প্রতিদিনের কাজে নারীদের স্ট্যামিনা বাড়াতে কয়েকটি পরামর্শ

woman staminaস্ট্যামিনা (stamina) আমাদের জীবনের প্রতিটি মুহূর্তগুলো সুন্দরভাবে উপভোগ করতে প্রত্যক্ষভাবে সাহায্য করে। এর ঘাটতি আমাদের জীবনযাপন ক্লান্তিময় আর অসহনীয় করে তোলে। এর কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা যায় মানসিক অবসাদ, হতাশা, খাবার দাবারে অনিয়ম, হরমোনজনিত সমস্যাগুলোকে।

যদিও নারী পুরুষ নির্বিশেষ সবারই স্ট্যামিনা বাড়িয়ে তোলার দরকার আছে তবে এখানে নারীর প্রতিদিনের জীবনযাপন সুন্দরভাবে উপভোগ করতে ৩ টি উপায় দেওয়া হল।

  • হালকা ব্যায়াম করুন (exercise)দিনে অন্তত ২০ মিনিট সময় বের করে নিন হালকা ব্যায়ামের জন্য। যেমন হাঁটা, দৌড়ানো, সাঁতার কাঁটা এইসব হালকা ব্যায়াম একজন নারীর স্ট্যামিনা বাড়াতে বেশ ভালো ভূমিকা রাখে।
  • সঠিক খাদ্য তালিকা তৈরি করুন (proper diet)একটি সঠিক খাদ্য তালিকা প্রস্তুত করুন। সেখানে বেশী বেশী ফল আর সবজি জাতীয় খাবার রাখুন। বাইরের তৈরি খাবার, ক্যাফেইন ও অতিরিক্ত সুগার গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকুন। শরীর সুস্থ রাখতে নারীদের জন্য তৈরি ম্যাল্টিভিটামিন(women’s multivitamin) গ্রহণ করুন, সঠিক মাত্রায় আয়রন ও ক্যালসিয়াম নিশ্চিত করুন। কেননা নারীর শরীরে এই দুটো উপাদানের অভাব তাকে দ্রুত ক্লান্ত করে তোলে ও চেহারায় নিয়ে আসে বার্ধক্যের ছাপ।
  • রাতে পর্যাপ্ত ঘুমান (sound sleep)রাতে কমপক্ষে ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুমান। ঠিকঠাক না ঘুমানো স্ট্যামিনা ঘাটতির অন্যতম কারণ। আপনি  রাতে আরাম করে আর নিশ্চিন্তে না ঘুমালে পরের দিনটি এমনিতেই ক্লান্তিকর হবে।

এছাড়া সারা দিনের কাজের ফাঁকে ফাঁকে অল্প করে বিশ্রাম নিন, এতে করে কাজের চাপ আপনার উপর প্রভাব ফেলতে পারবেনা। প্রতিদিন এই সামান্য কয়েকটি নিয়ম মেনেই দেখুন আপনার স্ট্যামিনা (stamina) বাড়ার সাথে সাথে জীবনের প্রতিটি কাজে আনন্দ খুঁজে পাবেন আর সময়গুলো হয়ে উঠবে উপভোগ্য।

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য ও রূপচর্চা বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য অথবা রূপচর্চা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য/ রূপচর্চা সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের/বিউটিশিয়ানের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।