নিজেকে অনুপ্রাণিত করতে যে ৩ টি অসাধারণ মুভি আপনাকে সাহায্য করবে

movie cover
মুভি দেখা বেশ সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। আমরা প্রায় সবাই সারাদিন অফিস, ক্লাস, ব্যবসা, ঘর গৃহস্থালি কাজ সামলে সপ্তাহের ১ বা ২দিন সময় পাই বিনোদনের। আর তখন কোন একটি মুভি দেখার মাঝপথে যদি মনে হয় এই মুভিটা ভাল লাগছে না, পুরো সময়টাই নষ্ট হল তাহলে মনটাই খারাপ হয়ে যায়। তাই আজ ৩টি মুভি দেখার পরামর্শ দিচ্ছি যা দেখতে বসলে আপনার সময় কোন দিকে চলে গেল তা টেরই পাবেন না বরং মনে হবে “ইস এত তাড়াতাড়ি শেষ হয়ে গেলো?”। এই মুভিগুলো দেখতে বলার পেছনে আরেকটা কারণ আছে, সেটা হল জীবনে চলার পথে কোন না কোন সময় এগুলো আপনাকে অনুপ্রাণিত করবে।

১. শিন্ডলার্স লিস্ট (Schindler’s List):

১৯৯৩ সালে নির্মিত এই মুভিটি সাদাকালো। কিন্তু প্রচন্ড আকর্ষণী ক্ষমতাধর এই ছবিটি আপনার প্রতিটি মুহূর্তকে আবেগময় করে তুলবে। এই মুভির মূল চরিত্র অস্কার শিন্ডলার একজন জার্মান ব্যবসায়ী। যিনি ২য় বিশ্বযুদ্ধের সময় চলাকালীন হলোকাস্ট বা ইহুদী নিধনের সময় প্রাণ বাঁচিয়েছিলেন ১,০০০ এরও বেশি ইহুদীর। সে সময় যে সব জার্মানই ইহুদিদের প্রতি মায়া দেখাচ্ছিলেন বা সাহায্যের চেষ্টা করছিলেন তাদের কঠোর শাস্তি দিচ্ছিলো হিটলার বাহিনী। এমন অবস্থায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে, হিটলার সেনাদের নানা কৌশলে ভুলিয়ে ন্যায়ের পথে থাকা এই ব্যক্তি আমাদের শেখাবে কিভাবে কোন সৎ ইচ্ছা বাস্তবায়ন করা যায়, মানুষকে ভালবেসে ঝুঁকি নেয়া যায়। এই মুভিটি সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত। অস্কার শিন্ডলার যে সব ব্যক্তিদের প্রাণ রক্ষা করেছিলেন তাদের বিবরণ আপনি পাবেই এই লিঙ্কেঃ Schindler Jews

Schindlers List

২. ফরেস্ট গাম্প (Forrest Gump):

টম হ্যাঙ্কস অভিনীত এই মুভিটি মুক্তি পায় ১৯৯৪ সালে। মুভিটি আপনাকে যেমন হাসাবে তেমনি অবাকও করে তুলবে। এখানে দেখানো হয়েছে, ফরেস্ট গাম্প নামের একটি বালক যার পায়ে সমস্যা ছিল, কথা বলতে আটকে যেত। এমনকি তার আই কিউ লেভেল এতই কম ছিল যে স্কুলের হেডমাস্টারও তাকে ভর্তি করাতে রাজি হন নি। এই অবস্থা থেকে নিজ প্রতিভায় সে পৌঁছে শিখরে। হাটতেই যার কষ্ট হতো পরে সে শ্রেষ্ঠ দৌড়বিদের তালিকায় স্থান পায়, যুদ্ধের সময় সঙ্গীদের প্রাণ বাঁচিয়ে পায় সম্মানজনক খেতাব এবং যুদ্ধ পরবর্তী সময় চিংড়ির ব্যবসা করে দরিদ্র ফরেস্ট হয়ে উঠে আমেরিকার অন্যতম ধনী। একই সাথে ছোটবেলার বান্ধবী জেনির প্রতি তার গভীর ভালবাসাও মুগ্ধ করবে আপনাকে।

Forrest Gump

৩. দ্যা গ্রীন মাইল (The Green Mile):

টম হ্যাঙ্কস অভিনীত আরেকটি মুভি যা মুক্তি পায় ১৯৯৯ সালে। এখানে দেখানো হয় জন কফি নামক এক ব্যক্তি গ্রেপ্তার হয় দুটি শিশু ধর্ষণ এবং হত্যার অভিযোগে যাকে মৃত্যুদন্ডাদেশ দেয়া হয়েছে। কিন্তু তার আচরণে এমন কিছু ছিল যা আগ্রহী করে তোলে জেলের ওয়ার্ডের টম হ্যাঙ্কসকে। এবং পরে বেরিয়ে আসে আসল সত্য। বেশ কিছু অলৌকিকতা তুলে ধরা হয়েছে এই মুভিতে যা আপনার হৃদয় ছুঁয়ে যাবে। আপনাকে বোঝাবে, যে আমাদের দৃষ্টিসীমার বাইরেও অনেক বিষয় রয়েছে, যা গোপন থাকে। আমাদের শুধু তা অনুভব করার ক্ষমতাটা অর্জন করতে হবে।

The Green mile

মুভি নিয়ে আমাদের আরও লেখা যা আপনার ভাল লাগবেঃ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।