আমাদের অতি পরিচিত পেঁয়াজের ৫ টি অসাধারণ স্বাস্থ্য উপকারিতা

onion

পেঁয়াজ কাটতে বা বাটতে গিয়ে চোখের পানি আর নাকের পানি মিলেমিশে একাকার হলেও পেঁয়াজ ছাড়া আমরা আমাদের একটি দিনও ভাবতে পারিনা।

আর যদি রান্নার কথা বলি তাহলে পেঁয়াজের চাহিদা সবার আগে দেখা দেয়।

টবে পেঁয়াজ যে শুধু আপনার রান্নার স্বাদ বাড়িয়ে তোলে তাই নয় বরং পেঁয়াজের উপস্থিত গুনাগুন আমাদের দেহের নানবিধ রোগের ও স্বাস্থ্য রক্ষার অন্যতম উপাদান।

একটি বড় পেঁয়াজে ৮৬.৮ শতাংশ পানি, ১.২ শতাংশ প্রোটিন, ১১.৬ শতাংশ শর্করা জাতীয় পদার্থ, ০.১৮ শতাংশ ক্যালসিয়াম, ০.০৪ শতাংশ ফসফরাস ও ০.৭ শতাংশ লোহা থাকে। এছাড়া পেঁয়াজে ভিটামিন এ, বি ও সি আছে।

পেঁয়াজের স্বাস্থ্য উপকারিতা(Health Benefits of Onions)

হৃদপিণ্ডের সুরক্ষা(Protect heart)

পেঁয়াজ রক্তকে জমাট বাঁধতে দেয় না এবং রক্তের কোলেস্টেরল কমায়। তাই পেঁয়াজ হৃৎপিণ্ডের জন্য অত্যন্ত উপকারী। অনেক কার্ডিওলোজিস্টই নিয়মিত পেঁয়াজ খেতে বলে দেন রোগীদেরকে।

বিশেষ করে হার্ভাডের ডাক্তার ভিক্টর গুড়েউইচ তার রোগীদেরকে প্রতিদিন অন্তত একটি করে পেঁয়াজ খাওয়ার উপদেশ দেন।

ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়(Reduces the risk of cancer)

পেঁয়াজের অনেকগুলো স্বাস্থ্য উপকারিতার মধ্যে অন্যতম একটি হল আমাদের শরীরে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমানো।

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে পেঁয়াজের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট কোষের ডিএনএ কে ক্ষতির থেকে বাঁচিয়ে ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

পেঁয়াজের রস বিষাক্ত নয় এবং এর কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। তাই যত খুশি তত খেলেও কোনো সমস্যা নেই।


আরো পড়ুন– ক্যান্সারের ঝুঁকি কমানোর জন্য ৭ টি কার্যকরী কিন্তু সহজ পরামর্শ


শারীরিক সক্ষমতা বাড়ায়(Enhances physical fitness)

যারা শারীরিকভাবে অক্ষম তারা যদি নিয়মিত করে প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস করে পেঁয়াজের জুস খায় তাহলে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়ায় শারীরিক সক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

যারা পেঁয়াজের রস খেতে পছন্দ করেন না তাঁরা খাবারের সাথে কাঁচা পেঁয়াজ খেলেও উপকার পাবেন।

রক্তে সুগারের মাত্রা কমায়(Reduce Blood Sugar Levels)

পেঁয়াজে বিদ্যমান ক্রোমিয়াম আমাদের দেহে রক্তে সুগারের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখে। যারা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত তারা যদি নিয়মিত পেঁয়াজের জুস পান করে তাহলে অনেকটাই রক্তে সুগারের মাত্রা কমে গিয়ে থাকে।


আরো পড়ুনডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি


ঠান্ডা এবং ফ্লু এর প্রতিকার(Remedy for Cold and Flu)

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কাশি, ব্রঙ্কাইটিস, কনজেশন, এবং শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ জনিত ফ্লুর উপশম করতে সাহায্য করার ক্ষমতার জন্য পেঁয়াজকে সর্বোত্তম প্রতিকারক হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

এছাড়া সাধারণ ঠাণ্ডা ও কাশির জন্য আমরা ঘরোয়া প্রতিকারক হিসেবে পেঁয়াজের প্রয়োগ করতে পারি।


আরো পড়ুনশীতে আপনার শরীরকে দিন একটু বাড়তি যত্ন


উপরের এতো গুলো গুণ ছাড়া ও আপনার শরীরে জন্ডিসের আক্রমণ কমাতে পেঁয়াজ খুব উপকারি প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করবে।

একটি পেঁয়াজের এক-চতুর্থাংশ সারা রাত লেবুর রসে ভিজিয়ে রেখে সকাল বেলা খেলে জন্ডিসে উপকার পাওয়া যাবে।


সোর্সঃ http://www.healthonlinezine.info/15-health-benefits-of-onions.html


সম্পর্কিত পোস্ট: