নিজের জন্য সুখের সাধনা করতে গিয়ে আমরা যেসব মারাত্মক ভুল করে ফেলি

for-happyness

নিজের ভালোটা কে না বোঝে! আমরা সবাই সব সময় নিজের সুখের জন্য কত কিছু করছি। নিজের সুখের সাধনা করতে গিয়ে আমরা ন্যায় অন্যায় বোধ অব্দি হারিয়ে বসি।

আর এভাবেই আমরা অনেক সময় জেনে বা না জেনে অনেক ভুল কাজ করে বসি। যেটা একজন সচেতন মানুষ হিসেবে করা মোটে ও উচিৎ নয়।

আসুন দেখি সুখ সাধনায় নিজেকে ডুবিয়ে আমরা কি কি ভুল কাজ করে ফেলিঃ

সুখের পথে কোন বাঁধা আসলে বা কোন বিপত্তি দেখা দিলে আমরা সেটা আমাদের ব্যর্থতা হিসেবে মূল্যায়ন করি।

এর কারন একটাই, সুখের জন্য আমরা এতোটাই মরিয়া হয়ে থাকি যে সামান্য বাঁধাও আমাদের কাছে পাহাড় সমান মনে হয়।

এটাই সব থেকে খারাপ প্রভাব পড়ে আমাদের মানসিক স্বাস্থ্যর উপর। তাই সুখের সাধনায় আসা বাঁধা বিপত্তিগুলোকে আমাদের ব্যর্থতা না ভেবে বরং পরীক্ষা হিসেবে দেখা দরকার।


আরো পড়ুনঅন্যকে সুখে রাখুন, নিজে সুখী হবেন


সুখ সাধনায় আমরা এতোটাই মগ্ন হয়ে পড়ি যে আমাদের সহ্য শক্তি সম্পূর্ণরূপে লোপ পায়। আমরা সহজলভ্য সুখে এতোটাই অভ্যস্ত হয়ে পড়ি যার ফলে বেশি সময় অতিবাহিত এমন কোন কাজের উপর আর ভরসা রাখতে পারিনা।

শটকাট রাস্তা আমাদের জন্য যেন সবথেকে প্রিয় বস্তু হয়ে যায়। কিন্তু এটা ভুললে চলবে না যে জীবন মানেই যুদ্ধ আর এই যুদ্ধের সময়টা বড় দীর্ঘ।

সুখের সাধনায় আমরা এতো বেশি আত্তমগ্ন হয়ে পড়ি যে আমরা আমাদের চারপাশের জগৎ উপেক্ষা করার সাথে সাথে আশেপাশের অসাধারণ মানুষগুলোকেও প্রায় ভুলতে বসি।

সুখের প্রতি লালসা আমাদের আত্মকেন্দ্রিক করে তোলে। সত্যি তো এটাই যে একা কেউ কখনো সুখী গতে পারেনা।

তাই আশেপাশের মানুষগুলোকে অগ্রাহ্য না করে বরং সবাই কে নিয়ে সুখী হওয়ার চেষ্টা করুন। একমাত্র এতেই আপনি সুখের আসল স্বাদ পাবেন।

সল্প সময়ের সুখের আশায় অনেক সময় আমরা আমাদের জীবনের দীর্ঘমেয়াদী সুখের সুযোগ গুলো হেলায় হারিয়ে দেয়।

একবারও কি ভেবে দেখেছেন সামান্য কিছুক্ষণ সুখের জন্য সারাজীবনের সুখ ত্যাগ করা কতোটা মুর্খামি? মনে রাখবেন যা খুব সহজে বা দ্রুত পাওয়া যায় তা আবার খুব দ্রুত হারিয়েও যায়।


আরো পড়ুনঅন্যের সুখই নিজের সুখ


সুখের জন্য লালায়িত মানুষ এতোটাই অবোধ হয়ে যায় যে তারা স্থান কাল পাত্র ভুলে যত্রতত্র সুখ খুজে বেড়ায়। সুখের সাধনায় মগ্ন হয়ে এরা নিজেদের নীচে নামাতেও পিছপা হয় না।

কিন্তু নিজেকে ছোট করে পাওয়া সুখ কি কখনও সুখ দিতে পারে? কখনই না, তাই সাবধান হন। সুখের জন্য নিজের আত্মসম্মান বোধ ভুলে যাবেন না।

আত্মপ্রশান্তি লাভের আশায় আমরা আমাদের নীতি নৈতিকতা পর্যন্ত বলি দিয়ে দেই। নীতি বিবর্জিত মানুষ কি কখনো সুখী হতে পারে?

সে কি কখনো তার সুখের প্রাচুর্য কারও সামনে মাথা উচু করে তুলে ধরতে পারবে? অবশ্যই না, তাহলে কি লাভ এমন সুখের সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করে যেখানে নিজের কোন সম্মান ই থাকে না।


আরো পড়ুননিজের যে নেতিবাচক চিন্তাগুলো আপনাকেই করে তুলছে অসুখী


সুখী হতে বেশি কিছু লাগেনা। যে নিজেকে সুখী ভাবতে পার সেই সত্যিকারের সুখী মানুষ। তাই অযথা সুখের সাধনা করে নিজেকে অন্যর চোখে নীচে নামিয়ে ফেলবেন না।

সুখের পেছনে না ছুটে সুখকে নিজের মধ্যে অনুভব করতে শিখুন, দেখবেন সুখ আপনার ভিতরেই আছে।


সোর্সঃ  http://www.critain.com/2014/10/7-crazy-mistakes-we-make-in-pursuit-of.html


সম্পর্কিত পোস্ট: