সাড়িয়ে তুলুন এক্সিমা প্রাকৃতিকভাবেই

Eczema

“এক্সিমা” বা “এটোপিক ডারমাটাইটিস” এটি ত্বকের একটি রোগ। ত্বকের যে অংশে এক্সিমা আক্রান্ত হয় সেখানে ত্বক লালচে বা বেশখানিকটা দানাদার ভাব হয়ে আসে।

এটি বাচ্চাদের বেশী হতে দেখা গেলেও বড়দেরও যে হয়না এমনটা নয়। বিশেষ করে শীতের সময়ে এক্সিমার প্রাদুর্ভাব একটু বেশী পরিমাণে লক্ষ্য করা যায়।

অনেক সময় এক্সিমা এতো বেশী পরিমাণে ত্বকের উপর প্রভাব ফেলে যে ত্বক শুকিয়ে যায়, ত্বক মাছের আশের মত হয়ে যায় ও মাঝে মাঝে চুল্কাতে পারে।

ছোট ছোট ফোস্কার মত হয়ে আক্রান্ত জায়গাটি ফেটে  সেখান থেকে পানি পড়তে পারে।


আরো পড়ুনশীতে আপনার শরীরকে দিন একটু বাড়তি যত্ন


এক্সিমা সারাতে অনেক ধরণের মলম বা ক্রিম বাজারে অহরহ কিনতে পাওয়া যায়, কিন্তু এসব চর্ম রোগ সারাতে মলম বা ক্রিমের থেকে ঘরোয়া বা প্রাকৃতিক উপাদানই ভালো কাজ করে।

আসুন দেখি এক্সিমা একদম প্রাকৃতিকভাবে সাড়িয়ে তুলতে যা করবেন:

*আপনার শরীরের এক্সিমা আক্রান্ত স্থানে অ্যালোভেরা কাণ্ড থেকে সরাসরি সামান্য জেল নিয়ে লাগিয়ে দিন। এই শীতল জেল আপনার আক্রান্ত স্থানের চুলকানি ও জ্বালাপোড়া কমিয়ে দ্রুত আরাম পেতে সাহায্য করবে।

শুধু তাই নয়, অ্যালোভেরা জেল ত্বকের কোন প্রকার ক্ষতিসাধন ছাড়াই এক্সিমা অতিযত্ন সহকারে সাড়িয়ে তুলবে।


আরো পড়ুনশীতের প্রস্তুতি সম্পর্কে পরামর্শ


*এক্সিমা সারাতে নারিকেল তেল খুব কার্যকরী। নারিকেল তেলের প্রাকৃতিক শীতলতা প্রদানকারী উপাদানসমূহ খুব দ্রুত এক্সিমা আক্রান্ত স্থানে একটি প্রতিরোধক স্তর তৈরি করে।

যা এক্সিমা ত্বকের চারপাশে ছড়াতে বাঁধা প্রদান করে ও মশ্চারাইজার সেল গঠন করে এক্সিমা দ্রুত সাড়িয়ে তোলে। তাই এক্সিমা দেখা দিলে ঘরোয়া প্রতিষেধক হিসেবে সবার আগে নারিকেল তেল ব্যবহার করুন।


আরো পড়ুনওজন কমাতে নারিকেল তেলের ৩ টি ব্যবহার


*আপনার শরীরে কোথাও যদি এক্সিমা দেখা দেয় তাহলে সবার আগে যা করবেন টা হল কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে আক্রান্ত জায়গাটা ধুতে থাকবেন।

ভালো হয় যদি আপনি গোসল করার সময়ও মৃদু গরম পানি ব্যবহার করেন।

যখনই এক্সিমা আক্রান্ত স্থানটি ধোবেন তখনই গরম পানির সাথে এক চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে নেবেন। দেখবেন দ্রুত আরোগ্য লাভ করতে পারবেন।

*এক্সিমা সারাতে আরও একটি প্রাকৃতিক উপাদান হচ্ছে মিষ্টি বাদাম তেল। মিষ্টি বাদাম তেলের ইনফ্লামেশন উপাদানসমূহ এক্সিমার প্রদাহ কমানোর সাথে সাথে এটি শরীরের অন্যত্র ছড়িয়ে পড়তে বাঁধা প্রদান করে।

তাই যদি ঘরোয়াভাবে এক্সিমা সারাতে চান তাহলে কিছু সময় পর পর মিষ্টি বাদাম তেল ব্যবহার করুন।


আরো পড়ুন- খেতে পারেন কাজুবাদাম


এক্সিমার জন্য দায়ী কিছু কারণগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে নোংরা পরিবেশ, অতিরিক্ত ধুলাবালি, পোষা প্রাণী অপরিচ্ছন্ন রাখা, দীর্ঘ সময় ধরে গোসল করা ইত্যাদি।

তাই এক্সিমার মতো চর্ম রোগ থেকে দূরে থাকতে যতোটা পারা যায় এসব থেকে দূরে থাকতে চেষ্টা করুন।


সোর্সঃ http://lethow.com/health/treat-eczema-naturally/


সম্পর্কিত পোস্ট: