লেখালেখির আইডিয়া আসছে না? জেনে নিন রাইটার্স ব্লক কাটিয়ে উঠবেন যেভাবে

writers-blockরাইটার্স ব্লক (writer’s block)। প্রায় সব লেখকই জীবনের কোন না কোন সময় এই সমস্যায় পড়েছেন। হয়তো কোন আইডিয়া আসছে না মাথায় অথবা অনেকগুলো আইডিয়া এসেছে কিন্তু সাজিয়ে লিখতে পারছেন না। লিখতে গেলেই থেকে যাচ্ছে কলম বা কি-বোর্ড। সাদা কাগজ বা কম্পিউটারের শূন্য স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে সময় কেটে যাচ্ছে। এই রাইটার্স ব্লকে হতাশাগ্রস্ত হয়ে আত্মহত্যা করেছেন অনেক লেখক। আজ আপনাদের জানাচ্ছি কিছু সহজ পদ্ধতি যা আপনার রাইটার্স ব্লক কাটাতে সাহায্য করবে (writers block help)

১. সৃজনশীল কিছু করুন (do anything creative):

রাইটার্স ব্লকে আক্রান্ত হলে লেখাটি সরিয়ে রাখুন। সৃজনশীল (creative) কিছু করুন। ছবি আঁকা, ফটোগ্রাফি, কবিতা লেখা, কাঠ বা মাটি দিয়ে কিছু বানানো ইত্যাদি কাজ গুলো আপনার মস্তিষ্কের সৃজনশীল অংশটিকে উজ্জীবিত করে তুলবে, যা রাইটার্স ব্লক কাটাতে সাহায্য করবে।

২. যা ইচ্ছা লিখুন (do freewriting):

এক সপ্তাহের জন্য আপনার মূল লেখাটি সরিয়ে রাখুন। এই সময়ে প্রতিদিন ১৫-৩০ মিনিট লিখুন মনের ইচ্ছা মত। কোন নিয়ম কানুনের কথা এ সময় চিন্তা করবেন না। সংবাদপত্রের কোন লেখার সাথে কাল্পনিক কিছু যুক্ত করুন, নিজেই কৌতুক লেখার চেষ্টা করুন। এভাবে লিখতে থাকলে আপনার মস্তিষ্কের শব্দজট খুলে যাবে। আর এই এলোমেলো লেখাগুলো থেকে পেয়ে যেতে পারেন নতুন কিছু লেখার আইডিয়াও।

৩. শারীরিক পরিশ্রম হয় এমন কিছু করুন (move your body):

আপনি ব্যায়াম করতে পারেন এমনকি নাচতেও পারেন। এমন কিছু করুন যাতে আপনার শারীরিক পরিশ্রম হয় এবং আপনি ক্লান্ত অনুভব করেন। এই ক্লান্তি আপনার মস্তিষ্ককে প্রশান্ত করবে। এছাড়াও মেডিটেশন করতে পারেন।

৪. মনোযোগ বিচ্ছিন্ন করে এমন বিষয়গুলো দূরে রাখুন (eliminate distraction):

লিখতে বসার আগে আপনার মনোযোগ বিচ্ছিন্ন করতে পারে এমন বিষয়গুলো সরিয়ে রাখুন। মোবাইল সাইলেন্ট করে দিন, ইন্টারনেট বন্ধ রাখুন। পরিবারের সদস্যদের বলুন যেন পরবর্তী ২-৩ ঘণ্টা (বা আপনি যতক্ষণ লেখালেখি করেন) আপনাকে বিরক্ত না করে।

৫. লিখুন খুব ভোরে (write in the morning):

সকালে ঘুম থেকে জাগার পর আমাদের মস্তিষ্ক সবচেয়ে বেশি কর্মক্ষম থাকে। তাই লেখালেখির জন্য এই সময়টিকে বেছে নিন। আপনি রাইটার্স ব্লকে (writers block) ভুগে থাকলে ভোর ৪টা বা ৫ টায় উঠে লেখার চেষ্টা করুন।

এ ধরণের আরও লেখা পড়ুনঃ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।