ব্লগের লেখা প্রকাশ করার আগে যে বিষয়গুলো দেখে নেয়া দরকার

write-your-own-blogব্লগে একটি লেখা প্রকাশ করার পেছনে প্রয়োজন হয় অনেক যত্ন আর পরিশ্রমের। কিন্তু লেখা প্রকাশ করার পর দেখা গেল বেশ কিছু বানান ভুল, কোন বাক্য এলোমেলো হয়ে গেছে অথবা যুক্ত করা কিছু লিঙ্ক কাজ করছে না। তখন ব্যর্থ হয়ে যায় পুরো পরিশ্রমটাই। তাই লেখা প্রকাশ করার আগে লক্ষ্য করুন নিচের বিষয়গুলোঃ

১. লেখার পর সম্পূর্ণ লেখাটি পড়ে নিনঃ
শুনতে খুব অবাক লাগলেও অনেকেই আছেন যারা লেখার পর একবার না পড়েই ব্লগে প্রকাশ করেন। এটি অনেক বড় ভুল, কারণ পড়ার পরই শুধুমাত্র আপনি বুঝতে পারবেন আপনি যা লিখতে চেয়েছিলেন তা আপনার লেখায় তুলে ধরতে পেরেছেন কি না, আপনার লেখা সঠিক না কি কোন ভুল রয়ে গেছে।

২. লেখায় উপযুক্ত কি-ওয়ার্ড যোগ করুনঃ
সার্চ এঞ্জিনগুলো আপনার লেখাটি খুঁজে পাবে এই কি ওয়ার্ডের মাধ্যমেই। তাই লেখায় কি -ওয়ার্ড যোগ করার সময় লক্ষ্য রাখুন তা আপনার লেখার বিষয়বস্তুকে প্রকাশ করছে কি না। সাধারণত বেশিরভাগ পাঠক সার্চ করে যা লিখে এমন সম্ভাব্য কি ওয়ার্ড নির্বাচন করুন।

৩. লেখাটি যতটা পরিপূর্ণ হওয়া দরকার তা হয়েছে কি না দেখুনঃ
ব্লগে পাঠকের আকর্ষণ এবং মনোযোগ বৃদ্ধির অন্যতম উপায় লেখাগুলো পরিপূর্ণভাবে উপস্থাপন করা। আপনার লেখাটির সাথে সরাসরি যুক্ত এমন কোন বিষয় থাকলে তা লেখায় যোগ করুন। এতে আপনার লেখার মান বেড়ে যাবে অনেকগুণ।

৪. আকর্ষণীয় শিরোনাম নির্বাচন করুনঃ
যে কোন পাঠকই প্রথম কোন লেখার প্রতি আকৃষ্ট হয় তার শিরোনাম দেখে। অনেক সময় দেখা যায় খুব তথ্যসমৃদ্ধ এবং উচ্চ মানের লেখাও পাঠক এড়িয়ে যান শুধুমাত্র অনুপযুক্ত শিরোনামের কারণে। তাই শিরোনাম নির্বাচন করুন এমনভাবে যাতে তা সবার দৃষ্টি আকর্ষণে সক্ষম হয়।

৫. ভুল সংশোধন করুনঃ
লেখায় ভুল হওয়া খুব স্বাভাবিক। সামান্য কোন ভুলের কারণে আপনার লেখার মর্মার্থ বদলে যেতে পারে, অথবা পাঠক বিরক্ত হতে পারেন। তাই লেখার পর কোন স্পেল চেকার সফটওয়্যার এবং ব্যাকরণে দক্ষতা আছে এমন কারো সাহায্য নিয়ে সম্পূর্ণ লেখাটি পরীক্ষা করুন। ভুল আছে কি না তো সহজে বুঝতে চাইলে লেখাটি উচ্চস্বরে অথবা শেষ থেকে পড়তে পারেন।

৬. পুরানো লেখার লিঙ্ক যোগ করুনঃ
আপনার নতুন লেখাটির সাথে যদি আগের কোন লেখার সম্পৃক্ততা থাকে তবে অবশ্যই তার লিঙ্ক যোগ করুন। এতে কোন নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে আপনার সকল লেখা একসাথে পড়ার ক্ষেত্রে পাঠকের সুবিধা হবে । এছাড়াও আপনার সম্পূর্ণ ব্লগে সার্চ বটগুলো আরও দক্ষতার সাথে বিচরণ করতে পারবে এবং আপনার লেখাগুলো কি ধরণের তা বুঝতে পারবে।

৭. লেখায় যেসব লিঙ্ক যুক্ত করেছেন তা কাজ করছে কিনা দেখুনঃ
লেখায় অনেক সময়ই অন্যান্য ওয়েবসাইটের গুরুত্বপূর্ণ এবং সামঞ্জস্য আছে এমন লেখার লিঙ্ক যোগ করা হয়। দেখা যায় খুব সামান্য ভুলের কারণে লিংকগুলো কাজ করছে না যেমনঃ http://http:// দুইবার লিখে ফেলা অথবা .com এর জায়গায় .co হয়ে যাওয়া ইত্যাদি। এসব লিঙ্ক ঠিকভাবে কাজ করছে কি না, তা পরীক্ষা করে নিন আপনার লেখাটি প্রকাশ করার আগেই।

৮. ছবি যুক্ত করুনঃ
একটি উপযুক্ত ছবি আপনার লেখার মূলভাব অনেকটাই তুলে ধরতে পারে পাঠকের কাছে। এছাড়া অনেক পাঠক শুধুমাত্র ছবি দেখেই লেখার প্রতি আকৃষ্ট হন। ব্লগে বেশ কিছু ট্রাফিক আসে গুগল ইমেজ সার্চ ব্যবহারের মাধ্যমে। তাই লেখায় ছবি যোগ করেছেন কি না তা দেখে নিন ব্লগে প্রকাশ করার আগেই।

৯. উপযুক্ত পার্মালিঙ্ক যোগ করুনঃ
লক্ষ্য রাখুন পার্মালিঙ্কে যেন লেখার মূলভাবটা প্রকাশ পায় এবং তা সংক্ষিপ্ত হয়। পরিচ্ছন্ন এবং সংক্ষিপ্ত পার্মালিঙ্ক গুগল সার্চ থেকে আরও বেশি পাঠককে আকর্ষণ করবে আপনার ব্লগে।

১০. কখন লেখাটি প্রকাশ করবেন তা নির্ধারণ করুনঃ
সাধারণত শুক্রবার এবং অন্যান্য সরকারি ছুটির দিনগুলোতে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা কম থাকে। এছাড়া সকাল বা সন্ধ্যার তুলনায় বিকালে কম থাকে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা। তাই কোন সময়টায় সবচেয়ে বেশি পাঠক থাকতে পারে তা পরীক্ষা করে নিয়ে ব্লগে লেখা প্রকাশ করুন। এতে অনেক পাঠকের কাছে দ্রুত লেখাটি পৌঁছানো সহজ হবে।

ব্লগ নিয়ে পরামর্শ.কমে প্রকাশিত আরো লেখা পড়তে পারেনঃ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।