ওয়ার্ডপ্রেসে ল্যান্ডিং পেইজ তৈরির কিছু পদ্ধতি

How-to-Create-a-Landing-Page-in-WordPressv2

ল্যান্ডিং পেইজ (landing page)

সাধারণ ভাষায় ল্যান্ডিং পেইজেকে বলা যেতে পারে একটি ওয়েবসাইটের প্রবেশ পথ। এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে ভিজিটরদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা এবং তাদের কোন কাজ করতে উৎসাহিত করা। সেই কাজগুলো হতে পারে ওয়েবসাইট সাবস্ক্রাইব করা, কোন নির্দিষ্ট বাটন বা লিংকে ক্লিক করা অথবা কোন পণ্য কিনতে উৎসাহিত করা।
ওয়ার্ডপ্রেসেও বিভিন্ন ভাবে ল্যান্ডিং পেইজ তৈরি করা যায়। এমনই কিছু পদ্ধতির বর্ণনা আছে এই লেখাটিতে।

প্লাগ-ইন (plugins)

আজকাল ওয়ার্ডপ্রেসের বেশিরভাগ কাজের জন্যই প্লাগ-ইন পাওয়া যায়। যদি আপনি কোডিং এর পেছনে বেশি শ্রম না দিয়ে স্বল্প সময়ে ল্যান্ডিং পেইজ তৈরি করতে চান তাহলে প্লাগ-ইন এ ক্ষেত্রে আপনার জন্য সহায়ক হবে। ওয়ার্ডপ্রেসের অফিশিয়াল ডিরেকটরিতে কিছু ফ্রি প্লাগ-ইন আছে যা ল্যান্ডিং পেইজ তৈরিতে সাহায্য করতে সক্ষম। তবে সাধারণত দেখা যায় এসব প্লাগ-ইনে আপনি খুব বেশি সুবিধা পাচ্ছেন না, বা অতি প্রয়োজনীয় বেশ কিছু ফিচার সেই প্লাগ-ইনে নেই যা ল্যান্ডিং পেইজ তৈরিতে অপরিহার্য।

তবে  WordPress Landing Pages  নামের এই প্লাগ-ইনটিতে আপনি বেশ কিছু ফিচার পাবেন যা ল্যান্ডিং পেইজ তৈরিতে আপনাকে অনেক সাহায্য করবে। আর এই প্লাগ-ইনটির প্রধান সুবিধা হচ্ছে এটি ফ্রি এবং ব্যবহার করা খুবই সহজ।

ড্র্যাগ এন্ড ড্রপ থিম বিল্ডার (drag and drop theme builders)

ল্যান্ডিং পেইজ দেখতে একটি ওয়েব সাইটের অন্যান্য সকল পেইজ থেকে ভিন্ন হয়। এই ভিন্নতা আনার জন্য যে সকল পরিবর্তন আপনি করতে চান, দেখা যায় বেশিরভাগ ওয়ার্ডপ্রেস থিমই তা করার জন্য আপনাকে অনুমতি দেয় না। আর দিলেও অনেক জায়গায় বিভিন্ন শর্তাবলী দিয়ে রাখে যা মেনে চলতে গেলে ল্যান্ডিং পেইজটি আপনার মনের মত হবে না।

ড্র্যাগ এন্ড ড্রপ বিল্ডার কিছু কিছু উন্নতমানের থিমে সংযুক্ত থাকে যা আপনাকে কোন পেইজের ডিজাইন যেভাবে ইচ্ছা কাস্টমাইজ করার সুবিধা দেয়। এখানে কিছু খুব জনপ্রিয় ড্র্যাগ এন্ড ড্রপ থিম বিল্ডারের তালিকা দিয়ে দিচ্ছি যা আপনার ল্যান্ডিং পেইজ তৈরির কাজকে সহজ করে তুলবে।

১. VelocityPage
মূল্যঃ ৯৭-২৪৭ ডলারvelocitypage

২. Divi
মূল্যঃ ৬৯ ডলারdivi

৩. Strata
মূল্যঃ ৫৫ ডলারstrata

৪. Enfold
মূল্যঃ ৫৫ ডলারenfold

৫. Unyson Framework
মূল্যঃ ফ্রিUnyson

এছাড়াও আরও বেশ কিছু বিখ্যাত ড্র্যাগ এন্ড ড্রপ থিম বিল্ডারের তালিকা পেতে চাইলে এই আর্টিকেলটি দেখুন।

লিড পেইজেস (lead pages)

যদি খুব ভাল মানের একটি ল্যান্ডিং পেইজ চান নিজের ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের জন্য তাহলে লিড পেইজেস হতে পারে আপনার অন্যতম পছন্দের দাবীদার। এর অসাধারণ সব ফিচার ইতিমধ্যেই অসংখ্য মানুষের আস্থা দখল করে নিয়েছে। লিড পেইজেস এর টুলসগুলো ব্যবহার খুবই সহজ। যদি সময় অপচয় না করে কোয়ালিটি ল্যান্ডিং পেইজ তৈরি করতে চান তাহলে বিনিয়োগ করুন লিড পেইজেস এ। প্রতি মাসে ৩৭ ডলার থেকে এর প্ল্যান শুরু হয়।

লিড পেইজেস হ্যাকিং (lead pages hacking)

