একজন সচেতন অভিভাবক হিসেবে সন্তানের যে ৪ টি বিষয়ে কঠোর নজর রাখবেন

4-Things-Parents-Should-be-Strict-About

একজন সন্তানের সুন্দর জীবন যাপনের নিশ্চয়তা বিধান করতে বাবা মাকে অনেক বিষয়ে সচেতন নজর রাখতে হয়। সন্তানকে মানুষ করতে গেলে যেমন আদর আর ভালোবাসার প্রয়োজন আছে একইভাবে কিছু কিছু ব্যাপারে কঠিন আর কঠোর হওয়ার প্রয়োজনীয়তাও আছে।

কেবল আদর আর ভালোবাসা আপনার সন্তানের জন্য বিপদের কারণ হয়ে দেখা দিতে পারে। তাই নিজেকে একজন সচেতন বাবা মা হিসেবে প্রমাণ করতে চাইলে সন্তানের কিছু ব্যাপারে আপনাকে কঠিন নজরদারি রাখতেই হবে।

এই ফিচারে এমন ৪ টি বিষয় সম্পর্কে লিখছি যার প্রতি একজন সচেতন বাবা মা হিসেবে আপনাকে অবশ্যই কঠোর হতে হবে।

১. ভদ্রতা শিক্ষাঃ

ভদ্রতা এমন একটা জিনিস যা জীবনের প্রতি পদে পদে আপনার সন্তানের প্রয়োজন পড়বে। একজন সচেতন পিতামাতা হিসেবে সবার আগে আপনার সন্তানকে ভদ্রতা বা সভ্যতার শিক্ষা দিতে হবে। হ্যাঁ হয়তো আপনার সন্তান এটা আয়ত্ত করতে সময় নেবে কিন্তু হাল ছাড়লে চলবে না। আপনি যদি হাল ছেড়ে দেন তাহলে আগামীতে সন্তানের অভদ্রতা বা অসভ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠলে তার সমস্ত দায় আপনারদের কাঁধে এসেই বর্তাবে। তাই শুরু থেকে সন্তানের ভদ্রতা শিক্ষার ব্যাপারে কঠিন নজর রাখুন।

২. দায়িত্ববোধের শিক্ষাঃ

মনে রাখবেন আপনার সন্তান যদি ছোট থেকে দায়িত্ববান হওয়ার শিক্ষা লাভ না করে তাহলে বড় হয়ে দায়িত্বশীল হয়ে ওঠার কোন সম্ভাবনা তার নেই। একজন দায়িত্বশীল বাবা মা হিসেবে আপনার করণীয় হবে ছোট থেকেই অল্প অল্প করে দায়িত্ববোধের শিক্ষা দান করা। এ ক্ষেত্রে আপনি আপনার সন্তানের উপর মাঝে মধ্যে সামান্য কিছু দায়িত্ব সম্পন্ন কাজ অর্পণ করতে পারেন। এতে করে সে আস্তে আস্তে দায়িত্ববোধ সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করবে।

৩. উদারতার শিক্ষাঃ

আপনি যদি আপনার সন্তানকে উদারতার শিক্ষা দানে সক্ষম না হন না তাহলে এর ফলাফল স্বরূপ ভবিষ্যতে আপনার সন্তান স্বার্থপর, নির্দয় ও মনুষ্যত্বহীন মানুষে পরিণত হতে বাধ্য। এই উদারতা শিক্ষার ব্যাপারে আপনাকে খুব কঠোর হতে হবে। আপনি খুব সহজে পারিবারিক পরিমণ্ডলে আপনার সন্তানকে উদারতার শিক্ষা দান করতে পারেন। যার শুরুটা নিজের ভাই বোনদের সাথে পারস্পারিক আচার আচরণের মাধ্যমে শিখানো সম্ভব।

৪. ক্ষমাশীলতার শিক্ষাঃ

আমরা সবাই জানি একজন মানুষ হিসেবে ক্ষমা করতে শিখাটা কতোটা জরুরী। আপনি আপনার সন্তানের সুষ্ঠু জীবন যাপনের নিশ্চয়তা বিধানের লক্ষ্যে সবার আগে তাকে ক্ষমাশীল হতে শিক্ষা দিন। আপনার সন্তানের কচি মনে ক্ষমাশীলতার ভালো দিকগুলো যাতে দাগ কাটতে সক্ষম হয় তার জন্য তাকে বিভিন্ন গল্প কাহিনী শোনাতে পারেন। আপনার সন্তান যদি এসব শিক্ষা গ্রহণে অপারগ হয় আপনাকে কিন্তু কঠোরভাবে সবটা সামাল দিতে হবে। আপনি কখনই এই দায়িত্ববোধ থেকে নিজেকে এড়িয়ে নিয়ে যেতে পারেন না।

বাবা মাকে সন্তানের সুস্বাস্থ্য, মানসিক সুস্বাস্থ্য, চারিত্রিক পরিশীলতা ও শিক্ষা এই সব দিকে নজর রাখতে হয়। যখন শুধু ভালোবাসা বা মায়া মমতা দিয়ে কাজ না হয় তখন পরিস্থিতির খাতিরে আপনাকে একটু কঠোর হতেই হবে। তা না হলে পরবর্তী জীবনে আপার সন্তানের পরাজয় বা গ্লানি সবটার দায়ভার আপনাকেই নিতে হবে।

এ ধরণের আরও লেখা পড়ুনঃ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।