আপনার ছোট্ট সোনামণির হোমওয়ার্কে সাহায্য করতে মেনে চলুন ৩ টি পরামর্শ

homework

প্রতিদিন আপনার ছোট্ট সোনামণি স্কুল থেকে ফিরে স্কুলের ব্যাগটা ধপাস করে টেবিলে রেখেই ক্লান্ত হয়ে হয়তো শুয়ে পড়ে নয়তো বা রিমোট হাতে নিয়ে টিভি দেখতে বসে যায়।

আর এরপর যখন আপনি তাকে “হোমওয়ার্ক আছে” এই কথাটা বলেন তখন দেখা যায় সে রেগে যাবে কিংবা মুখ ফুলিয়ে থাকবে।

কিন্তু আপনাকে আপনার বাচ্চার সমস্ত বায়না বা অভিমান সবটা দেখেও তাকে হোমওয়ার্ক করাতে বসাতেই হয়।

আপনি চাইলে কিন্তু আপনার ছোট্ট সোনামণির হোমওয়ার্ক এর সময়টুকু তাকে আনন্দের সাথে কাটাতে সাহায্য করতে পারেন।

শুধু আপনাকে একটু বুদ্ধি খাটাতে হবে আর অনুসরণ করতে হবে এমন কিছু কার্যকরী পরামর্শ যা সত্যি কাজে দেয়।


আরো পড়ুনযে ৫টি কাজ করে হাসিখুশি রাখতে পারেন আপনার বাচ্চাকে


আসুন এই ফিচারে আপনাদের জানাবো কি করে আপনি আপনার ছোট্ট সোনামণির হোমওয়ার্ক এ সাহায্য করতে পারেন।

হোমওয়ার্ক করার পরিবেশ তৈরি করুন

আপনার ছোট্ট সোনামণিকে হোমওয়ার্ক করাতে বসানোর আগে নিশ্চিত করুন সে যেন আরাম করে পড়তে পারে।

পড়তে বসলে যদি চারপাশে অনবরত শব্দ হয় কিংবা লোকজনের যাতায়াত হতে থাকে তাহলে বাচ্চার মনোযোগ নষ্ট হতে বাধ্য।

সবার আগে খেয়াল রাখুন বাচ্চার পড়ার টেবিল যেন জানালার পাশে না হয় আর টিভির রুম থেকে বেশখানিকটা দূরে হয়।

পড়তে বসে বার বার জানালা দিয়ে বাইরে তাকালে বা পাশের ঘর থেকে টিভির শব্দ কানে গেলে আপনার বাচ্চার পড়তে সমস্যা হবে।


আরো পড়ুনযেভাবে আপনার ছোট্ট সোনামণির জন্য একটি সুন্দর পড়ার ঘর সাজাবেন


হোমওয়ার্ক করার জন্য চাপ প্রয়োগ করবেন না

জোর করে আপনার বাচ্চাকে হোমওয়ার্ক করাতে বসালে কখনোই সে মনোযোগ দিয়ে পড়তে পারবে না। তাই আপনার করণীয় হবে বাচ্চাকে পড়তে বসার আগ্রহ তৈরি করে তারপর হোমওয়ার্ক করাতে বসানো।

এরফলে আপনার ছোট্ট সোনামণিটি সামান্য সময় ও পড়তে বসে তাতেও ভালো। কারণ সেই সময়টুকুই সে আনন্দ আর আগ্রহ নিয়ে পড়বে সাথে মনেও রাখবে।

হোমওয়ার্ক করতে অনুপ্রাণিত করুন

আপনার ছোট্ট সোনামণিকে হোমওয়ার্ক করতে অনুপ্রাণিত করাটা আপনার সবচেয়ে বড় দায়িত্ব। আপনার বাচ্চার ছোট ছোট কাজের পরিবর্তে তাকে একটু উৎসাহ দিন।

যেমন কোন প্রশ্নের সঠিক উত্তরের বদলে তাকে বাহবা দিন অথবা ছোট খাটো পুরস্কার দিন।

দেখবেন হোমওয়ার্ক করতে আপনার বাচ্চা আর ভয় পাচ্ছে না বরং উল্টো আনন্দ নিয়ে প্রতিদিনের হোমওয়ার্ক ঠিকভাবে শেষ করছে।


আরো পড়ুননিজেকে ভালোবাসুন ও অনুপ্রাণিত করুন


আপনার বাচ্চা আগামীর দীর্ঘ পড়াশোনার জগতে সবে মাত্র পদার্পণ করছে। তাই এই সময় তার শিক্ষা জীবনের ভিত্তি মজবুত করতে আপনাকেই সঠিক দিক নির্দেশনা দিতে হবে।


সম্পর্কিত পোস্ট: