একজন নারীর যে ৪ টি কারণে নিজেকে অসাধারণ ভাবতে শেখা দরকার

confident

একজন নারী একই সাথে মা, কন্যা, ভগিনী, স্ত্রী এবং প্রেমিকা। প্রতিনিয়ত নারীকে জড়াতে হয় কতশত সম্পর্কের আবর্তে। আর এইসব সম্পর্কগুলো  হয় ভালোবাসার, মমতার, স্নেহের, দায়িত্বের আর আদরের।

একই সাথে এতোগুলো সম্পর্ক সুন্দরভাবে পরিচালনা করার শক্তি কেবল একজন নারীই রাখে। একজন নারী এক কথাই অনন্যা।

কিন্তু এতো এতো ভালো গুণ নিজের মধ্যে ধারণ করেও নারীরা হীনমন্যতাই ভুগে থাকেন। নিজেদের চারপাশটাই ঘিরে রাখেন বিষণ্ণতা আর হতাশার শক্ত দেওয়ালে।

আজকের এই ফিচারটি সেইসব নারীদের জন্য যারা নিজেদের মধ্যে অসাধারণ গুণ নিয়েও হীনমন্যতাই ভোগেন।

আসুন দেখি কি কারণে আপনি নিজেকে অসাধারণ ভাবতে শিখবেন:

নিজের ক্ষমাশিলতার জন্য

একজন নারীর নিজেকে অসাধারণ ভাবতে নিজের ক্ষমাশিলতার গুণের কথাটা ভাবলেই আর কিচ্ছু লাগেনা। প্রতিটা নারী ক্ষমা করতে পারার অসাধারণ ক্ষমতা নিয়ে জন্মায়।

আর যুগে যুগে এই ক্ষমশিলতা নিয়ে হাজার হাজার কাব্য, গল্প, উপন্যাস রচনা হয়ে আসছে।

তাই বলবো আপনি যদি একজন নারী হিসেবে নিজেকে নিয়ে হীনমন্যতায় ভুগে থাকেন তাহলে একবার নিজের এই অসাধারণ গুণ নিয়ে একটু ভাবুন।

দেখবেন নিজেকে আর ছোট কিংবা ক্ষুদ্র মনে হচ্ছে না।

ভালোবাসা আর আত্মত্যাগের জন্য

নারীকে ভালোবাসার প্রতীক বলা হয়। সাথে আত্মত্যাগের মূর্তপ্রতীক হিসেবেও নারীর মূল্যায়ন করা হয় সবার আগে।

একইসাথে ভালোবাসা আর আত্মত্যাগ এই দুয়ের সংমিশ্রণ কেবল নারীই তার নিজের মধ্যে ধারণ করে।

যার মধ্যে এতো সুন্দর গুণের উপস্থিতি সে কেন নিজেকে অসাধারণ ভাববে না বলতে পারেন?

তাই বিষণ্ণতা আর হতাশা নিজের মধ্যে না পুষে রেখে নিজের এই অসাধারণ গুণের প্রকাশ ঘটান। দেখবেন নিজেকে আর কারও থেকে কোন অংশে কম মনে হচ্ছে।


আরো পড়ুনভালোবাসার মানুষটির সাথে সম্পর্ককে করে তুলুন প্রাণবন্ত


একাহাতে একাধিক কাজ করার ক্ষমতার জন্য

“মাল্টিটাস্কিং” এই শব্দটির সবচেয়ে মানানসই উদাহরণ হল একজন নারী।

একজন নারীই পারেন নিজে একা হাতে ঘর সংসার, বাচ্চাকাচ্চা সামলে আবার বাইরের পৃথিবীতে নিজের জন্য সক্রিয় একটি অবস্থান তৈরি করতে।

এক কথায় একজন নারী হচ্ছে সম্পূর্ণা।

তাই যখনই নিজেকে “ইউজলেস” কিংবা “গুড ফর নাথিং” এই ধরণের কিছু বলে মনে হয় তখন মনে মনে একবার নিজের এই অসাধারণ ক্ষমতা নিয়ে ভাবুন।

আমার মনে হয়না আপনার আর নিজেকে এসবের কিছু বলে মনে হবে।


আরো পড়ুননিজেকে আত্মবিশ্বাসী রাখতে চান? এড়িয়ে চলুন ৫ টি কাজ


মুহূর্তে নিজেকে যেকোন পরিবেশে মানিয়ে নিতে পারার জন্য

একমাত্র নারীই পারে নিজেকে যেকোন পরিবেশে মানিয়ে নিতে।

কথায় আছে “মেয়েরা পানির মতো, তাকে যখন যে পাত্রে রাখা যায় তখন সে সেই পাত্রের আকারই ধারণ করে।”

এটা কোন সাধারণ ব্যাপার নয়, বরং এটি একটা অসাধারণ ব্যাপার।

আর আপনি নিজে একজন অসাধারণ গুণের অধিকারী হিসেবে কেন শুধু শুধু নিজেকে সাধারণ ভাববেন বলুন তো?


আরো পড়ুনকর্মক্ষেত্রের চাপযুক্ত পরিবেশে নিজেকে যেভাবে মানিয়ে নিবেন


তাই আর দুঃখবিলাসিতা নয়, দুঃখ না বিলিয়ে আনন্দ বিলান। এতে আপনিও ভালো থাকবেন আর আপনার চারপাশের মানুষগুলোও ভালো থাকবে

নারী একইসাথে শক্তি আর সমৃদ্ধির প্রতীক। নারী পৃথিবীতে বিধাতা প্রদত্ত সুন্দর আর সৃষ্টিশীল সৃষ্টিগুলোর মধ্যে অন্যতম।

তাই নিজেকে ছোট আর সাধারণ ভেবে বিধাতার এই সুন্দর সৃষ্টির অবমাননা করবেন না।


সম্পর্কিত পোস্ট: