রমজানে যে ৫ টি কাজ আপনার শরীর সুস্থ ও হালকা রাখবে

ramadanবছরের অন্যান্য সময়ের চেয়ে রমজান বেশ কিছুটা আলাদা। রমজানে খাওয়াদাওয়া, ঘুমানো, জেগে উঠা সকল চক্রের মধ্যেই আসে পরিবর্তন। এই পরিবর্তন রক্ষা করতে গিয়ে অনেকে অস্বস্তি বোধ করে, সম্ভাবনা থাকে অসুস্থ হয়ে পড়ার। সেই সম্ভাবনাকে দূরে ঠেলতে দরকার পাঁচটি নিয়ম। আসুন জেনে নিই কোন পাঁচটি কাজ রমজানে আপনাকে সুস্থ ও হালকা রাখবে।

১) পূর্ণ মনোযোগের সাথে ইবাদত করুনঃ

অনিচ্ছার সাথে, তাড়াহুড়ো করে না করে সময় নিয়ে ধীরে ধীরে মনোযোগের সাথে ইবাদত করুন। মনোযোগের সাথে করা ইবাদত আপনার মনে শান্তির সুবাতাস ছড়িয়ে দিবে যার প্রভাব পড়বে আপনার দেহে ও কাজেকর্মে।

২) পরিমিত আহার করুনঃ

রোজা রাখার অন্যতম উদ্দেশ্য হচ্ছে, গরীব দুঃখীদের কষ্ট অনুভব করা। কিন্তু সারাদিন রোজা রেখে ইফতারে ভরপেট খেলে এই উদ্দেশ্য ভরপেট ওজনের নিচে চাপা পড়ে যায়। সাথে শরীর ভারী হয়ে অস্বস্তি অনুভব হয়। ইফতারে এবং সেহেরিতে সর্বোপরি রমজানে পরিমিত পরিমাণে স্বাস্থ্যসম্মত আহার করতে হবে।

৩) অযথা কাজ,কথাবার্তা থেকে বেঁচে থাকুনঃ

মনে রাখতে হবে রোজা মানে শুধুমাত্র আহারে সংযত থাকতে হবে তা না। অযথা কথাবার্তা, অন্যের গীবত করা এসব থেকেও বেঁচে থাকা প্রয়োজন । আর অনেকেই বিনা কারণে মার্কেটে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাফেরা করে। এইসব করলে শরীর দুর্বল হয়, মন বিক্ষিপ্ত হয়ে পড়ে। তাই এইসব অযথা কাজ থেকে বেঁচে থাকতে হবে।

৪) অতিরিক্ত ঘুম নয়ঃ

পেট খালি থাকার কারণে মাঝে মাঝে যে দুর্বলতা অনুভূত হয়, অনেকে মনে করে অধিক সময় ধরে ঘুমালে তা কমে আসবে। এই ধারণা ঠিক নয়। খালি পেটে অনেকক্ষণ ঘুমালে শরীরে অলসতা বেড়ে যায়। তাই অতিরিক্ত ঘুমানো উচিৎ নয়।

৫) সেহেরির পর হাঁটাচলা করুনঃ

সেহেরি খাওয়ার সাথে সাথে না ঘুমিয়ে বাসায়, আপনার বারান্দায় বা বাড়ির সামনে হালকা হাঁটাচলা করুন। এতে আপনার শরীর হালকা থাকবে। পুরুষরা ফজরের নামাজ পড়তে মসজিদে যেতে পারেন। ভোরের ঠাণ্ডা বাতাস গায়ে লাগিয়ে দেখুন একবার। সারাদিন মন ফুরফুরে থাকবে শরীর থাকবে হালকা।

রমজান মাস জুড়ে এই নিয়মগুলো অনুসরণ করেই দেখুন। আপনার শরীর ও মন থাকবে সুস্থ ও হালকা এবং মেজাজ থাকবে ফুরফুরে।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।