যে লক্ষণগুলো দেখে বুঝবেন আপনার বাচ্চা কানে কম শুনছে

Hearing Loss in Childrenএকটি বাচ্চার জন্য শ্রবণশক্তি তার সুষ্ঠুভাবে বেড়ে একটি অপরিহার্য চাহিদা। বাবা মা হিসেবে আপনার বাচ্চা যে কানে কম শুনছে এটি আপনারই প্রথম নজরে আসার কথা। একটু সচেতনভাবে আপনার বাচ্চার প্রতি লক্ষ্য করলেই বুঝতে পারবেন সে কানে কম শোনা সমস্যায় (pediatric hearing loss) আক্রান্ত কিনা। আর যত তাড়াতাড়ি আপনি তা সনাক্ত করতে পারবেন আপনার বাচ্চার জন্য ততবেশি ভালো।

যে লক্ষণগুলো দেখে বুঝবেন আপনার বাচ্চা কানে কম শুনছে কিনা (symptoms of child hearing loss)

৪ মাস বয়সে (Birth to 4 months)

• জোরে কোন কিছুর শব্দেও সে কোন প্রতিক্রিয়া দেখাবে না।
• পরিবারের পরিচিত কণ্ঠস্বর শুনেও স্থির থাকবে।
• আপনার ডাকে সারা দিয়ে হাসবে না এমনকি তাকাবেও না।

৪ থেকে ৯ মাস বয়সে (4 to 9 months)

• আশেপাশে মা অথবা বাবার সাড়া পেয়েও ঘুরে তাকাবে না।
• বাচ্চাসুলভ কথা বা শব্দ করার সময় হাসবে না।
• ঝুমঝুমি বা শব্দ উৎপন্ন করে এমন কোন খেলনার সাথে খেলতে গিয়েও কোন প্রতক্রিয়া দেখাবে না।
• আপনার কথার থেকে হাত বা অন্যান্য শারীরিক ইঙ্গিততে বেশী সাড়া দেবে।

৯ থেকে ১৫ মাস বয়সে (9 to 15 months)

• নাম ধরে ডেকেও বাচ্চার দিক কোন সাড়া পাবেন না।
• আপনার গলার স্বর বদলে কথা বলাতেও বাচ্চার মধ্যে কোন পরিবর্তন আসবে না।
• খেয়াল করে দেখুন সে আপনাকে অন্য বাচ্চাদের মতো বাবা অথবা মা বলে ডাকছে কিনা।
• অন্যান্য বাচ্চার মতো আপনার বলা শব্দ বা কথা অনুকরণ চেষ্টা করবে না।

১৫ থেকে ২৪ মাস বয়সে (15 to 24 months)

• স্বাভাবিক বাচ্চাদের মতো গল্প, গান বা ছড়ার প্রতি আগ্রহ প্রকাশ পাবে না।
• খেয়াল করে দেখুন আপনার সাধারণ নিষেধ, মানা বা আদেশ কোনটা অনুসরণ করছে কিনা।
• যেখানে এই বয়সে অন্যান্য বাচ্চারা সব জিনিসের নাম বলা শিখবে সেখানে আপনার বাচ্চাটা হাতে গোনা কিছু শব্দের মধ্যেই তার শেখার পরিধি সীমাবদ্ধ রাখবে।
• অন্য বাচ্চাদের মতো নিজের শরীরের অঙ্গ প্রত্যঙ্গ সম্পর্কে বলতে পারবেনা।

এছাড়া বিস্তারিত জানতে পড়ুন এ লেখাটি
আরো পড়তে পারেন

উপরের লক্ষণগুলো প্রকাশ পাওয়ার সাথে সাথে আপনার বাচ্চার প্রতি যত্নবান হয়ে উঠুন। দেরি না করে তাকে ভালো কোন শিশু বিশেষজ্ঞের (pediatricians ) কাছে নিয়ে যান। আপনার একটু অবহেলা আগামীতে তার সুন্দর জীবনযাপনের পথে প্রতিবন্ধকতার জন্ম দিতে পারে।

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য বিষয়ক পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য সংক্রান্ত যেকোন তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।