বর্ষার দিনে শুনতে পারেন যে ১০টি জনপ্রিয় বৃষ্টির গান

10453274_723023984410311_511555985_nসেই আদিকাল থেকেই বৃষ্টির সাথে আমাদের প্রেম। বৃষ্টি আমাদের প্রথম প্রেমিক, প্রথম প্রেমিকা। বাঙ্গালীর অনেক রোমান্টিক স্মৃতির সাক্ষী এই বর্ষা। বর্ষা নিয়ে কত গল্প, ছড়া, কবিতা, গান আছে তার কোন হিসেব নেই। নগর জীবনে ছুটে চলা ব্যস্ত মানুষটাও বর্ষার দিনে আকাশের দিকে তাকায়। তাকিয়ে একবারের জন্যে হলেও তার প্রিয় বর্ষার গানটি গুনগুন করে। আর কে না জানে বর্ষা উদযাপনে প্রধান উপকরণ বর্ষার গান। আমরা তাই সবসময়ের প্রিয় দশটি বর্ষার বাংলা গান উপস্থাপন করলাম। চলুন একটু গুনগুন করে আসি।

১) আজি ঝরঝর মুখর বাদল দিনে- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একজন অসাধারণ বর্ষা প্রেমিক ছিলেন। তিনি ১০০ টিরও বেশি বর্ষার গান লিখেছেন। তাই বাদল দিনের গানের তালিকা করতে গেলে সেখানে স্বাভাবিকভাবেই কবি গুরুর লেখা গান সংখ্যা গরিষ্ঠের আসন পেয়ে যায়।
বর্ষার দিনে কাজে কারো মন বসে না, এই চিরন্তন সত্য দিয়েই গানটির শুরু।
“আজি ঝর ঝর মুখর বাদলদিনে
জানি নে, জানি নে কিছুতেই কেন মন লাগে না ।”

২) বর্ষা-শিরোনামহীন

‘শিরোনামহীন’ তরুণদের কাছে অনেক জনপ্রিয় একটি ব্যান্ড। ‘বর্ষা’ গানটি ২০০৬ সালে বের হওয়া তাদের ২য় এ্যালবাম “ইচ্ছেঘুড়ি” থেকে নেওয়া। গানটির কথা ও সুর চমৎকার। বর্ষার দিনে শোনার মতই একটি গান।
“মেঘলা কবেকার স্মৃতিময় বাতায়ন,
বলে যায় তোমায় অনব ভালবাসি।”
গানের এই লাইন দুটি শ্রোতার মনে হাহাকার ছড়িয়ে দেয়।

৩) এই মেঘলা দিনে একলা– হেমন্ত মুখোপাধ্যায়
হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের গাওয়া গানটি অনেক পুরনো একটি গান। কিন্তু এতদিন পরেও গানটির আবেদন কিছু মাত্র কমেনি। এভারগ্রিন বৃষ্টির গানের তালিকায় গানটি পাকাপোক্ত আসন করে নিয়েছে। আপনি যদি গানটি আগে শুনে না থাকেন, তবে আজই শুনে নিন। গানের প্রথম চারটি লাইনই বৃষ্টির দিনে যে কাউকে উদাস করে দেয়ার জন্যে যথেষ্ট।
“এই মেঘলা দিনে একলা
ঘরে থাকে না তো মন,
কাছে যাব কবে পাব
ওগো তোমার নিমন্ত্রণ।”

৪) বৃষ্টির গান- জলের গান
একটু ভিন্ন ধরণের বাদ্য যন্ত্র, গানের কথা, সুর নিয়ে “জলের গান” বর্তমানে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। তাদের গানে পাওয়া যায় সোঁদা মাটির গন্ধ, টাপুর টুপুর বৃষ্টির সুর। যে ব্যান্ডের নাম “জলের গান” বৃষ্টি নিয়ে তাদের গান থাকবে না, তা তো হয় না। ‘বৃষ্টির গান’ জলের গানের গাওয়া বৃষ্টি নিয়ে জনপ্রিয় একটি গান। গানটিতে চমৎকার বাঁশির সুর যোগ করেছে ভিন্ন মাত্রা।

৫) এই বৃষ্টি ভেজা রাতে- আর্টসেল
আর্টসেল তরুণদের নিকট তুমুল জনপ্রিয় একটি ব্যান্ড। বৃষ্টি নিয়ে তাদের এই একটি গানই আছে এবং গানটি তার অসাধারণ লিরিকের জন্যে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। গানটির প্রেক্ষাপট বৃষ্টি ভেজা রাত আর সেই চিরন্তন আক্ষেপ। এই বর্ষায় আপনজন পাশে না থাকার বেদনা।
“এই বৃষ্টি ভেজা রাতে তুমি নেই বলে
সময় আমার কাটে না।”