লিড পেইজেস কিছু সময় পর পরই নতুন নতুন HTML টেম্পলেট উন্মোচন করে। যে কেউই লিড পেইজেস এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে এসব টেম্পলেট ডাউনলোড করে ব্যক্তিগত প্রজেক্টে ব্যবহার করতে পারে। তবে এই টেম্পলেটগুলো HTML ফরম্যাটে আছে, তাই একে ওয়ার্ডপ্রেসে ব্যবহার উপযোগী করতে তুলতে হলে নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবেঃ

১. প্রথমে গুগল করুন এটি লিখে download site:blog.leadpages.net এতে আপনি বেশ কিছু ডাউনলোড করার মত টেম্পলেট পেয়ে যাবেন।

২. ডাউনলোড করার পর index.html ফাইলটি age-landing-template.php দিয়ে রিনেইম করে নিন।

৩. ফাইলটি নিচের মত করে এডিট করুন-

  • সবার উপরে রাইট ক্লিক করে এই লাইনটি লিখুন
  • সব এক্সটারনাল ফাইলের পাথ পরিবর্তন করে আপনার বর্তমান থিমের পাথ যুক্ত করুন। উদাহরণ স্বরূপ, এই ধরণের একটি লিংক পরিবর্তিত হয়ে হয়ে যাবে এমন /css/style.css”>code11
  • আর ক্লোজিং এর পুর্বে tag add:
    <?php wp_footer(); ?>

৪. এবার টেম্পলেটটি আপনার FTP সার্ভারে যেখানে বর্তমান থিমটি আছে সেখানে আপলোড করে দিন।

ম্যানুয়ালি কাস্টম পেইজ টেম্পলেট বানিয়ে নিন (manually built custom page template)

ওয়ার্ডপ্রেসে ল্যান্ডিং পেইজ বানানোর এটি বেশ পুরানো পদ্ধতি। যে থিমই ব্যবহার করেন না কেন, আপনি সব সময়ই এর জন্য কাস্টম পেইজ টেম্পলেট তৈরি করতে পারবেন এবং একে পছন্দমত সাজিয়ে নিতে পারবেন।
কাস্টম পেইজ টেম্পলেট এর মাধ্যমে ল্যান্ডিং পেইজ বানানোর সবচেয়ে সহজ পদ্ধতিটি হচ্ছে এর ডিফল্ট page.php টেম্পলেটি নিয়ে এর CSS/HTML স্ট্রাকচারে বিভিন্ন পরিবর্তন সাধন করা।
উদাহরণস্বরূপ আমরা ওয়ার্ডপ্রেসের ডিফল্ট থিম Twenty Fourteen নিয়ে খুব সহজেই এর ডিফল্ট লেফট-সাইড বার, হেডার, ফুটার সহ যা ইচ্ছা বাদ দিতে পারি। দেখুন কিভাবে এটি করা যায় –

১. প্রথমে ডিফল্ট page.php ফাইলটি নিয়ে কপি করুন এবং এর নাম দিন page-lp-example.php.

২. এর পর ডিফল্ট header.php এবং footer.php ফাইলগুলো নিয়ে এর কপি করুন এবং নাম দিন (header-lp-example.php and footer-lp-example.php)

৩. page-lp-example.php এ ডিফল্ট get_header এবং get_footer পরিবর্তন করুন এভাবে

get_header(‘lp-example’); and get_footer(‘lp-example’);

৪. page-lp-example.php থেকে get_sidebar(); সাইডবারটি রিমুভ করে দিন

৫. এবং সবশেষে এই ফাইলগুলো থেকে অপ্রয়োজনীয় HTML ব্লকগুলো রিমুভ করে দিন এবং টেম্পলেটটি LP Example নামে সেভ করুন।

ইফেক্টটি দেখুন –lp-example2

এখানে ফাইনাল ফাইলের কোডগুলো দেয়া হলোঃ

<DOCTYPE html>
<--[if IE 7]>
> <[endif]-->
<--[if IE 8]>
> <[endif]-->
<--[if (IE 7) & (IE 8)]><-->
> <--<[endif]-->
<?php wp_title( '|', true, 'right' ); ?> <--[if lt IE 9]>

<[endif]-->

page-lp-example.php:
<-- #content -->
<-- #primary -->
<-- #main-content -->
footer-lp-example.php:
<-- #main -->
<-- .site-info -->
<-- #colophon -->
<-- #page -->

ল্যান্ডিং পেইজকে আকর্ষনীয় করে তুলুন

যদিও ল্যান্ডিং পেইজ যতটুকু সম্ভব সাধারণ করা বাঞ্ছনীয়, তারপরেও পাঠককে সঠিক নির্দেশনা দেয়ার জন্য এতে বিভিন্ন বাটন, লিংক, টেস্টিমোনিয়ালস যুক্ত করতে হয়। এই কাজগুলো আপনি ফটোশপ বা CSS/HTML দিয়েও করতে পারেন। কিন্তু আপনার কাজকে সহজ করে তুলতে পারে Shortcodes Ultimate । এই প্লাগ-ইনটির সাহায্যে আপনি বিভিন্ন বাটন, এনিমেশন ইত্যাদি ল্যান্ডিং পেইজে সহজে যুক্ত করতে পারবেন।

ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে আরও লেখা পড়ুন

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।

তথ্যসূত্রঃ codeinwp.com