দাঁতকে ঝকঝকে সাদা করে তুলুন ঘরে বসেই

 

Ways To Get Whiter Teeth at Home

ঝকঝকে সাদা দাঁত চেহারার সৌন্দর্যের পাশাপাশি বাড়িয়ে তোলে আত্মবিশ্বাসও (confidence)। ছোটবেলায় আমাদের সবার দাঁত সাদা থাকলেও সময়ের সাথে সাথে তা বিবর্ণ হয়ে পড়ে। আর এ জন্য দায়ী আমাদের দৈনন্দিন খাদ্যাভ্যাস ও জীবন যাপন পদ্ধতি। খুব সাধারণ কিছু বিষয়ে একটু নজর দিলেই দাঁত হয়ে উঠতে পারে উজ্জ্বল সাদা (whiter teeth)

এই লেখায় থাকছে এমনই কিছু পদ্ধতি যার অনুসরণে আপনি পাবেন ঝকঝকে সাদা দাঁত।

১. ব্যবহার করুন হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড ও বেকিং সোডা (brush teeth with hydrogen peroxide and baking soda paste):

উজ্জ্বল সাদা দাঁত পেতে প্রতি সপ্তাহে একবার হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড ও বেকিং সোডার (baking soda) মিশ্রণ দিয়ে দাঁত ব্রাশ করুন। নিকটস্থ ফার্মেসি বা বড় স্টোরে হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড পেয়ে যাবেন। ২ চা চামচ হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড, ৩ চা চামচ বেকিং সোডা, সাথে নিন সামান্য পরিমাণ লবণ। এবার এগুলো ভালভাবে মিশিয়ে পেস্টের মত বানান এবং সাধারণ পদ্ধতিতেই এই মিশ্রণ দিয়ে দাঁত ব্রাশ করে নিন। মিশ্রণটি ২-৩ মিনিটের জন্য মুখে রেখে ভালভাবে কুলি করে ফেলুন।

h

২. লেবুর রস ও বেকিং সোডার মিশ্রণ (add lime to the baking soda):

লেবুর রসের (lemon juice) সাথে সামান্য পরিমাণে বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। এবার মিশ্রণটি তুলা বা পরিষ্কার কাপড়ের সাহায্য এমনভাবে দাঁতে লাগান যেন তা দাঁতের ফাঁকেও প্রবেশ করে। এভাবে ১-২ মিনিট রেখে কুলি করে ফেলুন। এর চেয়ে বেশি সময় রাখবেন না কারণ লেবুর রসে থাকা সাইট্রিক এসিড দাঁতের ক্ষতি করতে পারে। এভাবে প্রতি সপ্তাহে অন্তত ১ বার এই পদ্ধতি অনুসরণ করুন।

৩. ত্যাগ করুন কিছু খারাপ অভ্যাস (quit some bad habits):

ধূমপান (smoking) ও পান খাওয়ার অভ্যাস থাকলে ত্যাগ করুন আজই। সিগারেটের ধোঁয়া ও পানের রস দাঁতে স্থায়ী ছাপ ফেলে দেয় যা সাধারণ উপায়ে দূর করা যায় না। এছাড়া এ ধরণের অভ্যাসগুলো আপনার স্বাস্থ্যকেও ফেলে দেয় ঝুঁকির মুখে।

৪. চা-কফি পানে সতর্ক হোন (do not drink too much tea/coffee):

মাত্রাতিরিক্ত চা এবং কফি পানে ধীরে ধীরে দাঁতে কালো আবরণ সৃষ্টি করে । দিনে ২ কাপের বেশি চা/কফি পান না করার চেষ্টা করুন। এছাড়া বিভিন্ন কোমল পানীয় (cold drinks) দাঁতের স্থায়ী ক্ষতি করতে পারে এবং দাগ সৃষ্টি করে। তাই এসব পানে সতর্ক হোন।

এ ধরণের আরও লেখা পড়ুনঃ

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য ও রূপচর্চা বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য অথবা রূপচর্চা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য/ রূপচর্চা সংক্রান্ত যেকোন তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের/বিউটিশিয়ানের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।