আত্মনিয়ন্ত্রণ বজায় রাখার উপায়

increase self controlকখনো কি এমন হয়েছে আপনি অনেক রেগে গেছেন এবং শেষ পর্যন্ত রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছেন? কখনো কি এমন হয়েছে আপনি স্কুলের পরীক্ষায় খারাপ করেছেন কারণ পড়াশুনার চেয়ে খেলাধুলা তখন আপনার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছিল। এই সংকেতগুলো হলো আপনার আত্মনিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা কম বা নিজে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন না।

আত্মনিয়ন্ত্রণ হলো দৈনন্দিন জীবনে আপনার যে কাজ এবং সিদ্ধান্ত নেন তা নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা। একজন আত্মনিয়ন্ত্রক ব্যাক্তির খুব শান্তভাবে লোভ ও মনের বিক্ষিপ্ত অবস্থা নিয়ন্ত্রনের ক্ষমতা থাকে এবং সেখানে অটল থাকে। নিয়ন্ত্রণের অনুভূতি বা ক্ষমতা না থাকলে  আপনি বিষণ্ণ, অক্ষম ও দুর্বল অনুভব করতে পারেন। কিন্তু চিন্তার বিষয় নেই। আপনি আপনার জীবন পরিবর্তন করতে পারেন। কিছু সহজ পদক্ষেপ অনুসরণ করে আপনি আপনার আত্মনিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা ও বজায় রাখতে পারেন।

১. প্রথমেই চিহ্নিত করুন আপনার জীবনে চলার পথে কোন কোন বিষয়ে অধিক আত্মনিয়ন্ত্রণ প্রয়োজন। কোথায় আপনি আত্মনিয়ন্ত্রণের অভাব অনুভব করছেন? যেমনঃ খাওয়া-দাওয়া, কেনাকাটায়, কাজেকর্মে, ধূমপানে বা বার বার একই আচরণে।
২. চিহ্নিত করুন সেই অনুভূতিগুলো যেগুলো আপনি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন না। যেমনঃ রাগ, অসন্তুষ্টি, অখুশি, বিরক্তিবোধ, আনন্দ অথবা ভয়।
৩. সেসব চিন্তা ও বিশ্বাসগুলোকে চিহ্নিত করুন যা কিনা আপনাকে অনিয়ন্ত্রিত আচরণের দিকে ঠেলে দেয়।
৪. দিনে কিছু সময় বিশেষ করে যখন আত্মনিয়ন্ত্রণের  প্রয়োজন তখন নিজেকে নিজেই বোঝাতে পারেন-

  • আমি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রিত
  • আমার অনুভূতি ও চিন্তা পছন্দের জন্য আমার শক্তি আছে
  • আত্মনিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা আমাকে শক্তি দেয় এবং সফল হতে সাহায্য করে
  • আমার প্রতিক্রিয়ার প্রতি আমার নিয়ন্ত্রণ আছে
  • আমি আমার আচরণ পরিবর্তন করতে পারি
  • দিন দিন আমার অনুভূতি ও চিন্তা নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা বাড়ছে
  • আত্মনিয়ন্ত্রণ আনন্দের এবং মজার

নিজেকে পুরস্কৃত করুন যেমন ঘুরতে যাওয়া,মুভি দেখা,বা নিজেকে কিছু দেয়া। পুরস্কার সত্যিই আত্মনিয়ন্ত্রণকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে। বাস্তবতা ও নিজের প্রত্যাশার সাথে মানিয়ে নিন। আশাবাদী হোন।

আত্মনিয়ন্ত্রণ খুবই জরুরি। বার বার একই চিন্তা, ভয়, আসক্তি এবং নিজে নিজের প্রতি ভুল আচরণ থেকে বের হওয়ার জন্য। এটি আপনাকে আপনার জীবন, আচরণ ও প্রতিক্রিয়া নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করবে। এটা আপনার সম্পর্ক, ধৈর্য ও সহ্য ক্ষমতা তৈরিতে উন্নত করবে এবং আপনার সুখী রাখবে।
আরো পড়ুন
নিজের উপর আস্থা ফিরিয়ে আনুন, বাড়িয়ে তুলুন আত্মমর্যাদাবোধ
লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।