জীবনকে সুখী করে তোলার ২০ টি মূলমন্ত্র

Enjoying the sunসারা পৃথিবীর মানুষ হন্য হয়ে সুখের সন্ধান করছে। কেউ সুখ খুঁজছে অগাধ অর্থে, কেউ সুখের সন্ধানে পাড়ি দিচ্ছে এক দেশ থেকে অন্য দেশে। কিন্তু এভাবে সুখ পাওয়া যায় না। সুখ সম্পূর্ণ মানসিক ব্যাপার। আপনি ততক্ষণ পর্যন্ত সুখী হতে পারবেন না যতক্ষণ না আত্মতৃপ্ত হচ্ছেন, নিজেকে সুখী ভাবছেন। খুব সাধারণ জীবন যাপন করেই সুখী হওয়া সম্ভব। চলুন জেনে নিন এমনই কিছু বিষয় সম্পর্কে।

১. জীবনকে একটি রুটিনের (routine) মধ্যে নিয়ে আসুন। বিশৃঙ্খল জীবনের চেয়ে এটি অনেক বেশি আনন্দদায়ক

২. প্রতিবেশীদের সাথে সু-সম্পর্ক বজায় রাখুন। নিয়মিত তাদের খোঁজ নিন।

৩. নিয়মিত ব্যায়াম (exercise) করুন। ব্যায়াম স্বাস্থ্য ভাল রাখে, আর ভাল স্বাস্থ্য মন ভাল রাখার অপরিহার্য শর্ত।

৪. প্রকৃতি থেকে শিক্ষা গ্রহণ করার চেষ্টা করুন। প্রকৃতির চেয়ে ভাল শিক্ষক আর নেই।

৫. নিজের ক্ষমতাকে চ্যালেঞ্জ (challenge yourself) করুন, নিজের ভাল কাজগুলো অতিক্রম করে আরও ভাল করতে চেষ্টা করুন। এভাবেই সফলতা আসবে।

৬. সুস্বাদু খাবার খান, খাবারকে ভালবাসুন। প্রতিদিন পুষ্টিকর খাবার খান।

৭. প্রচুর হাসুন (smile)। হাসি মন এবং স্বাস্থ্য ভাল রাখার অন্যতম চাবিকাঠি।

৮. প্রতিদিন কমপক্ষে ৮ ঘণ্টা ঘুমান।

৯. প্রতিদিন দুই কাপের বেশি চা বা কফি নয়। অতিরিক্ত ক্যাফেইন শরীরের ক্ষতি করে।

১০. খাদ্যতালিকায় প্রচুর সবজি রাখুন। সবজি শরীর এবং মনকে প্রফুল্ল ও সুস্থ রাখে।

১১. নিজের ধ্বংসাত্মক চিন্তাগুলোকে ভুলে সৃষ্টিশীল ভাবনাগুলোকে প্রাধান্য দিন।

১২. খেলাধুলায় অংশ নিন। খেলাধুলা শুধুমাত্র ছোটদের জন্যই নয়। নিয়মিত খেলাধুলায় শরীর ও মন ভাল থাকে, জীবনী শক্তি বৃদ্ধি পায়।

১৩. কারো সাথে কথা বলার সময় তার কথা মন দিয়ে শুনুন, তাকে পূর্ণ মনোযোগ দিন। এতে আপনার প্রতি তার সম্মান বৃদ্ধি পাবে।

১৪. ভাল বন্ধু তৈরি করুন। সুখী হতে চাইলে কিছু ভাল বন্ধু (good friend) খুব প্রয়োজন।

১৫. সুন্দর গান শুনুন। গান (music) মনকে প্রশান্ত করে।

১৬. চারদিকে নজর রাখুন, সুযোগের অনুসন্ধান করুন। মানুষের জীবনে সুযোগ খুব বেশি আসে না।

১৭. মস্তিষ্ককে সচল রাখুন। ক্রস ওয়ার্ড পাজল, দাবা ইত্যাদি খেলা আমাদের মস্তিষ্ককে ধারালো করে তোলে।

১৮. সেই কাজগুলোই করুন যা আপনি করতে ভালবাসেন।

১৯. নিয়মিত ভ্রমণের (travel) চেষ্টা করুন। নতুন স্থান এবং নতুন মানুষের কাছে থেকে অনেক কিছু শেখার রয়েছে।

২০. নিয়মিত সাঁতার কাটার চেষ্টা করুন। একই সাথে সারা শরীরের ব্যায়ামের জন্য সাঁতারের তুলনা হয় না।

এ ধরণের আরও লেখা পড়ুনঃ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।