স্বাস্থ্য সুরক্ষায় খাবার খাওয়ার পর এড়িয়ে চলুন কিছু মারাত্মক ভুল কাজ

dinner-ed-teaস্বাস্থ্য সকল সুখের মূল। সকলের জানা তবুও দৈনন্দিন জীবনে আমরা জেনে-না জেনে,ইচ্ছা-অনিচ্ছায় অভ্যাসবশত এমন কিছু করি যা আমাদেরকে সুস্বাস্থ্য থেকে দূরে সরিয়ে দেয়। আজকের লিখায় তেমন কিছু বিষয় তুলে ধরা হয়েছে। যা জানার মাধ্যমে এবং মেনে চলার ভেতর দিয়ে আমরা নিজের এবং পরিবারের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে পারি।

অভ্যাস যতই পুরানো হোক না কেন। তা যদি স্বাস্থ্যহানিকর হয় তবে আজই ত্যাগ করা শ্রেয়। জেনে নেওয়া যাক তেমন কিছু অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে আজই।

  • খাওয়া পরবর্তী নেতিবাচক সাতটি কাজের তালিকার প্রথমেই আছে ধূমপান। কেন ? কেননা খাবার পর পর ধূমপান করা হলে সেক্ষেত্রে একটি সিগারেট দশটি সিগারেটের সমপরিমাণ ক্ষতি সাধন করতে সক্ষম হয়। এর ফলে ধূমপায়ীর দেহে ক্যান্সারের মত মরণ ব্যাধি প্রবেশের দরজা অবলীলায় খুলে যায়।
  • এই পর্যায়ে আছে ফলমূল। যদিও ফলমূল দেহের জন্য উপকারী জেনে আসছি। এই জানা ব্যপারটির সাথে আরেকটু জানা যোগ হলেই সত্যিকারের উপকার হবে। তা হলো-ফলমূল খেতে হবে মূল খাবারের ১ ঘন্টা আগে অথবা খাবারের ১ ঘন্টা বা তার অধিক সময় পরে। কেননা খাবারের পর পর যদি ফলমূল খাওয়া হয় তবে পেট ফাঁপা বা পেটের গ্যাস সৃষ্টি হয়।
  • অনেকের অভ্যাস থাকে খাওয়া শেষ করেই চা পান করা। যা পরিবর্তন করা উচিত। কেন? কারণ খাওয়া পরবর্তী চা,অ্যাসিডিটিকে বাড়িয়ে দেয় । যা প্রোটিন হিসেবে যে খাদ্য আমরা গ্রহণ করে থাকি তা হজমে বিঘ্ন সৃষ্টি করে।
  • অনেকে ক্ষেত্রে দেখা যায় কাজ থেকে ফিরে আগে ক্ষুধা নিবারণ করে । তারপর গোসল করে। যা মোটেও স্বাস্থ্যকর না। কারণ গোসল দেহে রক্ত সঞ্চালণ বৃদ্ধি করে দেয়। আর ভারী খাবার গ্রহনের পর রক্ত প্রবাহের দ্রুততা পাকস্থলীর হজম প্রক্রিয়াকে দূর্বল করে দেয়।
  • এই ধাপে রয়েছে খাবার গ্রহণ পরবর্তী দেহের নড়াচড়া। অর্থাৎ খাওয়া শেষ করেই বেশি হাটাহাটি বা দৌড়ানো উচিত নয়। কেননা এর ফলে খাদ্যনালী খাদ্যকে ভালোভাবে শুষে নিতে পারে না।
  • অনেকেই খাবার শেষ করে উঠেই আরামের তাগিদে কোমরের বেল্ট শীতল করে দেন। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল এমন করার ফলে খাদ্যনালীর নিম্নাংশ মুচড়ে গিয়ে ব্লক তৈরী হতে পারে। যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। প্রয়োজনে কাজটি আগে করুন।

প্রায়ই আমরা খাবার খেয়ে উঠেই শুয়ে পড়ি বিশেষ করে রাতে। যা আমাদের অসুস্থতাকে দ্বিগুন করে দেয়। এমন করার ফলে খাদ্য হজমে বাধা সৃষ্টি হওয়ায় তা পাকস্থলীর আলসার তৈরী করে। তাই বিছানা যাওয়ার কমপক্ষে ১ ঘন্টা পূর্বে খাবার শেষ করা উচিত।

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য ও রূপচর্চা বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য অথবা রূপচর্চা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য/ রূপচর্চা সংক্রান্ত যেকোন তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের/বিউটিশিয়ানের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।