যেভাবে নিজের ফেসবুক আইডিকে রক্ষা করবেন ক্র্যাকারদের হাত থেকে

FacebookHacked1ফেসবুক আইডি হ্যাক হওয়া এবং ক্র্যাক (facebook crack) হওয়ার মধ্যে কিছুটা পার্থক্য আছে। হ্যাকার (hacker) হতে হলে বেশ কিছুটা মেধার অধিকারী হতে হয় যা ক্র্যাকার দের না থাকলেও চলে। খুব সহজেই আপনার ফেসবুক আইডি ক্র্যাক করতে পারে যে কেউ। তাই এই লেখায় আলোচনা করছি ফেসবুক আইডি ক্র্যাক করার ২ টি প্রচলিত পদ্ধতি এবং তা থেকে সুরক্ষার উপায় নিয়ে।

কি-লগার (Keylogger):

কি-লগারকে ২ ভাগে ভাগ করা যায়। সফটওয়্যার কি লগার এবং হার্ডওয়্যার কি লগার। কোন কম্পিউটারে কি লগার ইন্সটল করা হলে তা ব্যবহারকারীর অজান্তে বিভিন্ন স্ক্রিন শট নেয়, কি বোর্ডের কোন কোন বোতাম চাপা হলে তার তালিকা সংরক্ষণ করে। এ সব তথ্য কি লগার কোন একটি গোপন ফোল্ডারে (hidden folder) সংরক্ষণ করে অথবা যিনি ইন্সটল করেছেন তাকে ইমেইলের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয়। হার্ডওয়্যার কি লগারের কাজও মূলত একই। এক্ষেত্রে কি-লগার সফটওয়ারটি কোন পেন ড্রাইভে ইন্সটল করা থাকে, যা কোন কম্পিউটারে সংযুক্ত করা মাত্রই তার তথ্য সংগ্রহ করা শুরু করে দেয়।

কি-লগার থেকে সুরক্ষার উপায় (how to protect your facebook id from keylogger):

  • কম্পিউটারে ফায়ারওয়াল (firewall) ব্যবহার করুন। ফায়ারওয়াল লক্ষ্য রাখে আপনার কম্পিউটার থেকে কোন অস্বাভাবিক ইন্টারনেট কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে কি না। যেহেতু কি-লগার ইমেইলের মাধ্যমে সকল তথ্য পাচার করে, তাই ফায়ারওয়ালে তা ধরা পড়ে যায়।
  • পাসওয়ার্ড ম্যানেজার (password manager) ব্যবহার করুন। এতে করে বার বার আপনাকে তা টাইপ করতে হবে না। ফলে আপনি কি পাসওয়ার্ড দিয়েছেন তা কি-লগারে ধরা পড়বে না।
  • যে কোন পেন ড্রাইভ, এক্সটার্নাল হার্ড ডিস্ক কম্পিউটারে সংযুক্ত করার পর ভাল মানের এন্টিভাইরাস দিয়ে পরীক্ষা করে নিন।
  • ভার্চুয়াল কি বোর্ড ব্যবহার করুন পাসওয়ার্ড (facebook password) বা ইউজার নেম (user name) লেখার সময়। অধিকাংশ কি-লগার ভার্চুয়াল কি বোর্ডের কার্যক্রম সনাক্ত করতে পারে না।

ফিশিং (Phishing) :

ফিশিং কিছুটা কঠিন কিন্তু বেশ প্রচলিত পদ্ধতি ফেসবুক পাসওয়ার্ড ক্র্যাক (password crack) করার জন্য। এই ক্ষেত্রে হুবহু ফেসবুকের লগ ইন পেজের মত একটি পেজ তৈরি করা হয়। এতে আপনি ইমেইল আইডি এবং পাসওয়ার্ড দেয়া মাত্রই তা পৌঁছে যায় অন্যের হাতে। সাধারণত ইমেইলের মাধ্যমে কোন লিঙ্ক পাঠানো হয় যাতে সে লিঙ্কে ক্লিক করে ফেসবুকে প্রবেশ করার কথা বলা থাকে। এছাড়াও কোন এপ্লিকেশন, কোন ওয়েব সাইটের পপ আপ উইন্ডো ইত্যাদির মাধ্যমে আপনাকে লিঙ্ক পাঠানো হতে পারে।

ফিশিং থেকে সুরক্ষার উপায় (how to protect your facebook id from Phishing) :

  • ইমেইলে আসা যে সব লিঙ্ক ফেসবুকে লগ ইন করতে বলে তাতে ক্লিক করবেন না।
  • শক্তিশালী এবং ভাল মানের এন্টিভাইরাস (antivirus) সফটওয়্যার ব্যবহার করুন।
  • যে কোন টেক্সট মেসেজ, এডভারটাইজের পপ আপ উইন্ডো বা কোন এপ্লিকেশন যা আপনাকে ফেসবুকে লগ ইন করতে বলে, অথবা লগ ইন করা সংক্রান্ত লিঙ্ক প্রদান করে তা ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন।
  • যে কোন লিঙ্কে ক্লিক করার আগে তা ভালভাবে পড়ে দেখুন, কারণ ফিশিং লিংকগুলো সাধারণত আসল ওয়েবসাইটের সাথে হুবহু মিলে না।

ফেসবুক আইডির নিরাপত্তা নিয়ে পরামর্শ.কম এর আরও লেখা পড়ুন।
বাড়িয়ে নিন আপনার ফেসবুক আইডির সিকিউরিটি যা সাধারণত আপনি এড়িয়ে যান

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।