নিজেকে আকর্ষনীয় করতে পোষাক নির্বাচনের ৭ টি বিশেষ পরামর্শ

drressবর্তমানে চারপাশে বইছে ফ্যাশনের হাওয়া। সবাই নিজের ফ্যাশন এবং পোশাক সম্পর্কে সচেতন। কিন্তু সব ফ্যাশনেই কি নিজেকে আকর্ষণীয় করে উপস্থাপন করা যায়? আছে মানানোর ব্যাপার। নিজের সাথে কোন পোশাক কিংবা কোন ফ্যাশনটা সহজেই মানিয়ে যাচ্ছে দৃষ্টি রাখতে হবে তার উপর। আসুন সাতটি ধাপে দেখি কিভাবে নিজেকে আকর্ষণীয় করে উপস্থাপন করা যায়।

১) থাকতে হবে পরিচ্ছন্ন

কলেজ, ভার্সিটি কিংবা অফিস। যেখানেই যান না কেন পরিধেয় পোশাকটি হতে হবে পরিষ্কার। মনে রাখতে হবে, অপরিষ্কার পোশাকে নিজেকে কখনোই আকর্ষণীয় করে উপাস্থাপন করা সম্ভব নয়।

২) হতে হবে পোশাক সচেতন

যে পোশাক পরে বন্ধুদের সাথে কনসার্টে যান, সে পোশাকে বাবা মার সাথে কোন অনুষ্ঠানে গেলে মানাবে? আবার ভার্সিটির পোশাক যদি কেউ অফিসে ব্যবহার করে? এক শব্দে হযবরল! সুতরাং খুব পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে কোথায় কোন পোশাক পরে যেতে হবে। কনসার্টে যেতে আপনি নিজের পছন্দের ব্যান্ডের কোন একটা দারুণ টি শার্ট পড়লেন, আবার বাবা মার সাথে কোথাও যেতে পড়লেন ফতুয়া, শার্ট বা পাঞ্জাবী। ভিন্ন গন্তব্য, ভিন্ন পোশাক। আকর্ষণীয় আপনি।

৩) ভালো মানের পোশাক কিনুন

এটা স্বাভাবিক যে তরুণদের বাজেট যেহেতু কম থাকে তারা একটু সস্তার দিকে ঝোঁকে। কিন্তু মনে রাখতে হবে সস্তায় তিন চারটি না কিনে, একটু টাকা জমিয়ে দামি ভাল ব্র্যান্ডের জিনিস কেনাই ভাল।

৪) শারীরিক গঠন অনুযায়ী পোশাক নির্বাচন করুন

কেমন আপনার স্বাস্থ্য? সেটাও থাকতে হবে মাথায়। একটু যাদের স্বাস্থ্য ভাল তাদের পোশাক, আর একটু রোগা ব্যক্তির পোশাক স্বাভাবিকভাবেই ভিন্ন হবে। নিজের ওজন, উচ্চতা, গায়ের রঙের সাথে মিলিয়ে কিনতে হবে পোশাক।

৫) ছড়িয়ে দিন নিজের ফ্যাশনের বার্তা

কিছু কিছু কাজ করে কিন্তু আপনি আপনার পছন্দের কথা মুখে না বলেও ছড়িয়ে দিতে পারেন চারিদিকে। হতে পারেন অনেকের চেয়ে আলাদা। আপনি যদি ক্লাসে, পার্টিতে সবসময় কালো ড্রেস পড়ে যান তাহলে স্বাভাবিকভাবেই সবাই বুঝে যাবে যে আপনার কালো রঙটা অনেক পছন্দের। অথবা কেউ যদি সবসময়ই চে গুয়েভারার টি শার্ট ব্যবহার করে সবাই বুঝবে, সে চে গুয়েভারার ফ্যান। ঠিক এভাবেই নিজের ফ্যাশনের বার্তা ছড়িয়ে দিতে পারেন সবদিকে।

৬) আগে আরাম পরে অন্য চিন্তা করুন

নিজেকে আকর্ষণীয় করতে নিজের অভিব্যক্তিও আকর্ষণীয় করা দরকার। যেটি সম্ভব আপনি আরাম অনুভব করলে। সুতরাং পরিধেয় বস্ত্র হতে হবে আরামদায়ক।

৭) নিজেই নিজেকে অনুসরণ করুন

স্বাভাবিক আমরা আমাদের পছন্দের অনুসরণ করি। তাদের দিকে সবসময় চোখ রাখি। তারা যা করে বা যেটি পড়ে আমরাও সেভাবেই চলতে চাই। কিন্তু ‘অমুক করিয়াছে বলেই আমিও করিয়াছি’ এই ধারণা সবসময় ঠিক নাও হতে পারে। সুতুরাং অন্যকে অন্ধের মত অনুসরণ না করে নিজেই কিছু গড়ে তুলুন। হয়ে উঠুন আকর্ষণীয় নিজের কাছে, সাথে অন্যেরও।

জীবন ঘনিষ্ঠ যে কোন পরামর্শ সংক্রান্ত নতুন প্রকাশনার নিয়মিত আপডেট আপনার ই-মেইলে  পেতে নিবন্ধন করুন-

শেয়ার করুন-