একজন ডিভোর্সি বাবা মা হিসেবে যে ৩ টি মারাত্মক ভুল কাজ করা থেকে বিরত থাকবেন

divorced-parent

বিবাহ বিচ্ছেদ বা ডিভোর্স বর্তমান সময়ের একটি যেন খুব সাধারণ ঘটনাতে পরিণত হয়েছে। একটু খেয়াল করলেই দেখা যাবে যে খুব সামান্য বিষয়েই আজকাল মানুষ ডিভোর্সের মতো গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়ে নেই।

স্বামী স্ত্রীর মধ্যে বনিবনা না হলে ডিভোর্স হতেই পারে তবে সেক্ষেত্রেও একটু ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নেওয়া জরুরী।

আর ডিভোর্সের মতো ব্যাপারটি আরও বেশী ভয়ানক হয়ে দাড়ায় যখন স্বামী স্ত্রীর মাঝে সন্তান ও ডিভোর্সের রোষানলে পড়ে।

আপনার ডিভোর্সের প্রভাব আপনার সন্তানের জীবনে সবচেয়ে বেশী পড়ে। তাই আপনি যদি ডিভোর্স নিতেও চান বা নিয়েও থাকেন কিছু কিছু ব্যাপার আপনাকে খুব সতর্কতার সাথে পরিচালনা করতে হবে।

আসুন এই ফিচারের মাধ্যমে জেনে নেই একজন ডিভোর্সি বাবা মা হিসেবে যে মারাত্মক ভুল কাজ গুলো করা থেকে বিরত থাকবেন।

সন্তানকে বার্তাবাহকে রূপান্তরিত করবেন না

ডিভোর্সের ব্যাপারে বেশীরভাগ বাবা মা যে ভুল কাজটি সন্তানের দ্বারা করে থাকেন তা হল সন্তানকে মিডিয়া হিসেবে ব্যবহার করা।

যদি সত্যি আপনার প্রাক্তন স্বামী বা স্ত্রীর সাথে কোন দরকার বা কথোপকথনের প্রয়োজন দেখা দেয় তাহলে নিজে কথা বলুন।

আর এখন নিজের কথা আপনি চাইলে আপনার প্রাক্তন সঙ্গীর সামনে না যেয়েও বলতে পারেন।

আপনার সন্তানকে মেসেঞ্জার হিসেবে ব্যবহার করার ফলে একটা সময় সে নিজেকে নিয়ে সংশয় অনুভব করবে। সে ভাবতে বাধ্য হবে আপনাদের মাঝে তার আলাদা করে কোন মূল্যায়ন নেই।


আরো পড়ুন– ডিভোর্সের পর সন্তানের উপর খারাপ প্রভাব থেকে রক্ষা করার জন্য অবশ্যই করণীয়


জোর করে সন্তানকে পাওয়ার চেষ্টা

ডিভোর্সের পর সন্তানের দেখাশোনার ভার বাবা মায়ের মধ্যে যেকোন একজন পেয়ে থাকেন এটাই স্বাভাবিক।

কিন্তু সন্তানের দায়ভার নেওয়ার জন্য দুপক্ষই যে যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়ে থাকেন তার সবচেয়ে বেশী নেতিবাচক প্রভাব পড়ে আপনার আদরের সন্তানটির উপর।

সন্তানের দেখাশোনার দায়িত্ব যেই পেয়ে থাকুন সেটা মেনে নিন।

শুধু শুধু সন্তানের উপর নিজের অধিকার ফলাতে গিয়ে তার উপর চাপ সৃষ্টি করবেন না। আপনাদের দুজনের এই অধিকার ফলানোর ফল সারাজীবন আপনার সন্তানকে বহন করতে হবে।

সম্পূর্ণ ব্যাপারটা এড়িয়ে যাওয়া

কোন কিছু নিয়ে বেশী আলোচনা বা সমালোচনা সেই ব্যাপারটিকে জটিল আর কঠিন করে তোলে একইভাবে কোন ঘটে যাওয়া বিষয় সম্পূর্ণভাবে অগ্রাহ্য করে থাকলেও জটিলটা বাড়ে।

ডিভোর্সের পর আপনার সন্তান স্বভাবতই একটা খুব বাজে সময়ের আর পরিবেশের মধ্য দিয়ে যেতে থাকবে তাই আপনি যদি এই সময়ে নির্বিকার থাকেন তাহলে এটি তার উপর খুব খারাপ প্রভাব ফেলবে।


আরো পড়ুন– বিবাহিত জীবনে এড়িয়ে চলুন সম্পর্কে ভাঙ্গন সৃষ্টিকারী মারাত্মক কিছু ভুল


আপনি বরং তাকে সময় দিন তাকে পুরো ব্যাপারটা বুঝিয়ে বলুন। এতে অন্তত তার মনে কেন তার বাবা মা আলাদা এই নিয়ে আক্ষেপ থাকবে না।

একজন বাবা মা হিসেবে সন্তানের সকল ভালো মন্দ দেখাশোনার দায় আপনাকেই নিতে হবে।

ডিভোর্স হওয়া মানেই নিজের দায়িত্ব থেকে মুক্তি পেয়ে গেলেন এমনটা ভাবার কোন জায়গা নেই। বরং ডিভোর্সের পর সন্তানের প্রতি দায়িত্ব আর দেখাশোনা করার তাগিদ আরও বেড়ে যায়।


সম্পর্কিত পোস্ট: