ভয়কে জয় করুন, আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠুন

How To Deal With Fearপ্রত্যেক মানুষের কোন না কোন কিছু নিয়ে ভীতি (fear) থাকে। যেমন-রক্তের, সুঁইয়ের, কুকুরের, গাড়ি চালানো ইত্যাদি। ভীতি দূর করার ফলফসূ উপায় হলো “ভীতির মুখোমুখি” হওয়া। যার পানিতে সাঁতার কাটতে ভয় লাগে। সে যদি এক সপ্তাহে পা হাটু পানিতে ডুবিয়ে রাখে,পরের সপ্তাহে শরীর ভেজান, ধীরে ধীরে এক দুইটা ডুব দেন, এভাবে এক সময় তার সাঁতার ভীতি কেটে যাবে।

যেভাবে ভয়কে জয় করবেন (how to deal with fear)

ভয়কে জয় করতে ভয়ের কাজটি বার বার চর্চা করে যেতে হবে। যতক্ষণ না মনের জড়তা, উৎকন্ঠা, আতংক কাটে। যেমন-গাড়ি চালাতে চাইছেন কিন্ত ভয় আঁকড়ে আছে। কি করবেন? প্রথমে ড্রাইভারের পাশে বসে দেখতে হবে কিছুদিন ক্রমান্বয়ে। তারপর এক-দুই দিন নিজে নিজে ড্রাইভিং সিটে বসে কল্পনা করবেন আপনি চালাচ্ছেন। আশে-পাশের যন্ত্র গুলো স্পর্শ করবেন। এরপর সাথে অভিজ্ঞ কাউকে পাশে বসিয়ে সাহস করে চাবি ঘুরিয়ে দিলেন। ব্যাস, ঐদিনই আপনার অর্ধেক ভয় হাওয়া হয়ে যাবে।জানা যাক আরো কিছু পন্থা।

তালিকা তৈরী করা

যেসব বিষয়ে ভীতি কাজ করে প্রথমেই তার তালিকা বানাতে হবে। তারপর বিষয়ের সংশ্লিষ্ট কিছু পরিকল্পনার তালিকাও করতে হবে। যেমনঃকুকুরের ভীতি থাকলে তালিকায় -কুকুরের ছবি দেখা, দূরত্ব রেখে শিকল বাঁধা কুকুরের পাশে দাঁড়ানো, কুকুর ছানার কাছাকাছি যাওয়া ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

ভয়ের মান নির্ধারণ করা

ভীতি মোকাবেলা করতে কোন বিষয়ে ভয় বেশি,কখন ভয় মোটামুটি পর্যায়ে থাকে,কোন অবস্থায় ভয় কম বা থাকে না। এইরকম একটা মান নির্ধারনী তালিকা তৈরী করতে হবে উপর থেকে নিচের দিকে। যেমন- সুঁইয়ের ভীতির ক্ষেত্রে=শিরা থেকে রক্ত নেয়া-বেশি ভয়-মান-১০, হাতে-পায়ে ইঞ্জেকশন নেয়া- মাঝারি ধরণের ভয়- মান ৯, সুঁই হাতে ধরা-কম ভয়- মান-৭, সুঁইয়ের ছবি দেখা-ভয় শূন্য

মুখোমুখি হওয়া

ভয়ের মান ও সংখ্যাতাত্ত্বিক হা্রের তালিকা তৈরী করে ধীরে ধীরে নিচের দিক থেকে এক একটি ধাপ সম্পন্ন করতে হবে। যেমন- আজ সুঁই হাতে ধরে ৫ মিনিট থাকলেন, কাল ১০মিনিট। এভাবে সুঁই হাতে ধরার ভীতি চলে যাবে। এরপর অন্য ধাপে যেতে হবে। এক সময় সব স্তর পার হয়ে যাবেন।

অনুশীলন চালিয়ে যাওয়া

একমাত্র চেষ্টা ,পরিকল্পনা আর মুখোমুখি হওয়া মাধ্যমে ভীতি জয় করা সম্ভব।তাই যতক্ষন ভয়ের লেভেল শূন্যের কোঠায় না নামে অনুশীলন বন্ধ করা যাবে না।

নিজেকে পুরষ্কৃত করা

যখন আপনি একটি কাজের ভীতি দূর করবেন। সাথে সাথে নিজেকে বাহবা দিবেন ”আপনি পেরেছেন,পারবেন”। নিজেকে নিজে পুরষ্কার দিবেন। যেমন-বাইরে খেতে যাওয়া,মুভি দেখতে যাওয়া ইত্যাদি। যা আপনাকে আত্মবিশ্বাস যোগাবে।

বিশেষ টিপস

অনেকে আছেন রক্ত দেখে জ্ঞান হারান। মূলত রক্ত ভীতির কারণে আতংকে,উত্তেজনায় হার্ট রেট ও রক্তচাপ হঠাৎ হ্রাস পেয়ে এমনটা হয়। এক্ষেত্রে একটি কৌশল খুব কার্যকরী। সেটি হচ্ছে- যখনোই এমন অবস্থার সম্মুখীন হতে হয় তখন দেহের অভ্যন্তরীণ পেশীকে টান টান ভাব রাখা। এতে করে রক্তচাপ স্বাভাবিক থাকে। চেয়ারে বসে হাত, পা, মধ্যশরী্রের পেশী সমূহ টান টান করে থাকলে ১০-১৫ সেকেন্ডের মধ্যে মাথায় উষ্ণ ভাব অনুভব হওয়ার সাথে সাথে সেই টান টান ভাব হালকা করে ফেলতে হবে, তবে ছেড়ে দেয়া যাবে না। তারপর ২০-৩০সেকেন্ড বিশ্রাম নিয়ে আবার শুরু করতে হবে। এভাবে পাঁচ বার করতে হবে।

কিন্তু এটা করার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। আশা করা যায় এতে আপনার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নিজের মাঝে আর ভয় কাজ করবে না।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।