এড়িয়ে চলুন অন্যের বাজে মন্তব্য

How to Deal with Bad Comment Wellকটূক্তি বা বাজে মন্তব্য (bad comment) যেকোনো সময় যে কারও পক্ষ থেকে আসতে পারে। হতে পারে সেটা পরিবারের কারও কাছ থেকে, বন্ধুদের কারও কাছ এবং সহকর্মীদের কাছ থেকেও। সত্যি বলতে সমালোচক সব সময় ই আমাদের চারপাশে অবস্থান করে। ইতিবাচক সমালোচনা আনন্দের হলেও নেতিবাচক সমালোচনা আমাদের মানসিকভাবে সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত করে ফেলতে পারে।

কি করবেন?

  • একমাত্র সমালোচনাই আপনাকে সঠিক মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সাহায্য করে। তাই কেউ যখন আপনাকে নিয়ে কটূক্তি করবে সেটা নেতিবাচকভাবে না নিয়ে ইতিবাচকভাবে নিতে শিখুন।
  • প্রায় প্রত্যেক সমালোচনার পেছনে একটি না একটি কার্যকর অনুপ্রেরণা লুকায়িত থাকে। আপনাকে কেবল সেই অনুপ্রেরণাটি খুঁজে বের করতে হবে। দেখবেন কটূক্তি আপনাকে কষ্ট না দিয়ে বরং প্রেরণা দেবে।
  • যখনই কেউ আপনার বিরুদ্ধে কটূক্তি করছে তখন সে নিশ্চয় আপনার কোন না কোন সফলতা বা গুণের কারণে ঈর্ষা বোধ করছে। আর তাই কটূক্তির বিপরীতে রেগে না গিয়ে মৃদু হেসে তা উপভোগ করুন।
  • কটূক্তি আপনাকে মানসিকভাবে আরও দৃঢ় করতে সাহায্য করে। কোন মানুষ আপনার বিরুদ্ধে কোন কটূক্তি করলে সেটা সামাল দিতে আপনাকে বেশ কষ্ট সাধন করতে হয় যা কিনা পরবর্তীতে আপনাকে আরও বড় বড় মানসিক বিপর্যয় থেকে বাঁচাবে।
  • কটূক্তি আপনাকে শেখায় মানুষের সাথে কিভাবে মিশবেন। অল্প পরিচয়ে যখন আপনি কাউকে আপনার নিজের জমানো কথাগুলো শেয়ার করেন তখন সুযোগ পেলেই সেই মানুষ আপনাকে আপনার দুর্বলতা নিয়ে কথা শোনাতে পিছপা হবে না। আর এটি আপনাকে শেখাবে কিভাবে অন্যর সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।
  • অন্যরা কটূক্তির মাধ্যমে আপনার দুর্বলতা গুলো আপনার চোখের সামনে তুলে ধরতে সাহায্য করবে। যা আপনার জীবনের সঠিক দিক নির্দেশনা দেবে। তাই কটূক্তিকারীকে তার প্রাপ্য পাওনা হিসেবে একটি ধন্যবাদ দিতে ভুলবেন না।

কথায় আছে আগুনে পুড়ে সোনা খাঁটি হয়, সেই একইভাবে একজন মানুষও অন্যের সমালোচনা বা কটূক্তির মাধ্যমেই জীবনে সামনে এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা পায়।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।