অজ্ঞান হওয়া বা জ্ঞান হারিয়ে ফেলা: লক্ষণ, সতর্কতা এবং প্রাথমিক চিকিৎসা

bigstock-Woman-in-a-faint-lying-on-the--17867924অজ্ঞান হয়ে যাওয়া, মূর্ছা যাওয়া, সংজ্ঞা হারানো বা মাথা ঘুরে পরে যাওয়া যেভাবেই বলা হোক না কেন, ব্যাপারটির সাথে পরিচয় আছে সবারই। অনেকে নিজে এই অবস্থায় পরেছেন, আবার অন্যকে চোখের সামনে জ্ঞান হারাতে দেখেছেন। কেন মানুষ অজ্ঞান (faint) হয়, কি ভাবে নিজেকে এ থেকে রক্ষা করা যায় এবং কিভাবে অজ্ঞান হয়ে পড়া ব্যক্তিকে সাহায্য করা যায় তা জানাচ্ছি এই লেখায়।

কেন মানুষ সংজ্ঞা হারায়?
(why fainting happens)

আমাদের মস্তিষ্কে আরও অনেক জিনিসের পাশাপাশি প্রয়োজন হয় অক্সিজেনের, যা রক্তের মাধ্যমে সেখানে পৌঁছায়। এই রক্ত সরবরাহ যখন বন্ধ বা ধীর হয়ে যায় তখন প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের অভাবে মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা হ্রাস পায়।
সাধারণত অক্সিজেনের অভাব মস্তিষ্ক খুব দ্রুত পূরণ করে নিলেও কখনো কখনো তা পূরণ হতে কিছুটা সময় লেগে যায়। আর তখনই মানুষ সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলে (fainting)
এছাড়াও মানসিক চাপ, অতিরিক্ত গরম, পানি শূন্যতা, অবসাদ বা অসুখের কারণে মানুষ সংজ্ঞা হারাতে পারে।
কখনো কখনো দীর্ঘ লাইনে অনেকক্ষণ ধরে দাঁড়িয়ে থাকলে মানুষ জ্ঞান হারায়। কারণ স্থির হয়ে দাঁড়িয়ে থাকার কারণে রক্ত সারা শরীরে সঠিকভাবে পৌঁছায় না, এর সাথে যুক্ত হয় ভিড় এবং গরম।
কোন কোন ওষুধ গ্রহণের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ফলে মানুষ জ্ঞান হারাতে পারে। এছাড়া নিম্ন রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস সংজ্ঞা হারানোর অন্যতম কারণ।

সংজ্ঞা হারানোর পূর্বে যে লক্ষণগুলো দেখা যায়
(warning signs)

আপনি নিজে বা অন্য কেউ কারো মধ্যে এই লক্ষণগুলো দেখা দিলে বুঝে নিতে হবে তিনি খুব দ্রুত সংজ্ঞা হারাবেন।
১. চেহারা ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া
২. শরীর হঠাৎ ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়া
৩. অস্বাভাবিক ভাবে ঘামতে থাকা
৪. মাথা ঘোরা
৫. সামনের সব বস্তু ঝাপসা বা অন্ধকার দেখা
৬. বমি বমি ভাব
৭. পালস কমে যাওয়া
৮. দ্রুত শ্বাস-প্রশ্বাস

নিজের মধ্যে জ্ঞান হারানোর লক্ষণ দেখা দিলে কি করবেন?
(what you should do)

উপরে উল্লেখিত লক্ষণগুলো বা এর যে কোন একটি নিজের মধ্যে অনুভব করলেই বুঝে নিন আর কিছু সময়ের মধ্যেই আপনি সংজ্ঞা হারাতে চলেছেন। তাৎক্ষণিক কিছু সতর্কতা আপনাকে পরবর্তী বড় বিপদ থেকে রক্ষা করবে।
১. সোজা শুয়ে পড়ুন। এমনভাবে শোয়ার চেষ্টা করবেন যেন মাথার চেয়ে পায়ের অবস্থান কিছুটা উঁচুতে হয়। পায়ের নিচে বালিশ বা অন্য কোন বস্তু রেখে সহজেই এই ব্যবস্থাটি করা যাবে।Fainting and Loss of Consciousness (3)
২. যদি শোয়া সম্ভব না হয়ে তবে বসে পড়ুন, দুই হাঁটুর মাঝখানে মাথা রেখে চোখ বন্ধ করুন।Fainting and Loss of Consciousness (2)
৩. যদি বসার মত অবস্থায়ও না থাকেন তবে দেয়ালে কান শক্ত করে চেপে রেখে দু’হাত দুই পাশে ছড়িয়ে দিন।

অন্য কেউ সংজ্ঞা হারালে যা করবেন:

যদি দেখেন আপনার সামনে থাকা কারো মধ্যে সংজ্ঞা হারানোর লক্ষণ দেখা যাচ্ছে তবে উপরে উল্লেখিত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করুন। আর যদি কেউ সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলে তাহলে:
১. তাকে লম্বা করে শুইয়ে দিন সমতল স্থানে, পা যেন মাথার চেয়ে উঁচুতে অবস্থান করে এমনভাবে।
২. সব জামা ঢিলে করে দিন। বিশেষ করে কলার এবং প্যান্ট।
৩. মাথা পেছনের দিকে সামান্য হেলিয়ে দিন যেন মুখ খোলা থাকে, এতে শ্বাস নিতে সুবিধা হবে।Young Woman Laying an Elderly Man Down on the Floor
৪. বাতাসের ব্যবস্থা করুন। ফ্যান না থাকলে পত্রিকা বা যে কোন বস্তু দিয়ে বাতাস করুন
৫. ভেজা কাপড় দিয়ে মুখ এবং ঘাড় মুছে দিতে থাকুন

জ্ঞান ফিরে আসার পর যা করবেন:

সাধারণত সংজ্ঞা হারানোর ১-২ মিনিটের মধ্যেই মানুষ আবার সংজ্ঞা ফিরে পায়। এর চেয়ে বেশি সময় ধরে কেউ অজ্ঞান থাকলে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।
১. রোগী বমি করতে থাকলে তাকে জোর করে বসানোর চেষ্টা করবেন না, পাশ ফিরিয়ে শুইয়ে দিন। এতে গলায় বমি আটকে যাবে না।
২. রোগীর উঠে বসার মত অবস্থা থাকলে ঠাণ্ডা পানিতে সামান্য পরিমাণে লবণ মিশিয়ে খাওয়ান বা জুস খাওয়ান।
৩. সুস্থ হয়ে উঠার পরের কমপক্ষে ১৫ মিনিট তাকে বসিয়ে রেখে নিশ্চিত করুন যে তার পুনরায় জ্ঞান হারানোর সম্ভাবনা নেই।

সতর্কতা (caution)

১. কোন অবস্থাতেই রোগীকে ঝাঁকাবেন না, চড় দিবেন না বা পানির ঝাঁপটা দিবেন না।
২. অজ্ঞান হয়ে যাওয়া ব্যক্তির মাথার নিচে বালিশ দিবেন না।
৩. পরিপূর্ণ ভাবে জ্ঞান ফিরে না পাওয়া পর্যন্ত কিছু পান করতে দিবেন না, এতে গলায় পানীয় আটকে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
৪. বিনা কারণে তাকে সরাতে চেষ্টা করবেন না।
৫. অজ্ঞান ব্যক্তিকে কখনোই বসা বা দাঁড় করানোর চেষ্টা করবেন না।

এ ধরণের আরও লেখা পড়ুন

তথ্যসূত্র (references)

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য ও রূপচর্চা বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য অথবা রূপচর্চা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য/ রূপচর্চা সংক্রান্ত যেকোন তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের/বিউটিশিয়ানের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।