ব্লগে/ওয়েবসাইটে ট্রাফিক বাড়াতে যে কাজটি অবশ্যই করবেন

Gain Huge Traffic for Blog and Website

নিজের ব্লগ বা ওয়েবসাইট আছে এমন ব্যক্তি মাত্রই কামনা করেন তার ব্লগে/সাইটে প্রচুর ট্রাফিক (পাঠক) (visitor) আসুক। কিন্তু ভাল মানের কনটেন্ট, দৃষ্টিনন্দন ডিজাইনের থাকার পরেও দেখা যায় অনেক ওয়েবসাইট বা ব্লগ তার কাঙ্ক্ষিত ট্রাফিক (traffic) পাচ্ছে না। আর এর অন্যতম কারণ হচ্ছে সেই ব্লগ/সাইটটি মোবাইল থেকে দেখার উপযুক্ত নয় অথবা প্রচলিত ভাষায় বলা যায় ‘মোবাইল ফ্রেন্ডলি নয়’।

যেহেতু অন্যান্য দেশের মত আমাদের দেশেও প্রচুর সংখ্যক স্মার্টফোন (smartphone) ব্যবহারকারী আছে তাই ব্লগ বা ওয়েবসাইটে ভিজিটর বাড়াতে হলে অবশ্যই তাকে মোবাইল থেকে সহজে দেখার উপযুক্ত করে তৈরি করতে হবে।

আপনার ব্লগ/ওয়েবসাইটটি দুটি উপায়ে মোবাইল ব্যবহারকারীদের জন্য সহজ করে তুলতে পারেন।

১. মোবাইল এপ্লিকেশনের মাধ্যমে (mobile app):

যেহেতু আমাদের দেশে প্রচুর সংখ্যক স্মার্টফোন ব্যবহারকারী আছে তাই ব্লগ/ওয়েবসাইটকে তাদের কাছে সহজ করে তোলার অন্যতম মাধ্যম হতে পারে মোবাইল এপ্লিকেশন (mobile app)। আমাদের দেশে অনেক সফটওয়্যার ডেভলাপার আছেন যাদের সাহায্যে সহজেই নিজের ব্লগ বা ওয়েবসাইটের জন্য মোবাইল এপ্লিকেশন তৈরি করে নিতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ বিখ্যাত বিনোদনমূলক ওয়েবসাইট 9GAG এর মোবাইল এপ্লিকেশনটি দেখতে পারেন। এমন একটি এপ্লিকেশন আপনার ওয়েবসাইটে ট্রাফিক যেমন বাড়াবে তেমনি মোবাইল ব্যবহারকারীদের জন্য আপনার পণ্য বা সেবা সংগ্রহ করার সুযোগও বর্ধিত করবে।

২. রেস্পনসিভ ডিজাইন (responsive design):

স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য নিজের ব্লগ/ওয়েবসাইটকে সহজ করে তোলার আরেকটি জনপ্রিয় পদ্ধতি হচ্ছে রেস্পনসিভ ডিজাইন। এটি এমন একটি পদ্ধতি যাতে আপনার ওয়েবসাইট নিজেই বুঝে নিবে কোন ধরণের ডিভাইস থেকে কেউ তাতে প্রবেশ করেছে এবং সেই ডিভাইসের উপযুক্ত করেই নিজেকে উপস্থাপন করবে। তাই নিজের ওয়েবসাইটকে স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট ব্যবহারকারীদের কাছে জনপ্রিয় করে তুলতে তাতে রেস্পনসিভ ডিজাইন ব্যবহার করুন। রেস্পনসিভ ডিজাইনের (responsive design) একটি সহজ উদাহরণ হচ্ছে ফেসবুক। আপনার কম্পিউটার থেকে এবং স্মার্টফোন থেকে দেখা ফেসবুক কিন্তু একই রকম নয়, অথচ সাইটটির সকল সুবিধাই আপনি কম্পিউটার এবং মোবাইল থেকে সমান ভাবে ব্যবহার করতে পারছেন।

এ ধরণের আরও লেখা পড়ুনঃ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।