৬) এমন দিনে তারে বলে যায়- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

বর্ষার দিনে এই গানটি গুনগুন করে বহু বর্ষা প্রেমিক, বহু রবীন্দ্র প্রেমিক। গানটি না শুনে শুধু গানের কথাও যদি কেউ পড়ে, সে এই গানের প্রেমে পড়তে বাধ্য। এই গানটি যারা শুনেছে নিচের চারটি লাইন তাদের খুবই আপন হয়ে উঠেছে।
“তাহাতে এ জগতে ক্ষতি কার
নামাতে পারি যদি মনোভার!
শ্রাবণ বরিষনে একদা গৃহকোণে
দু কথা বলি যদি কাছে তার
তাহাতে আসে যাবে কিবা কার।”

৭) বৃষ্টি-রাগা (এলিটা)
গানটির শুরুতেই এক পশলা বৃষ্টি এসে আপনাকে ভিজিয়ে দিবে। এরপর খুব দারুণ একটি সুর দিয়ে শুরু হবে গানটি। বাংলাদেশে গায়িকাদের মধ্যে এলিটা করিম অন্যতম। তার ‘বৃষ্টি’ নিয়ে এই গানটি জনপ্রিয় একটি গান। গানটির কোরাস শুনলেই গানটি আপনার পছন্দের বর্ষার গানের তালিকায় নিয়ে ফেলবেন এটি নিশ্চিত।
“বৃষ্টি ভেজা এই বেলায় আমি তো স্বাধীন
রংধনু রঙের মেলায় এলো নতুন দিন।”


৮) চলো বৃষ্টিতে ভিজি- হাবিব

এই গানের টাইটেলটি এক জীবনে আমরা কতবারই না উচ্চারণ করেছি। যখনই আকাশ ভেঙ্গে বৃষ্টি নেমেছে কাছের মানুষকে বলেছি, ‘চলো বৃষ্টিতে ভিজি।’
গানটিতেও প্রকাশ পেয়েছে ঠিক একই আকুলতা, একই আবেদন। গানটি হুমায়ুন আহমেদের লেখা উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত সিনেমা ‘আমার আছে জল’ থেকে নেওয়া। গানটির প্রথম দুইটি লাইন যে কাউকে নস্টালজিক করে দিতে বাধ্য।
“বাদলা দিনে মনে পড়ে ছেলেবেলার গান
বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর নদে এলো বান”

৯) এপিটাফ- অর্থহীন
বৃষ্টির দিনে ফেসবুকে একটু ঘোরাফেরা করলেই এই গানের লাইনগুলো স্ট্যাটাস হিসেবে পাওয়া যাবে। যে গানের প্রথম দুটি লাইন
“বৃষ্টি নেমেছে আজ আকাশ ভেঙ্গে
হাঁটছি আমি মেঠোপথে”

সে গান বৃষ্টির দিনে প্রিয় কেনই বা হবে না। ‘অর্থহীন’ ব্যান্ডের গানগুলো অনেক দিন থেকেই শ্রোতাদের কাছে জনপ্রিয় আর ‘এপিটাফ’ তাদের মধ্যে অন্যতম।

১০) যদি মন কাঁদে-শাওন
‘যদি মন কাঁদে’ গানটি জনপ্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদের লেখা। হুমায়ূন আহমেদের ছিল অসম্ভব রকমের বর্ষা প্রেম। তার অনেক লেখাতেই বৃষ্টি এসেছে। যতটুকু জানা যায় নুহাশ পল্লীতে বসেই এই গানটি লিখেছিলেন তিনি এবং এক বর্ষার রাতেই সেটি গেয়ে শোনায় শাওন। গানটি শুনলে একে তো বৃষ্টি অনুভব করা যায় সাথে সাথে হুমায়ূন ভক্তরা হুমায়ূন আহমেদকে স্মরণ করে নেয়।

গানের তালিকা করতে গিয়ে আমরা চেষ্টা করেছি সকল বয়সের পছন্দের এবং সকল ধরণের গান রাখতে। আশা করি ভাল লাগবে আপনাদের। তো আর দেরি না করে সাজিয়ে ফেলুন আপনার প্লে লিস্ট।
“যদিও তখন আকাশ থাকবে বৈরি
কদম গুচ্ছ হাতে নিয়ে আমি তৈরি ।।
উতলা আকাশ মেঘে মেঘে হবে কালো
ছলকে ছলকে নাচিবে বিজলী আরো
তুমি চলে এসো, চলে এসো
এক বরষায়……………”

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।