জীবনের কিছু গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা যা আমরা শিশুদের কাছ থেকে শিখতে পারি

children

শিশু সৃষ্টিকর্তার সর্বোচ্চ উপহার। তারা পরিষ্কার মন ও হৃদয় দিয়ে তৈরি। তারা অধিক আত্মবিশ্বাসী, অধিক উৎসাহী এবং প্রাপ্তবয়স্কদের থেকে জীবন অধিক উপভোগ করে।

এসব কিছুই আমরা প্রাপ্তবয়স্করা শিশুদের কাছ থেকে শিখতে পারি। তারা প্রাপ্তবয়স্কদের থেকেও অনেক কিছু ভালো করে যেমনঃ

১। প্রতিদিনই নতুন কিছু শুরু করেঃ শিশুরা তাদের দিন শুরু করে সতেজ মনোভাব নিয়ে। গতকাল তাদের সাথে কি হয়েছিল তা নিয়ে তারা বিরক্ত বা হতাশ বোধ করে না। প্রতিদিন তাদের জন্য একটা নতুন দিন।

আমরা প্রায়ই হতাশ হই গতকাল কি হয়েছিল এবং সেটা থেকে অনেক সময় বের হতে পারি না।

কিন্তু আমরা ভুলে যাই যে, নতুন দিন একটা নতুন সুযোগ, নতুন বন্ধু তৈরির, নতুন অভিযান ও অনুসন্ধান করার, নতুন কিছু শেখার।

শিশুরা একদিন থেকে অন্যদিনের অপ্রয়োজনীয় জিনিস বহন করে না। তারা সবসময় নতুন কিছু শুরু করে।


আরো পড়ুনশিশুকে পড়ানোর সময় একজন মায়ের যে বিষয়গুলো মনে রাখা উচিত


২। তারা সাহসীঃ একজন শিশু সীমাহীনতা অনুভব করে কারণ তারা অপমান বা ভয় দ্বারা সীমাবদ্ধ নয়। এমনকি তারা চিন্তা করে না অন্যরা তাদের সম্পর্কে কি বলবে।

এমনকি তারা শাস্তির চিন্তাও করে না। কিন্তু আমরা প্রায়ই সমালোচনার ভয়ে কোন কিছু করতে ইতস্তত বোধ করি।

৩। নতুন কিছু করার চেষ্টা করেঃ শিশুরা কখনোই চেষ্টা করতে ভয় পায় না যেটা তারা পূর্বে কখনো চেষ্টা করে নি। তারা সোফা থেকে লাফ দেয়া, পুকুরে ডুব দেয়া, এমনকি বাইরেও। কিন্তু আমরা নতুন কিছু করতে ভয় পাই।

আমরা প্রায়ই আরামদায়ক অবস্থানে থাকার চেষ্টা করি এবং কখনোই নতুন কিছু করার চেষ্টা করি না। কিন্তু আমাদের সবসময় মনে রাখা উচিত যে, দুঃসাহসিক অভিযান আমাদের প্রাণবন্ত করে এবং উৎসাহ জাগায়।


আরো পড়ুনশিশুদের সাথে কোন আচরণগুলো একেবারেই করবেন না


৪। সন্তুষ্ট হওয়া পর্যন্ত প্রশ্ন করাঃ তারা জিজ্ঞেস করে আমরা কিভাবে করি , কেন করি। তারা পুরনো প্রচেষ্টাকে প্রত্যাখ্যান করে এবং সর্বোচ্চ সমাধান খোঁজে।

এটা সবচেয়ে ভালো ব্যাপার যে এটা আমরা অবশ্যই শিশুদের কাছ থেকে শিখতে পারি।

৫। তারা ভাবমূর্তি (self-image)নিয়ে বিরক্ত হয় নাঃ শিশুরা সমাজে তাদের ভাবমূর্তি বা আত্ম-ছবি (self-image)নিয়ে পরোয়া করে না। তারা শুধু তাই করে যা তারা করতে চায়।

কিন্তু প্রাপ্তবয়স্করা কোন কিছু করার পূর্বে অধিক চিন্তা করে সমাজে তার ভাবমূর্তি সম্পর্কে। তারা ভাবমূর্তিকে সবকিছুর কেন্দ্রে রাখে। কিন্তু শিশুরা তা করে না।


সম্পর্কিত পোস্ট: