বাবা মা হিসেবে যে ভুলগুলো অবশ্যই এড়িয়ে চলবেন

Parenting

Parentingসন্তানকে নিয়ে বাবা মার দুশ্চিন্তার শেষ নেই। প্রতিটা ক্ষণে প্রতিটা মুহূর্তে তারা সন্তানকে নিয়ে চিন্তা করেন। এই করতে গিয়ে অনেকেই শাসনের বাঁধনটি এত শক্ত করে ফেলেন যে, সন্তান কখন বাবা মার বিপরীতে দাঁড়িয়ে যায় তারা বুঝতেই পারেন না। সবসময় সন্তান ভুল করবে এমন কোন কথা নেই। ভুল হতে পারে বাবা মায়েদেরও। সেই ভুলগুলো আপনি যদি এড়িয়ে চলতে চান, তবে এই লেখাটি পড়তে হবে আপনাকে।

১) অতিরিক্ত শাসন নয়ঃ
‘শাসন করা তারই সাজে, সোহাগ করে যে।’ এই কথাটি আপনি জানেন। শুধু জানলেই কিন্তু হবে না। বিষয়টি মানতে হবে। বাবা মা হিসেবে সন্তানকে আপনি শাসন করবেন না সেটি নয়। তবে কোন সময়ে শাসন করতে হবে তাও জানতে হবে। সারাদিন আপনি যদি শাসনই করে যান তবে একসময় শাসন জিনিসটাই তার কাছে হালকা হয়ে যাবে।

২) যে কথাগুলো বাবা মায়েরা বলেন নাঃ
বাবা মা যখন নিজেরা ভুল করে ফেলেন, সে ভুলটি তারা স্বীকার করতে চান না বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই। আবার স্বীকার করলেও তা মনে মনে করেন। মনে রাখুন, আপনার যদি ভুল হয় আপনাকে স্পষ্ট করে ভুল স্বীকার করতে হবে। যে কথাগুলো আপনি বলতে পারেন সেগুলো হল

  • আমি কিন্তু তোমাকে দুঃখ দিতে চাই চাই নি।
  • আমি আমার আচরণের জন্যে সত্যিই দুঃখিত।
  • আমাদের এই ব্যাপারে আরো একটু আলোচনা করা দরকার।

৩) সব ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করবেন নাঃ
প্রত্যেক মানুষেরই একটি আলাদা জগত আছে। আপনার সন্তান আপনার কাছে ছোট হতে পারে। কিন্তু তার নিজস্বতা বলে কিছু থাকবে না এটা কিন্তু ঠিক নয়। তার সব ব্যাপারে যদি আপনি মাথা ঘামান তবে একসময় সে কিন্তু বিরক্ত হয়ে উঠবে। তাই যে বিষয়গুলোতে আসলেই আপনার চিন্তা ভাবনা করা দরকার শুধু সে বিষয়গুলোতেই হস্তক্ষেপ করুন।

৪) অন্যের সাথে তুলনা নয়ঃ
পৃথিবীর সবাই সব কিছু পারে না। আবার সবাইরই রয়েছে নিজস্ব কিছু বৈশিষ্ট্য ও প্রতিভা। এই কথাটি আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে। প্রায় দেখা যায় বাবা মায়েরা অন্য কারো সাথে নিজ সন্তানের তুলনা করতে থাকে। এতে সে মনে মনে ছোট হয়ে যায় এবং তার আত্মবিশ্বাসও কমতে থাকে। একটা সময় গিয়ে এটি তার মানসিক রোগেও পরিণত হতে পারে। তাই আপনার সন্তানের ভুলগুলো ধরিয়ে দিন, তার যত্ন নিন কিন্তু অন্য কারো সাথে তুলনা? একদমই নয়।

৫) গম্ভীরতা বর্জন করুনঃ
অনেক বাবা মা ভাবে একটু গম্ভীর হয়ে থাকলে মনে হয় সন্তানরা তাদের মেনে চলবে। আসলে তারা বুঝতেই পারে না গম্ভীরতার কারণে সন্তান ধীরে ধীরে দূরে সরে যেতে থাকে। তাই গম্ভীর না থেকে সন্তানের বন্ধু হওয়ার চেষ্টা করুন। এতে সে তার ব্যক্তিগত সমস্যার কথা আপনাকে খুলে বলতে পারবে এবং এতে তার বিপথে যাওয়ার সম্ভাবনা কমে আসবে।

ভাল বাবা মা হওয়া খুব সহজ। কেননা প্রায় সব ছেলে মেয়েই জানে বাবা মা তাদের জন্যে কত কিছু করছে। এই ছোটখাটো কয়েকটি ব্যাপার মেনে চলতে পারলে আপনি শুধু একজন ভাল বাবা কিংবা মা হবেন না। হবেন একজন ভাল বন্ধুও।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।