দুধের ৫ টি স্বাস্থ্য উপকারিতা

milkদুধ (milk) আমাদের খাদ্য তালিকার একটি অন্যতম পুষ্টিকর খাদ্য উপাদানের নাম। দুধে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম ও প্রোটিন বিদ্যমান যা আমাদের স্বাস্থ্যর জন্য খুব উপকারী। প্রতিদিন একগ্লাস দুধ পান করার ফলে আমাদের শরীর নানা ধরণের রোগ প্রতিরোধে সক্ষম হয়ে উঠে।

১) সুস্থ হাড় গঠনে (bone health):

দুধ ক্যালসিয়ামের একটি অন্যতম উপাদান যা সুস্থ হাড় গঠনে সাহায্য করে। তাই শুধুমাত্র বেড়ে উঠা বাচ্চারা নয় বরং প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষেরাও তাদের দেহের হাড় মজবুত রাখতে প্রতিদিন দুধ পান করতে পারেন। এছাড়া দুধ পান করার ফলে আমাদের শরীর নানা ধরণের হাড়ের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অর্জন করে।

২) সুস্থ দাঁত (healthy teeth) :

দুধ আমাদের সুস্থ দাঁতের জন্যও জরুরী। দুধ দাঁতের যেকোন রোগ সহ ক্যাভিটি প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে। দুধে উপস্থিত ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়াম বাচ্চার দাঁতের গঠনে সাহায্য করে। তাই শুধু বাচ্চারা নয় সুস্থ দাঁত পেতে ছোট বড় সবার দুধ পান করা দরকার।

৩) মাংসপেশি গঠন (muscles) :

দুধের পুষ্টি উপাদান শরীরের মাংসপেশি গঠনে অগ্রণী ভূমিকা রাখে। বিশেষ করে বাড়তি বয়সী বাচ্চাদের শরীরের সুষ্ঠু ও স্বাভাবিক গড়ন নিশ্চিত করতে দুধ পানের কোন বিকল্প হয়না। তাছাড়া আপনার ব্যায়াম করা শেষে দুধ খেলে আপনার শরীরের মাংসপেশি আরো সুগঠিত হয়।

৪) মানসিক অবসাদ দূর করতে(less stress) :

আপনার সারাদিনের ক্লান্তি আর মানসিক অবসাদ দূর করতে একগ্লাস দুধের কোন বিকল্প হয়না। গরম একগ্লাস দুধ আপনার মাংসপেশি ও নার্ভ শান্ত করে তোলে আর আপনার কর্মশক্তি বৃদ্ধি করে।

৫) ত্বক উজ্জ্বল করতে (glowing skin) :

ত্বক উজ্জ্বল করতে প্রতিদিন এক গ্লাস দুধ পান করতে পারে। দুধের নিউট্রিইয়েন্স ও ল্যাক্টিক অ্যাসিড উপাদান ত্বক সফট রাখে, এর অ্যামিনো অ্যাসিড ত্বক মশ্চেরাইজ করে ও দুধের প্রাকৃতিক পুষ্টি উপাদান ত্বকের যেকোন ধরণের ড্যামেজ রোধ করে।
আপনার সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় দুধ যোগ করুন। দুধ একাই আপনার অনেকগুলো স্বাস্থ্য সমস্যার সমাধান করবে।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।