শীতে পা ফেটে যাওয়া নিয়ে আর দুশ্চিন্তা নয়, জেনে নিন এর ঘরোয়া প্রতিকার

feetশীতকালে আরও অনেক সমস্যার পাশাপাশি পা ফাটা নিয়েও ঝামেলায় পড়েন অনেকেই। ফাটা পায়ে জ্বালা-পোড়া আর ব্যথা তো আছেই, সেই সাথে যুক্ত হয় পায়ের সৌন্দর্য্যহানীও। শীতে পা ফাটা (cracked feet) ও এর ঘরোয়া প্রতিকার (healing) নিয়ে বিস্তারিত থাকছে এই লেখায়।

পা কেন ফাটে? (causes of cracked feet)

শুধুমাত্র শীতকাল ছাড়াও আরও অনেক কারণে আমাদের পা ফেটে যেতে পারে।

  • যদি কারো পা প্রাকৃতিক ভাবে শুষ্ক হয় তবে ফেটে যেতে পারে, কারণ পা ফাটা রোধের অন্যতম উপায় হচ্ছে একে আর্দ্র রাখা।
  • দীর্ঘ সময় কোন শক্ত স্থানে দাঁড়িয়ে থাকলে পা ফেটে যেতে পারে।
  • শরীরের অতিরিক্ত ওজন (overweight) পা ফাটার অন্যতম কারণ। এ সময় পা’কে শরীরের স্বাভাবিক ওজনের পাশাপাশি অতিরিক্ত ওজনও বহন করতে হয় ফলে পা ফেটে যেতে পারে
  • ডায়াবেটিস বা থাইরয়েডে সমস্যা হলে পা ফেটে যেতে পারে
  • বয়স বৃদ্ধির কারণেও (aging) পা ফাটতে পারে

পা ফাটা রোধে ঘরোয়া প্রতিকার (home remedies to treat cracked feet quickly)

পা ফাটা সমস্যার সমাধান ঘরে বসেই করে ফেলা যায়। প্রয়োজন শুধু সামান্য কিছু উপকরণ এবং ধৈর্য।

১. স্পেশাল ফুট মাস্ক (special foot mask)

একটি বড় পাত্রে হালকা গরম জলে এক চামচ লবণ, কয়েক টেবল চামচ লেবুর রস, ১-২ চামচ গ্লিসারিন এবং গোলাপ জল ভালভাবে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণে দুই পা কমপক্ষে ১৫-২০ মিনিট ডুবিয়ে রাখুন। পা নরম হয়ে আসলে ফেটে যাওয়া চামড়ার অংশ ফুট স্ক্রাবার দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করে ফেলুন।

২. পাকা কলা (ripe banana)

পাকা কলা পা ফাটা সারিয়ে তুলতে পারে। পাকা কলা ভালভাবে চটকে পেস্টের মত তৈরি করুন। প্রতি রাতে ঘুমানোর আগে এই পেস্ট পায়ের ফাটা অংশে লাগান। কিছুদিনের মধ্যেই পা ফাটা সেরে যাবে।

৩. নিয়মিত তেল ব্যবহার (regular oil massage)

পা যদি ঘন ঘন ফেটে যাওয়ার প্রবণতা থাকে তবে একে নিয়মিত যত্ন নিতে হবে। এক্ষেত্রে পায়ের আর্দ্রতা বজায় রাখার জন্য তেল লাগাতে পারেন। অলিভ অয়েল এবং কাঠবাদাম তেল পায়ে মাখলে পা ফাটা ও জ্বালা পড়া দ্রুত সেরে যায় এবং ভবিষ্যতে পা ফাটার প্রবণতা হ্রাস পায়। তবে তেল অবশ্যই রাতে ঘুমানোর আগে লাগাতে হবে।

৪. ভ্যাসলিন ও লেবুর রসের মিশ্রণ (vaseline and oil juice mixture)

পা ফাটা রোধের অনন্য সমাধান হতে পারে ভ্যাসলিন ও লেবুর রসের মিশ্রণ। হালকা গরম পানিতে ১৫-২০ মিনিট পা ভিজিয়ে রাখুন। পা নরম হয়ে আসলে এতে এক চামচ পরিমাণ ভ্যাসলিন এবং ২-৩ টেবিল চামচ লেবুর রসের মিশ্রন লাগান। মিশ্রণটি এমন ভাবে লাগাবেন যেন তা পায়ের সব ফাটা স্থানে প্রবেশ করে।

৫. মধু (honey)

পা ফাটে রোধে মধু কার্যকর ভূমিকা রাখে। আধা বালতি গরম পানিতে কিছুটা মধু মিশিয়ে এতে ১৫ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন। পা নরম হয়ে আসলে ধীরে ধীরে ফাটা চামড়াগুলো ফুট স্ক্রাবারের সাহায্যে তুলে নিন।

এ ধরণের আর লেখা পড়ুন

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য ও রূপচর্চা বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য অথবা রূপচর্চা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য/ রূপচর্চা সংক্রান্ত যেকোন তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের/বিউটিশিয়ানের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।