যে পাঁচটি কাজ করে বন্ধুদের বিরক্তি দূর করতে পারেন আপনি

10374340_704172559628787_562939656_nদিনের প্রতিটা ক্ষণেই কখনো না কখনো বন্ধুর সাথে আড্ডা দিচ্ছেন আপনি। কলেজে, ভার্সিটিতে, অফিস শেষে কিংবা পাড়ার চায়ের দোকানটাতে বসে। বন্ধুরা আপনার সাথে কথা বলছে, হাসছে ঠিকই। কিন্তু আপনি জানেনই না আপনার কিছু আচরণে বন্ধুরা হচ্ছে বিরক্ত। আসুন জেনে নিই কিভাবে দূর করবেন সেই পাঁচটি আচরণ।

১) মুখের দুর্গন্ধ দূর করুনঃ
বিভিন্ন কারণে আমাদের মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে। পেটে গ্যাস থাকলে, দাঁতের কোন সমস্যা হলে, ঠিকভাবে ব্রাশ না করলে আবার ধূমপানের কারণেও দুর্গন্ধ সৃষ্টি হতে পারে। এটা হয়তো বন্ধুরা আপনাকে বলছে না ঠিকই। কিন্তু আপনার সাথে কথা বলার সময় তারা অস্বস্তিতে ভুগছে। তাই আপনার মুখে দুর্গন্ধ আছে কিনা এবং কি কারণে এই দুর্গন্ধের উৎপত্তি তা জেনে আজই ব্যবস্থা নিন।

২) দূর করুন শরীরের দুর্গন্ধঃ
এটা ঠিক যে নিজের শরীরের গন্ধ নিজের তেমন অনুভব হয় না। তবে আপনার শরীরের ঘামের গন্ধ বিরক্তির কারণ হতে পারে আপনার বন্ধুর। আবার অনেকে প্রচুর ঘামে। এতে পারফিউম ব্যবহারের পরও তাদের শরীরে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। তাই শরীরের দুর্গন্ধ দূর করতে আপনাকে অবশ্যই নিয়মিত গোসল করতে হবে, ঘেমে গেলে ঐ পোশাক দ্রুত পাল্টিয়ে ফেলতে হবে। সাথে বডি স্প্রে, ডিওডরেন্ট বা যে কোন সুগন্ধি ব্যবহার করতে হবে।

৩) খোলা মুখে হাঁচি দিবেন নাঃ
হাঁচি আসলে মুখে হাত বা রুমাল চেপে হাঁচি দেয়ার নিয়ম। কিন্তু অনেকেই এই কাজটা করে না। বন্ধুদের সাথে কথা বলতে বলতেই অনেকে বিকট শব্দে হাঁচি দিয়ে ফেলে। এতে আপনার বন্ধুরা যেমন বিরক্ত হয় তেমনি আপনার মাধ্যমে কিন্তু রোগ জীবাণুও ছড়িয়ে পড়ছে। সুতরাং হাঁচি দেয়ার সময় অবশ্যই একপাশে গিয়ে নাকে মুখে হাত দিয়ে হাঁচি দিবেন। এতে যেমন রোগ জীবাণু ছড়াবে না তেমনি আপনার বন্ধুরাও বিরক্ত হবে না।

৪) কারো শারীরিক ত্রুটি নিয়ে খোঁচা দিবেন নাঃ
শারীরিক ত্রুটির উপর মানুষের কোন হাত নেই। অনেকেরই জন্ম থেকে কোন শারীরিক ত্রুটি থাকতে পারে বা পরে কোন দুর্ঘটনার কারণে শারীরিক ত্রুটির সৃষ্টি হতে পারে। এই ব্যাপারটা নিয়ে শারীরিক ত্রুটি সম্পন্ন ব্যক্তি মনে মনে নিজেই অনেক কষ্টে থাকে। সেই ক্ষেত্রে ঐ ত্রুটি নিয়ে রসিকতা করা বা খোঁচা দেয়াটা অনুচিত কাজ। এতে আপনার সেই বন্ধু যেমন কষ্ট পাবে তেমনি অন্যান্য বন্ধুরাও আপনাকে কিন্তু ভাল চোখে দেখবে না। তাই এই ধরণের কাজ করা থেকে বিরত থাকুন।

৫) ছোটখাটো ধার মনে রাখুনঃ
চলতে ফিরতে বিভিন্ন কাজে আমরা বন্ধুদের নিকট টাকা ধার করে থাকি। হয়তো রিকশা ভাড়া ভাংতি নেই আবার হয়তো মোবাইলে রিচার্জ করবেন, কখনো বা নোট ফটোকপি করলেন। কখনো বিশ টাকা, কখনো পঞ্চাশ টাকা ধার করলেন। টাকার পরিমাণটা যেহেতু অল্প ব্যাপারটা আপনার মনেই থাকলো না। কিন্তু আপনার বন্ধু হয়তো ব্যাপারটা মনে রেখে দিল। অল্প টাকা দেখে সে হয়তো আপনাকে মুখ ফুটে কিছু বলতেও পারছে না। ভেবে দেখুন তো ব্যাপারটা কেমন অস্বস্তিকর। তাই এসব ছোটখাটো ধার মনে রাখুন। মনে রাখার জন্য মোবাইলের ড্রাফটে বা ডাইরিতে লিখে রাখতে পারেন।

প্রতিটা ব্যাপারই আপাতদৃষ্টিতে খুব সাধারণ মনে হতে পারে। কিন্তু নিজেকে দিয়েই ভেবে দেখুন না আপনার বন্ধুর এই ধরণের কোন আচরনে আপনি নিজে বিরক্ত হয়েছেন কিনা। তাই আজ থেকেই ব্যাপারগুলি নিয়ে চিন্তা করেন। এর কোন একটা যদি আপনার মধ্যে থাকে ঝেড়ে ফেলুন তা। বন্ধু মহলে হয়ে উঠুন জনপ্রিয়।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার,গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।