জেনে নিন আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কিছু গুরত্বপূর্ণ তথ্য

muktijuddhoমুক্তিযুদ্ধ প্রতিটি বাংলাদেশীর জন্য অত্যন্ত গর্বের এবং আবেগের। একজন বাংলাদেশী হিসেবে মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানাটা, একাত্তরকে স্মরন করাটা আমাদের কর্তব্যের মধ্যেই বর্তায়। বিসিএস বা ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য নয়, কর্তব্যবোধ থেকেই আসুন, এক ঝলক চোখ বুলিয়ে নেই মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত কিছু তথ্যের উপর।

  • প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ : ১৯ মার্চ ১৯৭১, গাজীপুরে। প্রতিরোধ গড়ে তোলেন, তৎকালীন ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট।
  • প্রথম পতাকা উত্তলন : ২ মার্চ ১৯৭১। পতাকা উত্তলন করেন, আ.স.ম আবদুর রব।
  • মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানের জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে পুরষ্কার প্রদান করা হয় ৪ টি।
    বীরশ্রেষ্ঠ (৭ জন )
    বীরউত্তম (৬৮ জন )
    বীর বিক্রম (১৭৫ জন)
    বীর প্রতীক (৪২৬ জন)

আমাদের সাতজন বীরশ্রেষ্ঠ :

  • সিপাহী মোস্তফা কামাল (জন্ম :১৬ ডিসেম্বর ১৯৪৭ সালে। সমাধি স্থল: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার দরুইন গ্রামে।
  • ল্যান্স নায়েক মুন্সী আবদুর রউফ (জন্ম: ১ মে ১৯৪৩ সালে। সমাধি স্থল: চট্রগ্রামের কালুরঘাটের চিংড়ীখালি নদীর তীরে।
  • ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মতিউর রহমান (জন্ম: ২৯ অক্টোবর ১৯৪১ সালে। সমাধি স্থল: ২৪ জুন, ২০০৬ সালে তাঁর মৃতদেহ বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয় এবং ২৫ জুন ২০০৬ সালে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়।
  • ল্যান্স নায়েক নুর মোহাম্মদ শেখ (জন্ম : ২৬ এপ্রিল, ১৯৩৬ সালে। সমাধি স্থল: যশোরের গোয়ালহাটি।
  • সিপাহী হামিদুর রহমান (জন্ম : ২ফেব্রুয়ারি, ১৯৫৩ সালে। সমাধি স্থল : প্রথমে, ভারতের আমবাসা নামক স্থানে। ১১ ডিসেম্বর ২০০৭ সালে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়।
  • স্কোয়াড্রন লিডার রুহুল আমিন (জন্ম : ১৯৪৩ সালে। সমাধিস্থল : খুলনার রুপসা নদীর তীরে।
  • ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর (জন্ম : ১৯৪৯ সালে। সমাধিস্থল : চাঁপাই নবাবগঞ্জের সোনা মসজিদ প্রাঙ্গনে।

মুক্তিযুদ্ধকালীন, সমগ্র বাংলাদেশকে ১১ টি সেক্টরে ভাগ করা হয়।

  • সেক্টর ১: চট্রগ্রাম, পার্বত্য চট্রগ্রাম এবং ফেনী নদী পর্যন্ত।
  • সেক্টর ২ : নোয়াখালী, কুমিল্লা, আখাউড়া ভৈরব এবং ঢাকা ও ফরিদপুর জেলার অংশ বিশেষ।
  • সেক্টর ৩ : আখাউড়া ভৈরব রেললাইন থেকে পূর্ব দিকে কুমিল্লা জেলা, হবিগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ ও ঢাকার অংশ বিশেষ।
  • সেক্টর ৪ : সিলেট জেলার পূর্বাঞ্চল, খোয়াই, শায়েস্তাগঞ্জ রেললাইন থেকে পূর্ব ও উত্তর দিকে সিলেট ডাইউকি শহর।
  • সেক্টর ৫ : সিলেট জেলার পশ্চিম এলাকা এবং সিলেট ডাইউকি সড়ক থেকে সুনামগঞ্জ এবং বৃহত্তর ময়মনসিংহের সীমান্তবর্তী অঞ্চল।
  • সেক্টর ৬ : ব্রহ্মপুত্র নদের তীরবর্তী অঞ্চল ব্যতীত সমগ্র রংপুর জেলা ও ঠাকুরগাঁও।
  • সেক্টর ৭: সমগ্র রাজশাহী, ঠাকুরগাঁও ছাড়া দিনাজপুরের অবশিষ্ট অংশ এবং ব্রহ্মপুত্র নদের তীরবর্তী এলাকা ব্যতীত সমগ্র পাবনা ও বগুড়া জেলা।
  • সেক্টর ৮: সমগ্র কুষ্টিয়া ও যশোর জেলা, ফরিদপুরের অংশ বিশেষ এবং দৌলতপুর সাতক্ষীরা সড়ক পর্যন্ত খুলনা জেলার এলাকা।
  • সেক্টর ৯: সাতক্ষীরা দৌলতপুর সড়কসহ খুলনা জেলার সমগ্র দক্ষিণাঞ্চল এবং বৃহত্তর বরিশাল এবং পটুয়াখালী জেলা।
  • সেক্টর ১০ : অভ্যন্তরীণ নৌপথ ও সমুদ্র উপকূলীয় অঞ্চল চট্রগ্রাম ও চালনা।
  • সেক্টর ১১ : কিশোরগঞ্জ ব্যতীত সমগ্র ময়মনসিংহ অঞ্চল।

জাতীয় চার নেতা 

  • সৈয়দ নজরুল ইসলাম (অস্থায়ী রাষ্ট্রেপতি ও উপরাষ্ট্রপতি)
  • তাজউদ্দিন আহমদ (প্রধানমন্ত্রী)
  • মনসুর আলী (অর্থ-বানিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী)
  • এ. এইচ. এম. কামরুজ্জামান (স্বরাষ্ট্র, কৃষি, ত্রান ও পুর্ণ-বাসন মন্ত্রী)

বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানকারী প্রথম তিনটি রাষ্ট্র 

 মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত দিবস সমুহ 

  • কালোরাত্রি দিবস : ২৫ মার্চ
  • স্বাধীনতা/ জাতীয় দিবস : ২৬ মার্চ
  • মুজিবনগর দিবস : ১৭ এপ্রিল
  • মুক্তিযোদ্ধা দিবস : ১ ডিসেম্বর
  • শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস : ১৪ ডিসেম্বর
  • বিজয় দিবস : ১৬ ডিসেম্বর।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।