প্রিয়জনের হারানো বিশ্বাস ফিরে পেতে পারেন যেভাবে

10409092_258988550952459_7649540343564724819_nহারানো বিশ্বাস হল একটি দ্বিমুখী রাস্তা। যদি এক রাস্তা দিয়ে আপনি এটা হারিয়ে ফেলেন অন্য রাস্তা দিয়ে ঠিক আবার পুনর্গঠন করতে পারবেন। বিভিন্ন কারণে আমরা খুব আপনজনের উপর বিশ্বাস হারিয়ে ফেলি, আবার নিজেরাই হয়তো বিশ্বাস ভেঙ্গে দিয়ে কষ্টের কারণ হই প্রিয়জনের। কিন্তু তবুও সমাধানের পথ খোলা থাকে। চলুন জেনে নিই কিভাবে প্রিয়জনের হারানো আস্থা ও বিশ্বাস ফিরে পাবেন।

১) আন্তরিকতার সাথে ক্ষমা চান
নিজের ভুলগুলো স্বীকার করে ক্ষমা চান। ক্ষমা চাইলে বা ভুল স্বীকার করলে কেউ ছোট হয়ে যাইনা। যার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছেন তার চোখের দিকে তাকিয়ে বলুন “আমি ভুল করেছি,আমাকে ক্ষমা কর”।
দেখবেন সে আপনাকে ঠিক ক্ষমা করে দেবে। তবে মিথ্যে ক্ষমা চাওয়ার অভিনয় কখনো করবেন না।

২) স্বচ্ছ থাকুনঃ
সত্য বলুন। একমাত্র সত্য বলেই আপনি নিজের কাছে যেমন স্বচ্ছ থাকবেন ঠিক তেমনি অপরের কাছেও নিজের স্বচ্ছতার প্রমাণ দিতে পারবেন। নিজেদের ভেতর যদি স্বচ্ছতা থেকে তাহলে খুব সহজেই বিশ্বাস নতুন করে জন্ম নেবে।

৩) সন্মান প্রদর্শন করুনঃ
তাকে তার প্রাপ্য সন্মান দিন। সন্মান হল ভালবাসার একটা অংশ। তার চিন্তা ভাবনা,তার ভালোলাগা খারাপ লাগা আর তার মূল্যবোধ ও প্রয়োজনকে সন্মান দেখান।তাকে সন্মান প্রদর্শনের মাধ্যমে বিশ্বাস অর্জন করতে পারবেন।

৪) নিজের ভুল স্বীকার করুন ও কৃতকর্মের দ্বায়িত্ব নিনঃ
আপনার সম্পর্ক জোরদার করতে নিজের ভুলগুলো স্বীকার করুন। যেহেতু ভুল আপনার তাই নিজের কৃতকর্মের দায়ভার নিজেই গ্রহণ করুন। এতে করে সে আপনার প্রতি মমতাবোধ করবে এবং আপনাকে বিশ্বাস করতে উৎসাহী হবে।

৫) মনে কোন ক্ষোভ থাকলে সেটা তাকে জানান
নিজের মনের জমে থাকা ক্ষোভ প্রকাশ করুন। তাকে নিয়ে যদি আপনার মনে কোন বিরক্তি বা সংশয় থাকে তা তাকে জানান। এতে করে ভবিষ্যতে বিশ্বাস ভাঙ্গার বা ভুল বোঝাবুঝির কোন অবকাশই থাকবেনা।

৬) মতামত প্রকাশের সুযোগ দিনঃ
আপনার প্রতি তার যত রাগ অভিমান ঘৃণা জন্মেছে তা তাকে প্রকাশ করতে দিন আর নিজে নীরব ভূমিকা পালন করুন। দেখবেন এক সময় সে ঠিক শান্ত হয়ে যাবে,এবার আপনি নিজের সাফাই গাইতে পারেন সে শুনবে।

৭) সময় নিনঃ
নিজেকে তার কাছে বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ করতে সময় নিন। মনে রাখবেন আপনি জীবনে বার বার সুযোগ পাবেন না নিজেকে প্রমাণ করার। তাই তড়িঘড়ি করবেন না বা নিজেকে আপনি প্রমাণ করতে পেরেছেন, এই সিদ্ধান্ত তার উপর চাপিয়ে দেবেন না।

যাকে আপনি কোন কারণে ঠকিয়েছেন তার সাথে আবার বিশ্বস্ততার সম্পর্ক গড়ুন।তাকে বুঝতে দিন সে আপনার কাছে কতোটা প্রিয় কতোটা দরকারি।তবে মনে রাখবেন আপনি বার বার বিশ্বাসঘাতকতা করবেন আর বার বার নিজেকে সংশোধনের দাবী জানাবেন এমনটা কখনোই হবেনা।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।