপনাকে কাঁদাবে, আপনাকে ভালবাসার সকল রঙ দেখাবে এবং সবশেষে মারাত্মক কোন টুইস্ট দিয়ে আপনাকে বাকরুদ্ধ করে দেবে। ‘অ্যা মোমেন্ট টু রিমেম্বার’ মুভিটিও তার ব্যতিক্রম নয়। যারা প্রেমে পড়েছিলেন, পড়বেন বলে ভাবছেন, কিংবা পড়ে হাবুডুবু খাচ্ছেন তারা এই ফিল্ম মিস করবেন না, করা উচিত হবে না। দেখতে দেখতে মনে হবে- আহ ! জীবন কত সুন্দর ! তবে শেষটা দেখে আপনি স্তব্ধ হয়ে যাবেন। যতই কঠিন হৃদয়ের অধিকারী হোন না কেন, এই মুভিটি আপনার চোখ অশ্রু সজল করতে বাধ্য। ২০০৪ সালে মুক্তি পাওয়া ১১৭ মিনিটের এই অসাধারণ ছবিটির IMDb রেটিং ৮.৩/১০।

আরো পড়ুন

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।