যেভাবে আপনিও লিখে ফেলতে পারেন একটি চমৎকার ছোট গল্প

short storyছবি কৃতজ্ঞতা-আসিফ মেহদী
ফটোগ্রাফার-আদনান সৌমিক সুহান

‘শেষ হইয়াও হইলো না শেষ।’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কথার সাথে মিলিয়ে বলা যায়। ছোট গল্পের সংজ্ঞাটা এমনই হওয়া উচিৎ। কোন একটা ঘটনা বা সংলাপ দিয়ে শুরু হওয়া চমৎকার একটি গল্প, পাঠক কিছু বুঝে ওঠার আগে হঠাৎ করেই যেন শেষ হয়ে যাবে। আগেই বলে নেওয়া ভাল হাতে কলমে গল্প লেখা শেখানোর কোন উপায় নেই। যাদের লেখালেখির আগ্রহ আছে তাদের একটু সাহায্য করাই এ লেখাটির উদ্দেশ্য।

১) আইডিয়াকে লালন করুনঃ
মাথায় কোন একটা প্লট আসলেই সেটিকে লিখে ফেলতে বসে যাবেন না। প্লটটিকে মাথায় রেখে দিন। দেখবেন এটির ডালপালা গজিয়েছে। হয়তোবা আরো কোন চরিত্র এসে হাজির হয়েছে। প্লটটি পূর্ণতা পেলে তবেই লিখতে বসুন।

২) গল্পের শুরুতে চমক রাখুনঃ
ছোট গল্পের শুরুটা আকর্ষণীয় হওয়া দরকার। শুরুটা ভাল না হলে অনেক সময় পাঠক পুরোটুকু পড়তে আগ্রহ বোধ করে না। শুরুটা কোন একটি সংলাপ দিয়ে করা যায়। যেমনঃ
‘সাকিবের প্রস্তাবটা শুনেই মাথায় আগুন ধরে গেল।’
প্রথম লাইনটি পড়ে পাঠক স্বাভাবিকভাবেই জানতে আগ্রহ বোধ করবে সাকিবের প্রস্তাবটি কি ছিল?

৩) আশপাশ থেকে চরিত্র খুঁজে নিনঃ
গল্পের চরিত্র গুলো পাঠকের নিকট বাস্তব করে তোলার জন্যে আপনার আশপাশ থেকেই চরিত্রগুলো ধার করতে পারেন। আপনার এলাকার কোন ব্যক্তি কিভাবে হাঁটে, কিভাবে শব্দ করে চা খায় এসব আপনার গল্পে নিয়ে আসতে পারেন। এতে চরিত্রগুলো আপনার চোখের সামনে থাকবে আর লিখতেও সুবিধা হবে।

৪) গল্প অহেতুক দীর্ঘ করবেন নাঃ
ছোট গল্প ছোট হবে স্বাভাবিক। তবে অনেকে ছোট গল্প লিখতে গিয়েও কোন ঘটনা টেনে অহেতুক লম্বা করে ফেলে। মনে রাখতে হবে, অল্প কথায় কাজ হলে অধিক কথার কোন সার্থকতা নেই। তাই গল্পের আকার ছোট রাখুন।

৫) গল্পের শেষ কিভাবে হবে, ঠিক রাখুনঃ
অনেকে ভাবে লিখতে লিখতে একসময় শেষ করলেই হবে। এইভাবে করতে গিয়ে দেখা যায় শেষটা ভাল হয় না। আপনাকে শেষটা আগে থেকেই ভেবে রাখতে হবে। সবচেয়ে ভাল হয় শেষে একটা চমক রাখতে পারলে। গন্তব্যের শেষটা মাথায় রাখলে পথচলা সহজ হবে।

৬) লিখেই সম্পাদনা করবেন না
লিখেই গল্পটি সম্পাদনা করতে বসবেন না। গল্পটি লিখে রেখে দিন। পরদিন আবার নিয়ে বসুন। এইবার প্রথম থেকে পড়া শুরু করুন। তখন দেখবেন অনেক লাইন এবং সংলাপ সংযোজন বা বিয়োজন করতে হচ্ছে। লিখে সাথে সাথে সম্পাদনা করতে বসলে অনেক কিছু চোখে নাও পড়তে পারে।

৭) প্রচুর পড়তে হবেঃ
বিখ্যাত সব লেখক বলে গেছেন, “ভাল লিখতে হলে প্রচুর পড়তে হবে।” এটির কোন বিকল্প নেই। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, আখতারুজ্জামান ইলিয়াস, হুমায়ূন আহমেদ, মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, আনিসুল হক সহ অন্যান্য লেখকদের গল্পগুলো পড়ে ফেলুন। দেখবেন আপনার নিজেরই একটা গল্প লিখে ফেলতে ইচ্ছা করবে।

গল্প লিখেই ছাপানোর জন্য ব্যস্ত না হয়ে, আপনার বন্ধুদের পড়তে দিন অথবা ফেসবুকে শেয়ার করতে পারেন। সবার মন্তব্য গুলো দেখুন। প্রতিদিনই লিখতে চেষ্টা করুন। দেখবেন অসাধারন একটি ছোট গল্পের লেখক হয়ে গিয়েছেন আপনি।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।