USA ভিসা সাক্ষাৎকারে যাওয়ার পূর্বে যে বিষয় গুলো আপনার জানা জরুরি

Important Instructions before Visa Interview for USAআবেদনের পর ভিসা সাক্ষাৎকারের জন্য চিঠির মাধ্যমে আবেদনপ্রা্র্থীকে নিদিষ্ট তারিখে ডাকা হয়। এক্ষেত্রে তারিখ ও সময়ের ব্যাপারে খুবই দায়িত্বশীল থাকতে হবে। কেননা তারিখ ঠিক রেখে আপনি যদি নির্ধারিত সময়ের ভিতর অ্যাম্বেসিতে উপস্থিত না থাকেন তবে আপনার সাক্ষাৎকার বাতিল হয়ে যাবে।

ভিসার সাথে সম্পর্কিত সকল কাগজ-দলিল নিজের সাথে রাখুন। যাতে প্রয়োজন হলে তৎক্ষণাৎ দেখাতে বা কাজে লাগাতে পারেন। “ভুলে নিয়ে আসেন নি” এরকম যেন বলতে না হয়। এছাড়াও আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জানতে ও মনে রাখতে হবে। নিম্নে তা তুলে ধরা হল-

প্রবেশে যা মনে রাখতে হবে

  • সাক্ষাৎকারের দিন আপনাকে নির্ধারিত সময়ে কনসাল সেকশনে থাকতে হবে। তাই অবশ্যই বাড়তি কিছু সময় হাতে রেখে সঠিক প্রবেশ পথে অপেক্ষা করুন।
  • মোবাইল,ক্যমেরা,যেকোন ইলেকট্রনিক ডিভাইস,ট্যালকম বা অন্য কোন পাউডার ছিটানো পাসপোর্ট,হাতিয়ার ইত্যাদি অ্যাম্বেসিতে বহন নিষিদ্ধ। তাই এমন কিছু সাথে রাখা থেকে বিরত থাকুন।
  • প্রবেশের পর অ্যাম্বেসি প্রাঙ্গন থেকে আপনি নানা নির্দেশিকা দেখতে পাবেন। তা অনুসরণ করে “চেক ইন”করে তাদের নির্দেশনা মোতাবেক আপনার জন্য নির্ধারিত কক্ষে গিয়ে অপেক্ষা করুন এবং সাম্প্রতিক পাসপোর্ট,সাক্ষাৎকারের চিঠি, DS-160 ফরমের কপি, রসিদ হাতের কাছের রাখুন। যাতে চাওয়া মাত্র তাদের হস্তান্তর করতে পারেন। যদি একের অধিক(পুরনো) পাসফোর্ট থাকে তবে সাথে কিন্তু আলাদা করে রাখুন।
  • কনসাল অফিসার যা চাইবেন শুধুমাত্র তাই দিবেন। অতিরিক্ত কোন কাগজ দিবেন না।
  • ফিঙ্গারপ্রিন্টের জন্য হাত পরিষ্কার ও শুকনো রাখুন।) ফিঙ্গারপ্রিন্ট শেষে ধৈর্য্য সহকারে অপেক্ষা করুন যতক্ষণ না সাক্ষাৎকারের জন্য ডাকা হয়।

সাক্ষাৎকারে যা মনে রাখতে হবে

  • কোন প্রকার ভুয়া,জাল,বানানো দলিল,কাগজ অফিসারকে দিবেন না। কেননা এটি প্রমাণিত হলে এর জন্য আপনাকে দোষী সাব্যস্ত হবে,ভিসা বাতিল হবে। এমন কি স্থায়ী ভাবে আবেদন অযোগ্য করা হবে।
  • অফিসার আপনার ব্যক্তিগত, পেশাগত ও সামাজিক নানা দিক নিয়ে প্রশ্ন করবে। উত্তর এমন ভাবে দিন যাতে বিস্তারিত তথ্য থাকে এবং অপ্রাসঙ্গিক কিছু না থাকে।
  • কনসাল অফিসার যে সিদ্ধান্ত নিবেন। তাতে আপনি একমত হতে না পারলেও তর্কে যাবেন না। কেননা পুনরায় আবেদনের সুযোগ রয়েছে।
  • মনে রাখবেন সকল কনসাল অফিসার বাংলা জানেন এবং বুঝেন। বেফাঁশ কোন কথা বলবেন না। যেহেতু সব কিছু ক্যামেরাতে পর্যবেক্ষণ করা হয় তাই অশোভন কোন কাজ করবেন না।

সাক্ষাৎকারের পরে

  • আপনি যোগ্য বিবেচিত হলে অফিসার আপনাকে সকল দিক নির্দেশনা দিবেন কিভাবে , কখন, কোথা থেকে ভিসা সংযুক্ত পাসফোর্ট বুঝে নিবেন। অযোগ্য হলে সাথে সাথে ফিরিয়ে দেয়া হবে।
  • আবেদন যদি পরিবার ভিত্তিক হয় তবে পাসপোর্ট নিতে সবার যাওয়ার দরকার নেই। যেকোন একজন সদস্য সকল পাসপোর্ট গ্রহণ করতে পারবেন।
  • কেউ যদি স্বশরীরে আসতে না পারেন তবে তার অনুমোদিত ব্যক্তি তার হয়ে পাসপোর্ট নিতে পারবে। তবে এর জন্য আপনাকে সাক্ষাৎকার শেষে অথোরাইজ ফরমে ঐ ব্যক্তির নাম উল্লেখ করে স্বাক্ষর করে যেতে হবে।

তথ্যসূত্রঃ http://dhaka.usembassy.gov/instructions_before_interview.html

আরো পড়ুন

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।