যেভাবে আপনি পেতে পারেন রেশমী ও নরম ত্বক

smooth-skin
ছবি কৃতজ্ঞতা- সাইয়ারা অদিতি

আপনার ত্বক কি শুষ্ক আর রুক্ষ প্রকৃতির? শিশুরা স্বাভাবিকভাবেই রেশমি আর নরম ত্বকের অধিকারী। কিন্তু বয়সের কারণে আমাদের ত্বক অনেকটা খসখসে রুক্ষ হয়ে পড়ে। একটু যত্ন নিলেই আপনার ত্বক রেশমি ও নরম থাকবে বা হয়ে উঠবে। আমরা চাইলে বাড়িতে বসেও আমাদের ত্বকের যত্ন নিতে পারি।

১) প্রতিদিন ময়শ্চারাইজিং লোশন ব্যবহার করুনঃ
শুষ্ক ত্বকের জন্য ময়শ্চারাইজিং লোশন একটি ভীষণ উপকারী জিনিস। আপনি গোসলের আগে একটি ভালো মানের ময়শ্চারাইজিং লোশন দিয়ে মুখের ত্বক ম্যাসাজ করতে পারেন। এতে আপনার ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকবে। আপনার ত্বক সুরক্ষিত, নরম আর রেশমি রাখার সবচেয়ে ভালো উপায় এটা।

২) একই ময়শ্চারাইজিং পণ্য ব্যবহার থেকে বিরত থাকুনঃ
প্রত্যেক ময়েশ্চারাইজার প্রত্যেক ব্যক্তির ত্বকের জন্য একইভাবে কাজ করবে এমনটা নয়। একেক জনের ত্বকের ধরন আলাদা আর তাই আপনার ত্বকের ধরণ বুঝে ময়েশ্চারাইজার বেছে নিন। যেমন নারকেল তেল সমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার মসৃণ ত্বকের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। তাই নিজে বেছে নিন আপনার ত্বকের উপযোগী ময়েশ্চারাইজার। এক্ষেত্রে বিউটিশিয়ানের পরামর্শ নিতে পারেন।

৩) সপ্তাহে একবার ফেসমাস্ক লাগানঃ
মাস্ক আপনার ত্বক মসৃণ ও কোমল করতে সহায়তা করবে। ফেসমাস্ক আপনি কিনতে পাবেন বা আপনি নিজেও তৈরি করতে পারেন। মধু ও লেবুর মিশ্রণে মাস্ক তৈরি করুন। দুই চা চামচ ময়দা, দুই চা চামচ মধু ও দুই চা চামচ লেবুর রস একটি বাটিতে মিশিয়ে মুখে এবং শরীরের শুষ্ক স্থানে লাগান, ৩০ মিনিট রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে ব্যবহার করলে আপনার ত্বক এমনিতেই নরম ও রেশমি হয়ে উঠবে।

৪) ড্রাই ব্রাশ ব্যবহার করুনঃ
ত্বকে প্রায়ই মৃত কোষ জমে যার ফলে ত্বক হয়ে উঠে রুক্ষ ও নিস্তেজ। মৃত কোষ জমার ফলে ত্বকের অভ্যন্তরে বায়ু চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ত্বকের এই রুক্ষভাব থেকে মুক্তি পেতে ড্রাই ব্রাশ ব্যবহার করুন। এই ড্রাই ব্রাশ আপনি যেকোনো পার্লার অথবা বিউটি শপ থেকে কিনতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন ব্রাশটি যেন অবশ্যই নরম প্রাকৃতিক তন্তুর হয়। এই পদ্ধতিতে আপনাকে আপনার ত্বকে পাঁচ মিনিট সময় ব্যয় করতে হবে।

আপনি আপনার ত্বকের পরিচর্যায় এই পদ্ধতিগুলো নিয়ম মেনে ও সাবধানতার সাথে অনুসরণ করুন। দেখবেন আপনার ত্বক হয়ে উঠবে নরম কোমল ও রেশমি।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।