যে ৫ টি কারণে লিচু বেশি করে খাবেন

lichiফলের রাজা হিসেবে আমরা আম বুঝলেও চীনে কিন্তু রাজা পরিবর্তন হয়েছে। তারা ফলের রাজা হিসেবে এগিয়ে রাখে লিচুকে। চীনের বিভিন্ন সংস্কৃতিতে লিচুর প্রচুর ব্যবহার এর একটি কারণ হলেও, লিচুর অসাধারণ সব গুণ জানলে এটিকে ফলের রাজা হিসেবে মানতে আপনার কোন সমস্যা হওয়ার কথা নয়। তবে আসুন চীনের ফলের রাজার কিছু অজানা গুণ সম্পর্কে জেনে আসি।

১) ওজন কমাতেঃ
লিচুতে প্রচুর ফাইবার এবং ভিটামিন বি কমপ্লেক্স থাকে। যা মেটাবলিজম বা বিপাক ক্রিয়া বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। মেটাবলিজম শক্তি কম হলেই মানুষের দেহে চর্বি বেড়ে যায়। লিচু এই মেটাবলিজম বৃদ্ধিতে দারুণ ভূমিকা পালন করে। ফলে শরীরে অতিরিক্ত ওজন হ্রাসে সাহায্য করে।

২)রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করেঃ
লিচু ভিটামিন ‘সি’ এর একটি অসাধারণ উৎস। প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ সাথে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকার কারণে লিচু বেশ কিছু রোগ প্রতিরোধ করে। যেমনঃ সর্দির সমস্যা, ফ্লু, কাশি। এছাড়াও বিভিন্ন সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে লিচু কার্যকরী একটি ফল।

৩) বুড়িয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করেঃ
সময়ের সাথে মানুষ বৃদ্ধ হয় স্বাভাবিক। কিন্তু বর্তমানে দূষণ, কালো ধোঁয়া, ভেজাল খাদ্য সহ আরো নানা কারণে মানুষ খুব দ্রুত বুড়িয়ে যাচ্ছে। মুখে বয়সের ছাপ আসার যে প্রধান কারণ তা আমাদের শরীরে উৎপন্ন হওয়া ফ্রি রেডিকেল। এই ফ্রি রেডিকেল রোধ করতে সবচেয়ে কর্মক্ষম হচ্ছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। একটি গবেষণায় দেখা গেছে, যারা প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ফল খায় তাদের চেহারায় বয়সের ছাপ কম পড়ে। লিচুর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকায় এটি ত্বককে বুড়িয়ে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে।

৪) হৃদরোগ থেকে রক্ষা করেঃ
The Journal of Nutrition এর মতে, লিচুতে প্রায় ১৫% polypheols আছে যা এটিকে polyphenols সমৃদ্ধ ফলের মধ্যে দ্বিতীয় আসনে রেখেছে। অন্যান্য যে সব ফল পরীক্ষা করা হয়েছে তার মধ্যে লিচু হৃদযন্ত্র ভাল রাখতে অন্যান্য ফলের চেয়ে বেশি উপকারী। লিচু শরীরের খারাপ ধরণের কোলেস্টেরল (LDL) কমায় এবং ভাল কোলেস্টেরল (HDL) এর মাত্রা বাড়ায়। ফলে এতে হৃৎপিণ্ডের রক্তসঞ্চালন প্রক্রিয়া ঠিক থাকে এবং হার্ট এটাক, স্ট্রোক ও হাইপার টেনশনের ঝুঁকি কমে। আগ্রহী পাঠকদের জন্যে বলে রাখা ভাল, polypheols থাকা ফলের মধ্যে ১ম স্থান অধিকার করেছে আঙুর।

৫) কোষ্ঠকাঠিন্য রোধ করেঃ
লিচুতে প্রচুর দ্রবণীয় ফাইবার থাকার কারণে অন্ত্রের বিভিন্ন সমস্যা রোধ করে। এছাড়া লিচু পাকস্থলি এবং কোলন পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। ফলে এটি কোষ্ঠকাঠিন্য রোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। দীর্ঘদিন ধরে কোষ্ঠকাঠিন্যের রোগে যারা ভুগছেন তাদের জন্যে লিচু যে খুব উপকারী হবে এতে সন্দেহের কোন অবকাশ নেই।

এই ছোট রসালো মিষ্টি ফলটি খেতে যেমন মজা, তেমনি কত গুণে ভরা তা তো জানলেনই। তাই আর দেরি না করে আজই আপনার খাওয়ার টেবিলে লিচু রাখুন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।