খুব সহজে শাশুড়ির মন জুগিয়ে চলবেন যেভাবে

g9শাশুড়ি নামটা শুনলেই কি চোখের সামনে ভেসে উঠে একজন রাগী রাগী গম্ভীর চেহারার মানুষের মুখায়বব? যদি এমনটা হয় তাহলে আজই আপনার দৃষ্টিভঙ্গী বদলান। বিয়ের পর একজন নারীর শ্বশুরবাড়িকে যেমন নিজের বাড়ি করে নিতে হয় ঠিক একইভাবে শ্বশুরবাড়ির মানুষগুলোকেও আপন করে নিতে হয়। আর শ্বশুরবাড়িতে আপনার সবথেকে ভরসা আর আস্থার জায়গাটা হতে পারে আপনার শাশুড়ি। শাশুড়িকে নিজের মায়ে রূপান্তরিত করতে শুধু চায় আপনার একটু সহনশীলতা আর সদিচ্ছা।

খুব সহজে যেভাবে শাশুড়ির মন জুগিয়ে চলবেনঃ

শুরু থেকেই মা ডাকুনঃ
শাশুড়ির মন জয় করতে তাকে প্রথম থেকেই মা ডাকা শুরু করুন, তবে অবশ্যই সেটা মন থেকে, নিয়ম রক্ষার স্বার্থে যদি মা ডেকে থাকেন তাহলে কোনদিনই তার মনের কাছাকাছি যেতে পারবেন না।

শাশুড়ির গুণের প্রশংসা করুনঃ
প্রশংসা এমন একটি জিনিস যেটা মানুষকে খুশী করে দেয়। একইভাবে শাশুড়ির মন জয় করতে তার গুণগুলোর প্রশংসা করুন।

যেকোন কাজে শাশুড়ির পরামর্শ নিনঃ
যেকোন কাজ সেটা রান্না বা ঘর গোছানো হতে পারে প্রতিটি কাজে আপনার শাশুড়ির মতামত অথবা পরামর্শ মেনে চলুন, এতে সংসারের কাজে পুরোপুরি সংযুক্ত না থেকেও তিনি নিজেকে প্রতিটি কাজে নিজেকে যুক্ত মনে করবে।

বাড়ির কাজ করুনঃ
আপনার শাশুড়ির মন জুগিয়ে চলার আরো একটি সহজ উপায় হল বাড়ির কাজগুলো নিজ হাতে করা। কারো কাজের কথা বলার অপেক্ষা না করে বাড়ির কাজগুলো নিজে থেকে করে ফেলুন।

শাশুড়ির সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন নাঃ
মা আর স্ত্রী দুজন সম্পূর্ণ আলাদা আলাদা দুটি সম্পর্কের নাম। এই দুয়ের ভালোবাসা আর যত্নের ধরণও আলাদা। তাই আপনি কখনোই নিজেকে আপনার শাশুড়ির সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামাবেন না। বরং তার থেকে আপনি আপনার স্বামীর পছন্দ অপছন্দের সম্পর্কে তথ্য নিতে পারেন, কারন আপনার স্বামীর সম্পর্কে তার থেকে ভালো আর কেউ জানেনা।

শালীন পোশাক পরুনঃ
একজন নারীর  বিয়ের পর অনেক কিছুর পরিবর্তন ঘটে। আর এসব পরিবর্তনের অন্যতম একটি হল পোশাক পরিচ্ছদের পরিবর্তন। বিয়ের পর আপনার শাশুড়ির মতামত অনুযায়ী শালীন পোশাক পরুন। এই একটি কাজ করে আপনি তার মনে খুব সহজেই স্থান পেয়ে যাবেন।

শাশুড়ির সাথে সময় কাটানঃ
আপনার শাশুড়ির মন জুগিয়ে চলার অন্যতম উপায় হল তার সাথে সময় কাটানো। দিনের কিছুটা সময় তার সাথে কাটানোর চেষ্টা করুন, তার থেকে বাল্যকাল অথবা অভিজ্ঞতার গল্প শুনুন সাথে নিজের সম্পর্কেও বলুন। এতে চেনাশোনা বাড়বে আর সম্পর্কের গভীরতা বাড়বে।

শাশুড়িকে মাঝে মধ্যে উপহার দিনঃ
সম্পর্কের মধুরতা বাড়াতে আপনি আপনার শাশুড়িকে উপহার দিতে পারেন। যখনই নিজেদের জন্য কেনাকাটা করতে বের হবেন আসার পথে তার জন্য কিছু নিয়ে আসুন। দেখবেন সে আপনাকে সহজেই ভালোবেসে ফেলবে আর আপনার শুভাকাংক্ষি হয়ে উঠবে।

শাশুড়ির সাথে সম্পর্কের মিষ্টতা আর তার মন জুগিয়ে চলতে তার সমালোচনা করা থেকে বিরত থাকুন। মাতাপিতা সব সময় সন্তানের ভালো চান আর চিন্তা মাথায় রেখে তাদের সিদ্ধান্ত আর মতামতের গুরুত্ব দিন।

ছবি সৌজন্যঃ একুশে সংবাদ.কম

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।