সফল হবে এমন ফেসবুক ফ্যান পেইজ তৈরি করবেন যেভাবে

fb pageপ্রতিদিনই হাজার হাজার ফেসবুক পেইজ (facebook page) তৈরি হচ্ছে। এত পেইজের ভিড়ে আপনার ব্যবসায়িক বা বিনোদনের উদ্দেশ্যে তৈরি পেইজটি কিভাবে সফল করবেন তার কৌশলগুলো নিয়েই এই লেখাটি। চলুন জেনে নিই ঠিক কিভাবে একটি ফেসবুক পেইজ তৈরি করলে (create a facebook page) তা সফলতার মুখ দেখবে।

১. পেইজ তৈরি করুন আপনার আসল ফেসবুক আইডি থেকে (do not use dummy account):

আমাদের অনেকেরই একাধিক ফেসবুক আইডি (facebook id) আছে। আর পেইজ তৈরি করার জন্য অনেকেই নিজের আসল আইডি বাদ দিয়ে সাহায্য নেন এসব বিকল্প আইডির। ফেসবুকের নীতিমালায় এধরণের বিকল্প বা ফেইক আইডি তৈরির নিষেধাজ্ঞা স্পষ্ট ভাষায় দেয়া আছে। ফেইক আইডি (fake id) থেকে তৈরি পেইজ ডিলিট হয়ে যাবে যখন ফেসবুক আপনার সেই ফেইক আইডিটি নিষিদ্ধ করে দিবে। তাই যে কোন পেইজ তৈরি করুন আপনার মূল আইডি থেকে।

২. নির্বাচন করুন সঠিক প্রোফাইল এবং কভার ফটো (pick the right profile and cover photo):

পেইজের প্রোফাইল (profile pic) এবং কভার ফটো (cover photo) নির্বাচনে খুব গুরুত্ব দিন, কারণ যে কোন মানুষই পেইজে লাইক দেয়ার আগে এই দুটি জিনিস দেখে থাকেন। ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে তৈরি পেইজের প্রোফাইল ফটো হিসেবে নির্বাচন করতে পারেন আপনার ব্যবসায়ের লোগো, প্রতিষ্ঠানের ছবি। কভার ফটোতে দিতে পারেন এমন কোন ব্যানার যা আপনার ব্যবসায়ের পরিচিতি তুলে ধরবে। এবং এই দুই ছবির সাথে যুক্ত করে দিন আপনার ওয়েব সাইট বা ব্লগের লিঙ্কটিও।

৩. প্রোফাইল এবং কভার ফটোতে সামঞ্জস্য রাখুন (consistency between profile and cover photo):

কম্পিউটার থেকে এলোমেলোভাবে যে কোন ছবি নির্বাচন না করে প্রোফাইল এবং কভার ফটো নির্বাচনে সৃজনশীলতার পরিচয় দিন। প্রোফাইল ফটোকে কভার ফটোর অংশ হিসেবে তৈরি করতে পারেন। অথবা কভার ফটোতে তীর চিহ্ন দিয়ে লাইক বাটন নির্দেশ করতে পারেন। এধরণের ছবি অনেক বেশি মানুষকে আকৃষ্ট করতে সক্ষম। creative_cover_photo_example

৪. About সেকশনটি পূরণ করুন সঠিকভাবে (fill about section with basic information):

এই অংশটি থাকে পেইজের প্রোফাইল ফটোর (profile pic) ঠিক নিচে। আপনার পেইজ এবং এর উদ্দেশ্য সম্পর্কে তাৎক্ষণিক ধারণা যাতে সহজেই যে কেউ পেতে পারেন এমন ভাবে এই অংশটি পূরণ করুন। সংক্ষিপ্ত আকারে আপনার কোম্পানি, ব্লগ বা ওয়েবসাইট বা যে উদ্দেশ্যে আপনার পেইজটি তৈরি তা লিখুন।

৫. পোস্ট করার সময় নির্ধারণ করে নিন আগেই (figure out the timing of posts):

পেইজ খুলে পোস্ট দেয়া শুরু করলেই তা হিট হয় না বরং এর জন্য অনেক বিষয় বিবেচনা করতে হয়। আপনি দৈনিক কয়টি পোস্ট করবেন, সকালে,বিকালে নাকি রাতে পোস্ট করলে তা অনেক বেশি মানুষের চোখে পড়বে এসব নিয়ে আগেই পরিকল্পনা করে নিন। এই লেখাটি আপনাকে সঠিক সময়ে পোস্ট করার ব্যাপারে সাহায্য করবেঃ জেনে নিন ফেসবুক পেইজ থেকে পোস্ট করার সঠিক সময়।

৬. পোস্টের বিষয় হিসেবে ছবিকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিন (give priority to post picture):

একটি উজ্জ্বল ছবি অনেক বেশি মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম। তাই অন্য যে কোন বিষয়ের চেয়ে পোস্টের জন্য (facebook post) ছবিকে গুরুত্ব দিন। ছবির সাথে বিভিন্ন লেখা, লিংক যুক্ত করে দিন, ফলে তা অনেক বেশি মানুষের চোখে পড়বে এবং তারা এতে আগ্রহী হবেন। তবে মাঝে মাঝে ছবি ছাড়াও স্ট্যাটাস, ভিডিও এবং লিঙ্ক শেয়ার (share) করুন। অনবরত ছবি শেয়ার করতে থাকলে , তা যত জনপ্রিয়ই হোক, একসময় গ্রহণযোগ্যতা হারাবে এবং টাইমলাইন থেকে হারিয়ে যাবে।

৭. পেইজ প্রমোট করুন (promote page to get more followers):

ফলোয়ার বাড়ানোর প্রধান উপায় হচ্ছে পেইজ প্রমোট করা। ফেসবুক বিজ্ঞাপনের (facebook ads) মাধ্যমে এবং অন্যান্য পেইজের সাহায্য নিয়ে পেইজ প্রমোট করা যায়। এছাড়াও আপনার ব্লগ বা ওয়েব সাইটে, বিজনেস কার্ডে যুক্ত করে দিন পেইজের লিঙ্ক। এতে আপনার ব্যবসায়ের সাথে সম্পৃক্ত এবং আগ্রহী অনেককেই পেইজের ফলোয়ার (page fan) হিসেবে পেয়ে যাবেন।

একটি পেইজের সফলতা অনেকটাই নির্ভর করে তা কতজন ফলোয়ার অর্জন করতে পারলো তার উপর। কিভাবে ফলোয়ার বাড়াতে হয় এবং পেইজকে সফল করা যায় তা আপনাকে বিস্তারিত জানাবে নিচের লেখাগুলোঃ

১. যেভাবে বাড়াবেন ফেসবুক পেইজে ফ্যানদের অংশগ্রহণ
২. বিজ্ঞাপন ছাড়াই ফেসবুক রিচ বাড়ানোর পদ্ধতি
৩. ফেসবুকের মাধ্যমে ক্রেতা আকর্ষণঃ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য ৪টি পরামর্শ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।