যেভাবে বাবা মায়ের সাথে সম্পর্ক করবেন সুন্দর

10410053_707443085968401_1314015741_nকানাডিয়ান শিক্ষাবিদ লরেন্স পিটার বলেছেন, “যখন আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনার বাবা ঠিক ছিল, ততদিনে আপনার ছেলে আপনার ভুল ধরা শুরু করেছে।”

ঠিক তাই। আমরা প্রায় ভাবি বাবা মা আমাদের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে। আমাদের মনমতো কিছু করতে দেয় না। বিভিন্ন কারণে তাদের সাথে সম্পর্ক জটিল হয়ে ওঠে, বাড়ে দূরত্ব। কিন্তু বাবা মার সাথে সম্পর্কটা সুন্দর হওয়া খুবই জরুরি। সহজেই কিভাবে বাবা-মার সাথে সম্পর্কটা সহজ সুন্দর করা যায়, আসুন জেনে নিই তা।

১) সবসময় তাদের সম্মান করুনঃ
বাবা-মাকে সম্মান করার অনেকগুলি কারণ রয়েছে। তবে খুব বেশি কারণ জানার দরকার নেই। তাদের সম্মান দেখানোর জন্যে একটি কারণই যথেষ্ট। তারা আপনার বাবা মা। এই একটা ব্যাপার মাথায় রেখে সবসময় তাদের সম্মান করে যান।

২) সর্বদা সৎ থাকুনঃ
বাবা মায়ের সাথে সর্বদা সৎ থাকুন। তাদের কখনোই মিথ্যা বলবেন না। কেননা একবার মিথ্যা বলে আপনি যদি ধরা পড়েন, তবে পরে তারা আপানাকে আর বিশ্বাস নাও করতে পারেন।

৩) তারা আপনার কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা বোঝানঃ
আপনার বাবা মা আর অন্য সবার থেকে আপনার কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা তাদের বোঝান। নিজের যে কোন কাজের আগে তাদের জন্য কাজ করুন।

৪) মন থেকে ধন্যবাদ দিনঃ
যদিও তারা ধন্যবাদ পাওয়ার জন্যে কিছু করে না। কিন্তু খেয়াল করে দেখুন আপনাকে ভালো রাখার জন্যে সারাটাদিন তারা কত কাজ করে যাচ্ছে। আপনার পছন্দের খাবারটা তৈরি করে দিচ্ছে, আপনার পরীক্ষার সময় রাত জেগে আপনাকে সঙ্গ দিচ্ছে, আপনার জামা কাপড় গুলো পরিষ্কার রাখছে। এজন্যে কখনো তাদের ধন্যবাদ দিয়েছেন? না দিয়ে থাকলে আজই গিয়ে মন থেকে ধন্যবাদ দিন আর তাদের হাসিমুখ উপভোগ করুন।

৫) পারিবারিক অনুষ্ঠান গুলোতে অংশগ্রহন করুনঃ

বাবা মায়ের সাথে পারিবারিক অনুষ্ঠান গুলোতে অংশগ্রহণ করুন। সবসময় তো বন্ধু বান্ধবের সাথে যে কোন অনুষ্ঠানে হাসিমুখে যান। বাবা মায়ের সাথেও ঠিক তেমনি হাসিমুখে বিভিন্ন পারিবারিক অনুষ্ঠানে যাওয়ার অভ্যাস করুন। এতে তাদের সাথে আপনার সম্পর্ক সুদৃঢ় হবে।

৬) মাঝেমধ্যেই বিশেষ কিছু করুনঃ

তাদের জন্মদিনে, বিবাহবার্ষিকীতে, মা দিবস কিংবা বাবা দিবসে তাদের শুভেচ্ছা জানান। তাদের পছন্দের জিনিস উপহার দিন, সাথে কিছু ফুল, তাদের জড়িয়ে ধরুন। এবার দেখুন তারা কত খুশি হয়েছে।

৭) বাবা মায়ের সাথে তর্ক করবেন নাঃ
এটা খুবই স্বাভাবিক যে আপনার সব মতের সাথে আপনার বাবা মায়ের মতের মিল নাও হতে পারে। তবে কখনোই তাদের সাথে তর্কে জড়াবেন না। এই ধরণের তর্কে বাবা মায়ের সাথে সন্তানের দূরত্ব বাড়ে, সৃষ্টি হয় মনোমালিন্যের। তাই তাদের যুক্তির মাধ্যমে আপনার মতামত উপস্থাপন করুন। তাদের যুক্তি মন দিয়ে শুনুন।

সবশেষে একটা কথা মনে রাখবেন, কোন বাবা মা’ই তার সন্তানের ক্ষতি চায় না। তারা আপনার জন্যে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটিতে নিশ্চয় আপনার মঙ্গল রয়েছে। এটা ভেবে তাদের সব কথা মেনে সামনে এগিয়ে যান। আপনি সফল হতে চলেছেন নিশ্চিত থাকুন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।