যেভাবে অসুস্থ মানসিকতার মানুষ চিনবেন

victim-mentalityআমাদের পৃথিবীটা নানা মানসিকতার মানুষ দিয়ে ঘেরা। আমাদের চারপাশে যেমন সৎ, নিষ্ঠাবান আর ভালো মানসিকতার মানুষ আছে ঠিক একইভাবে আমাদের আশেপাশেই রয়েছে অসুস্থ আর নীচ মনের মানুষ। এইসব অসুস্থ মানসিকতার মানুষ আপনার জীবনে পরজীবীর মতোই লেগে থাকে। এদের সাথে বন্ধু হিসেবে কিংবা যে কোন সম্পর্কে একবার জড়িয়ে পরলে আপনি না পারবেন সেখান থেকে বেরিয়ে আসতে আবার না পারবেন তাদের সাথে সুস্থ স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে।

তাই আগে থেকেই যদি এই মানসিকতার মানুষদের এড়িয়ে চলতে পারেন তাহলে ভবিষ্যতে আপনার ভোগান্তি অনেকটা কমে যাবে। আর এই ভোগান্তি কমাতে আপনার চাই একটু সচেতনতা, কারণ এদের সহজেই আলাদা করে চেনা যায়।

যেভাবে অসুস্থ মানসিকতার মানুষ সনাক্ত করবেনঃ

  • এই মানসিকতার মানুষের সাথে কিছুটা সময় কাটানোর পরই দেখবেন আপনি মানসিক আর শারীরিকভাবে ভীষণ ভেঙ্গে পরবেন। এরা আপনাকে এতোটায় প্রভাবিত করবে যে আপনি নিজের আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলবেন।
  • এই ধরণের মানুষের নিজের কোন ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা থাকেনা আর এরা আপনাকেও তাদের দলে টেনে আনতে উৎসাহিত করবে। এরা আপনার সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হবে।
  • প্রথম পরিচয়েই এরা আপনার এতবেশি প্রশংসা করবে যে আপনি নিজে থেকেই এদের আপনার জীবনে একটি ভালো বন্ধুর জায়গায় বসিয়ে দেবেন। কিন্তু পরে এই মানুষরাই আপনার মনের দুর্বলতার সুযোগ নেবে আপনাকে মোটিভেট করতে চাইবে।
  • এই প্রজাতির মানুষ শোনার থেকে বলতে বেশী আগ্রহী হবে। আপনার ভালো লাগা খারাপ লাগার তোয়াক্কা না করেই এরা নিজের গুণগান করে যাবে, নিজের কত কিছুতে প্রতিভা আছে সেগুলো জাহির করবে। আর হ্যাঁ আপনার দুর্বল দিকগুলো তুলে ধরতে কিন্তু একবারও ভুল করবেনা।
  • যেকোন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হতে এরা এতবেশি আগ্রহী যে আলোচনার মাঝখানে কিছু না বুঝেই নিজের প্রতিভা জাহির করতে শুরু করবে। নিজের শিক্ষাদীক্ষা আর নিজেকে যেকোন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হিসেবে তুলে ধরতে এদের জুড়ি নেই।
  • এরা নিজেদের অপ্রাপ্তি আর হতাশার কথা বলে আপনার সহানুভূতি পাবার চেষ্টা করবে, কেননা একজন সুস্থ মানসিকতার মানুষ কখনোই নিজের একান্ত কথাগুলো যাকে তাকে বলতে চাইবেনা। আর সবথেকে হয়রানির ব্যাপার হল এরা কেবল আপনাকেই নয় বরং একই ভাবে আরো দশজনকে নিজের হতাশার কথা শোনাবে।
  • নিজেকে সবসময় দুঃখী দুঃখী মনে করা অসুস্থ মানসিকতার মানুষ চেনার সবথেকে বড় উপসর্গ। এরা কোন কিছুতেই খুশি হয় না কখনো, আর তাই সে যদি আপনার বন্ধু বা কাছের কেউ হয় আপনাকে ও সে অসুখি করে তুলবে।
  • এদের ভালোবেসে কাছে নিলেই এরা আপনাকে নিজের নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাইবে। আপনাকে ভালোবাসার অজুহাত দিয়ে আপনার সমস্ত স্বাধীনতা হরণ করতে চাইবে। আর আপনি আপ্রাণ চেয়েও এই অবস্থার ভেতর থেকে বের হতে পারবেন না।

আপনার সঠিক করণীয় হবে অসুস্থ মানসিকতার মানুষ চেনার সাথে সাথে তাদের সাথে যোগাযোগটা কমিয়ে আনা। চলাফেরায় দূরত্ব বাড়িয়ে আনুন এতে করে আপনার জীবন যাপন অনেকখানি সহজ সরল আর সাবলীল হয়ে উঠবে।