এসএসসি পরীক্ষা-২০১৫’র প্রস্তুতিঃ ফিন্যান্স এন্ড ব্যাঙ্কিং

ssc exm finance and bankingএস এস সি পরীক্ষার্থীদের জানাই শুভেচ্ছা। তোমাদের মধ্যে যারা বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থী রয়েছ তাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হচ্ছে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাঙ্কিং ,তাই এই বিষয়ে ভালো নম্বর পেতে পারো সে লক্ষ্যেই কিছু গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ।

তোমরা ইতিমধ্যেই জানো তোমাদের পরিক্ষাটি সৃজনশীল (৬০ নম্বর) এবং বহু নির্বচনী (৪০ নম্বর) এর।

বহু নির্বচনী

প্রথমেই বহু নির্বচনী প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা, তোমাদের পাঠ্য বইয়ে মোট ১৩টি অধ্যায় যার মধ্যে দু’টো বিভাগ অধ্যায় ১-৭ হচ্ছে ফিন্যান্স এবং অধ্যায় ৮-১৩ হচ্ছে ব্যাঙ্কিং।

ফিন্যান্স বিভাগ থেকে ১ম,২য়,৩য় ৪র্থ, ৬ষ্ঠ,এবং ৭ম অধ্যায় বহু নির্বাচনী প্রশ্নের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অপরদিকে ৯ম,১০ম,১৩ম অধ্যায় ব্যাঙ্কিং বিভাগ থেকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

গাণিতিক অধ্যায় গুলো যেমন ৩য়, ৪র্থ,৫ম, ৬ষ্ঠ এর গাণিতিক সূত্রগুলো খুবই ভালো ভাবে আয়ত্ত্ব করতে হবে। অর্থের সময় মূল্য থেকে বর্তমান মূল্য (চক্রবৃদ্ধি) এবং ভবিষ্যৎ মূল্য (বাট্টাকরণ প্রক্রিয়া) অঙ্কগুলো সম্পর্কে সূক্ষ্ম জ্ঞান থাকতে হবে।

মুলধন ব্যয় অধ্যায় থেকে ঋণের মূলধন ব্যয়, সাধারণ শেয়ার মূলধন ব্যয় এর সূত্র এবং অংকগুলো ভালো ভাবে অনুশীলন করতে হবে।

৪০টি বহু নির্বাচনী প্রশ্নের মধ্যে গড়ে ৫ থেকে ৮ টি গণিত সংক্রান্ত প্রশ্ন থাকে। তাছাড়া গড় মুনাফার হার, পে ব্যাক সময়ের থেকে বহু নির্বাচনী প্রশ্ন আসে। শিক্ষার্থীরা টেস্ট পেপারের শুরুর দিকে অধ্যায় ভিত্তিক কিছু বহু নির্বাচনী প্রশ্ন থাকে তা ভালো ভাবে চর্চা করবে।

সৃজনশীল

সৃজনশীল ৯ টি থেকে ৬ টি প্রশ্নের উত্তর করতে হয়। ফিন্যান্স বিভাগ হতে ৫ টি এবং ব্যাঙ্কিং বিভাগ থেকে ৪টি প্রশ্ন থাকবে যার মধ্যে ফিন্যান্স বিভাগ হতে ৩টি এবং ব্যাঙ্কিং বিভাগ থেকে ২টি বাধ্যতামূলক উত্তর করতে হবে এবং বাকী ১ টি যেকোনো বীভাগ থেকে করা যাবে।

ফিন্যান্স বিভাগ হতে ২য়, ৩য়, ৪র্থ, ৬ষ্ঠ এবং ৭ম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ,এই ক্ষেত্রে ১ম ও ২য় অধ্যায় থেকে মিলিত প্রশ্ন হতে পারে। ২য় অধ্যায় থেকে তহবিলের উৎস, ব্যবহার, উৎস নির্বাচনে বিবেচ্য বিষয় সমূহে ভালো ধারণা থাকতে হবে।

৩য় অধ্যায়ঃ বর্তমান মূল্য (চক্রবৃদ্ধি),ভবিষ্যৎ মূল্য (বাট্টাকরন প্রক্রিয়া), প্রকৃত সুদের হার, বার্ষিক বৃত্তি, এবং অর্থের সময়ের মূল্যর গুরুত্ত সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে পাঠ্য বইয়ের উদাহরণ গুলো ভালো করে অনুশীলন করতে হবে।

৪র্থ অধ্যায়ঃ টেস্ট পেপার থেকে বিভিন্ন স্কুলের প্রশ্ন গুলো অনুশীলন করতে হবে।

৬ষ্ঠ অধ্যায়ঃ পাঠ্য বইয়ের মূলধন ব্যায়ের অঙ্কটি ভালো করে অনুশীলন করতে হবে।

ব্যাঙ্কিং বিভাগ থেকে ১০ম, ১১তম, ১২তম অধ্যায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ টেস্ট পেপারের প্রশ্ন বিশ্লেষণে দেখা যায় কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক থেকে একটি প্রশ্ন থাকেই।

তাছাড়া আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন

  • অর্থায়ন ব্যবস্থাপনার মূল চালিকা শক্তি
  • ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অর্থায়নের ক্ষেত্রে অর্থের উৎস নির্ধারণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ।
  • অর্থের সময়ের মূলের গুরুত্ব /প্রয়োজনীয়তা।
  • সঠিক অর্থের উৎস নিরধারনে মূলধন ব্যয়ের নির্ধারণ কেন গুরুত্বপূর্ণ ।
  • মূলধন ব্যয়ের নির্ধারনে সুযোগ ব্যয় কেন গুরুত্বপূর্ণ।
  • অগ্রাধিকার শেয়ারকে কেন হাইব্রিড শেয়ার বলা হয়।
  • কেন্দ্রীয় ব্যাংককে কেন অন্যান্য ব্যাংকের ব্যাংক বলা হয়।
  •  মুদ্রাবাজার এবং দেশের সার্বিক অর্থর্নৈতিক উন্নয়নে কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের ভুমিকা।
  • নিকাশ ঘর, হিসাব খোলার পদ্ধতি, সুযোগ ব্যয়, শেয়ার মালিকানার দলিল সমূহ, চেকের প্রকারভেদ, বৈশিষ্ট, ব্যাঙ্কের তারল্যনীতি, ঋণ নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি,সাধারণ শেয়ার, অগ্রাধিকার শেয়ার এর বৈশিষ্ট,অর্থায়নের উৎস।

কিছু দরকারি কথা

যেহেতু নতুন সিলেবাসে পরীক্ষা দিচ্ছো তাই তাই আগে থেকেই খুব ভালো ভাবে প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হবে। সময়ের দিক বিবেচনা করে প্রতিটি প্রশ্ন যথাযথভাবে উত্তর দেয়ার চেস্টা করতে হবে লক্ষ রাখতে হবে প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর দেয়ার। অনুধাবন অংশটির উত্তর ২টি, প্রায়োগিক ৩টি, উচ্চতর দক্ষতা ৪টি প্যারার মধ্যে উত্তর লিখার চেষ্টা করতে হবে। উত্তরপত্র যতটুকু সম্ভব পরিষ্কার পরিচ্ছন রাখাটা জরুরী ,পরিশেষে রিভিশনের জন্য ৫থেকে ১০ মিনিট সময় বরাদ্দ রাখা উচিত।

পরিশেষে বলব প্রত্যাশা আর পরিশ্রম যখন এক হবে তখন প্রাপ্তিটা অনেক মধুর হবে।

শুভ কামনা রইলো।

আরো পড়ুন

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।