অনিদ্রা দূর করতে যেসব খাবার খেতে পারেন

insomnia3আজকাল নিদ্রাহীনতা বা ঘুমা না আসা অনেকরই দুশ্চিন্তার কারণ। এজন্য অনেকে অনেক পদ্ধতি অবলম্বন করেন। কিছু খাদ্যাভ্যাস রপ্ত করে নিলে কেমন হয়? কোন কোন খাবার আপনার ঘুম বা নিদ্রায় ভূমিকা রাখতে পারে সে বিষয়ে থাকছে কিছু পরামর্শ।

মাছ

মাছে এমাইনো এসিডের জাতক ট্রিপটোফ্যান থাকে যা সেরোটোনিন লেভেলকে বাড়িয়ে দেয় যার জন্য মেলাটোনিন উৎপন্ন হয়। মেলাটোনিন হচ্ছে এক ধরনের হরমোন যা আপনার ঘুম এবং জেগে উঠার চক্রকে নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। তাছাড়া অধিকাংশ মাছ যেমন কড, সালমন, টুনা মাছ ভিটামিন বি৬ সরবরাহ করে যা মেলাটোনিন উৎপন্নের জন্য দায়ী। আমেরিকান জার্নাল অফ ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশান এর একটি গবেষণায় দেখা যায় যে, যারা ট্রিপটোফ্যান সমৃদ্ধ খাবার খেয়েছিলেন তাদের অনিদ্রা কমে গেছে এবং সকালে সাবলীলভাবে তারা জাগতে পেরেছিলেন। এটা সম্ভব হয়েছিল তাদের রাতের ঘুম ভাল হবার কারণে।

দুগ্ধজাত খাবার

পুরাতন প্রবাদে আছে যে, এক গ্লাস গরম দুধ আপনাকে ঘুমাতে সাহায্য করবে। দুগ্ধজাত সামগ্রী যেমন দই, দুধ এবং পনির এগুলোতে প্রচুর পরিমাণে মেলাটোনিন ও ক্যালসিয়াম থাকে। কিছু গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, পর্যাপ্ত পরিমাণ ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার না খেলে ঘুমানো কঠিন হয়ে পড়ে।

কলা

কলা পটাশিয়াম সমৃদ্ধ খাবার হিসেবে পরিচিত। এছাড়াও ভাল পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম থাকে। পটাশিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম উভয় খনিজ উপাদানই অধিক প্রসারিত মাংসপেশিকে বিশ্রামে রাখতে সাহায্য করে। তাছাড়া, ম্যাগনেসিয়ামের অভাবজনিত কারণে রেস্টলেস লেগ সিনড্রম (Restless leg syndrome) হতে পারে যা নিশিনিদ্রায় ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। কলায় ট্রিপটোফ্যান নামক এমাইনো এসিডও থাকে যা ঘুমের গভীরতার সাথে সম্পর্কিত।

বাদাম

বাদামে ম্যাগনেসিয়াম ও ক্যালসিয়াম দুই ধরনের খনিজ উপাদান থাকে যা ঘুমকে ত্বরান্বিত করে। তাছাড়া বাদামের বিশেষ তেল আপনার সেরোটোনিন লেভেলকে বাড়িয়ে দেয়। এছাড়াও বাদামে থাকা প্রোটিন আপনার রক্তের স্থিতিশীল সুগার লেভেলকে রক্ষণাবেক্ষণ করতে সহায়তা করে। এতে আপনার ঘুম ত্বরান্বিত হয়।

চা

চা একটি কোমল পানীয়। বিছানায় যাবার আগে ক্যামোমিল বা পেপারমিনট সমৃদ্ধ হারবাল চা আপনার ঘুমের জন্য সহায়ক। সাধারণত হারবাল চায়ের পাতায় ক্যাফেইন থাকে না, তবে নিদ্রা সহায়ক কিছু কিছু উপকরণ থাকে। ক্যামোমিল হচ্ছে এক ধরনের ভেষজ উদ্ভিদ যা সফলভাবে হাজার বছর ধরে ইনসমনিয়া (Insomnia) বা অনিদ্রার জন্য ব্যবহৃত হয়ে আসছে। পেপারমিনট চা পাতা কাজের চাপ থেকে মুক্তি এবং ঘুমকে ত্বরান্বিত করতে সহায়তা করে। এছাড়া হারবাল চা, সবুজ রঙের চা তে থিয়েনিন নামক এমাইনো এসিডের জাতক থাকে যা চাপ মুক্তি ও বিশ্রামে সাহায্য করে।

আপনার দৈনন্দিন খাদ্যাভ্যাসের তালিকায় খাবারগুলো যোগ করে আপনার ঘুমকে করুন স্বাস্থ্য সহায়ক ও পরিপূর্ণ।

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য ও রূপচর্চা বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য অথবা রূপচর্চা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য/ রূপচর্চা সংক্রান্ত যেকোন তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের/বিউটিশিয়ানের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।